গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরবার হুগলি তৃণমূল, নেতা নেত্রীদের নিজের অফিসে ডেকে পাঠালেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়

1835
গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরবার হুগলি তৃণমূল, সবাইকে ডেকে পাঠালেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়/The News বাংলা
গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরবার হুগলি তৃণমূল, সবাইকে ডেকে পাঠালেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়/The News বাংলা

গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরবার হুগলি তৃণমূল; সামাল দিতে, সব বড় নেতাকেই; নিজের অফিসে ডেকে পাঠালেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে, বিরোধ মেটাতেই হুগলির তৃণমূল নেতাদের; বৈঠকে ডাকলেন অভিষেক। গত কয়েকদিন ধরেই, হুগলি জেলা তৃণমূলের শীর্ষ নেতাদের বক্তব্যে; জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে ক্ষোভ সামনে এসেছে। দলের রাজ্য নেতৃত্ব যখন একজোট হয়ে কাজ করতে বলছেন; তখন হুগলিতে তার বিপরীত ছবি দেখা যাচ্ছে। একজন সাংসদ ও ৩ জন বিধায়ককে; কো-অর্ডিনেটার করেছে দল। তাতেও প্রকাশ্য বিরোধ; থামার লক্ষণ নেই।

জেলার সমস্ত কর্মসূচিই; সভাপতি ও কো-অর্ডিনেটাররা মিলে স্থির করার কথা। কিন্তু সেই কো-অর্ডিনেটাররা-ই; জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন। হুগলি তৃণমূল জেলা সভাপতি তপন দাশগুপ্তের বিরুদ্ধে; প্রকাশ্যে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে সেই জেলারই বেশ কয়েকজন বিধায়ক ও সাংসদকে। দলের তরফে জেলা কো-অর্ডিনেটর করা হলেও; তাঁদের না জানিয়েই জেলা সভাপতি একের পর এক কর্মসূচি নিচ্ছেন; বলে প্রকাশ্যে অভিযোগ এনেছেন, তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দার; বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, বেচারাম মান্না সহ অনেকেই। যার ফলে দলের ঐক্যের বদলে; কলহের ছবিটা-ই সামনে আসছে।

আরও পড়ুনঃ গরু পাচার, সারদা, নারদা তদন্ত শেষ করতে, কলকাতা ইডি’র দায়িত্বে বিশেষ অধিকর্তা বিবেক ওয়াদেকরকে

হুগলির দুই বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, বেচারাম মান্না ও আরামবাগের সাংসদ অপরূপা পোদ্দার; প্রকাশ্যে জেলা সভাপতির কাজে অনাস্থা প্রকাশ করেছেন। দলের তরফে তিনজনকেই; জেলা কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। জেলায় দলের সব কর্মসূচিই সভাপতি ও কো-অর্ডিনেটররা বসে ঠিক করবেন; এটাই দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশ। কিন্তু জেলা সভাপতি তপন দাশগুপ্তই সব করছেন; এটাই মূল অভিযোগ নেতা নেত্রীদের। আর সেই কারণেই বিক্ষোভ প্রকাশ্যে এসেছে।

হুগলি তৃণমূলে বারবার, এভাবে বিভেদ-বিরোধের ছবি সামনে আসতেই; নড়েচড়ে বসেছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। বিরোধ মেটাতে, বুধবার বিকাল ৪টেয় ক্যামাক স্ট্রিটে; যুব সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের অফিসে; হুগলি জেলা তৃণমূল নেতৃত্বকে বৈঠকে ডাকা হয়েছে। তবে, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সামলাতে ডেকে পাঠানো হয়েছে; স্বীকার করেন নি তৃণমূল নেতারা। তাঁরা বলেছেন, “আসন্ন পুরভোট ও বিধানসভা ভোটের পরিকল্পনা করতেই; ডেকে পাঠিয়েছেন অভিষেক”। তবে তৃণমূল সূত্রে খবর, বয়স্ক নেতাদের দলের নির্দেশ অমান্য করে প্রকাশ্যে বিবাদের ঘটনায়; বেজায় ক্ষুব্ধ দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন