“স্বামীজি আর নেতাজীর নাম মুখে আনার যোগ্যতা নেই বিজেপির”, কেন বললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

519
"স্বামীজি আর নেতাজীর নাম মুখে আনার যোগ্যতা নেই বিজেপির", কেন বললেন অভিষেক

“স্বামীজি আর নেতাজীর নাম মুখে আনার যোগ্যতা নেই বিজেপির”; বিবেকানন্দ জন্মদিবসে কেন একথা বললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৯ তম জন্মদিন উপলক্ষে; বিশ্ব যুব দিবসে গোলপার্ক থেকে হাজরা পর্যন্ত হয় তৃণমূলের মিছিল। মিছিলের প্রধান মুখ ছিলেন; তৃণমূল সাংসদ অভিষেক। হাজরার সভা মঞ্চে দাঁড়িয়ে, তিনি প্রথমে বললেন; কোনও রাজনীতির কথা বলবেন না। কিন্তু ভোটের মুখে, সে কথা ভাঙতে; বেশি সময় নিলেন না। বললেন, নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু ও স্বামী বিবেকানন্দকে নিয়ে; মিছিলের কোন অধিকারই নেই বিজেপির। যুব দিবসে রাজপথে নেমে; বিজেপিকে আক্রমণ শানালেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন তৃণমূল সাংসদের হুংকার; “দিল্লির কাছে মাথা নোয়াবেন না; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”। তৃণমূলের যুবমোর্চা সভাপতি এদিন বলেন; “স্বামী বিবেকানন্দ ও নেতাজী সুভাষকে নিয়ে; মিছিলের অধিকারই নেই বিজেপির ৷ তিনি আরও বলেন; “স্বামীজিকে নিয়ে রাজনীতি করব; এত নীচে নামিনি ৷ তাঁর ছবি ব্যবহার করে; রাজনৈতিক জবাব দেব!

আরও পড়ুনঃ ‘অধিকারী পরিবারে কোপ’, শিশির অধিকারীকে সরিয়ে অখিল গিরিকে দায়িত্ব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

"স্বামীজি আর নেতাজীর নাম মুখে আনার যোগ্যতা নেই বিজেপির", কেন বললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়
abhishek-banerjee-on-swami-vivekananda-netaji-subhas-chandra-bose

গুজরাতে বল্লভভাই প্যাটেলের মূর্তি নিয়েও; বিজেপিকে একহাত নেন অভিষেক। বলেন; “২০১৪-য় স্বামীজির ছবি সামনে রেখে; প্রচার করেছিল ৷ তারপর বেলুড়মঠকে ন্যূনতম সম্মান দেয়নি। গুজরাটে ৩,৫০০ কোটি টাকায় তৈরি হল; বল্লভভাই পটেলের মূর্তি। আমরা প্রতিবাদ করিনি। কিন্তু, কলকাতার বুকে, ৩ হাজার কোটি খরচ করে; কেন বিবেকানন্দ ও সুভাষচন্দ্রের মূর্তি তৈরি হবে না?

আরও পড়ুনঃ বড়সড় ‘বিপর্যয়’, ৫ হাজার তৃণমূল কর্মী নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন তৃণমূল নেতা

হাজরায় অভিষেকের নিশানায়; আগাগোড়াই বিজেপি। তৃণমূল সাংসদ বলেন; “একদিনের নোটিশে মিছিল করেছি। মানুষের বিশ্বাস, উচ্চাশা ও আকাঙক্ষাকে তুলনা করলে; অন্য রাজনৈতিক দলের মিছিল ১০-০ গোলে হেরে যাবে। এটা গুজরাট নয়। বাংলায় ধর্মে ধর্মে বিভাজন করা যাবে না। নাগরিকত্ব বিল নিয়েও, স্বামীজি-কে টেনে; প্রশ্ন তুলেছেন অভিষেক।

বলেছেন, “স্বামীজি বলে গিয়েছিলেন নাকি; ৩-৪টি ধর্মের লোককে নাগরিকত্ব দেবে। বিবেকানন্দের নাম মুখে আনার; অধিকার নেই ওদের। সর্বধর্ম সমন্বয়, সহিষ্ণুতার কথা; বলেছেন স্বামীজি। বিজেপি বি’দ্বেষ ও সা’ম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে দিয়েছে”। “ওর কথার কি গুরুত্ব আছে; তৃণমূলের কাছে সংস্কৃতি শিখতে হবে না”; পাল্টা দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন