আদিবাসী মহিলাকে নগ্ন করে মারধর, ভিডিও ভাইরাল করে ‘সবক’, বাংলার বুদ্ধিজীবীদের মোমবাতি মিছিলটা কোথায়

3813
আদিবাসী মহিলাকে নগ্ন করে মারধর, ভিডিও ভাইরাল করে 'সবক', বাংলার বুদ্ধিজীবীদের মোমবাতি মিছিলটা কোথায়
আদিবাসী মহিলাকে নগ্ন করে মারধর, ভিডিও ভাইরাল করে 'সবক', বাংলার বুদ্ধিজীবীদের মোমবাতি মিছিলটা কোথায়

মানব গুহ, কলকাতাঃ আদিবাসী মহিলাকে নগ্ন করে মারধর; ভিডিও ভাইরাল করে ‘সবক’। বাংলার বুদ্ধিজীবীদের মোমবাতি মিছিলটা কোথায়? সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন; তুলেছে বাংলার আমজনতা। বাইরের রাজ্যে বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশ গুজরাত রাজস্থান মধ্যপ্রদেশে; এই ধরণের ঘটনা ঘটলেই কলকাতার রাজপথে মোমবাতি হাতে; বেরিয়ে পরেন বাংলার তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা। কিন্তু বাংলায় কোন ঘটনা ঘটলেই; একেবারে স্পিকটি নট, মুখে কুলুপ। সোশ্যাল মিডিয়া-তেও কোন প্রতিবাদ নেই। টিভি, খবরের কাগজেও যেমন হইচই নেই; তেমনই চোখ বন্ধ বুদ্ধিজীবী-দের।

মধ্যযুগীয় বর্বরতা ঘটে; আলিপুরদুয়ার জেলায়। বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন এক আদিবাসী মহিলা; এই অভিযোগে তাঁকে সবক শেখাতে; সালিশি সভা বসিয়ে সকলের সামনে তাঁকে পিটিয়ে নগ্ন করে গোটা গ্রাম ঘোরানো হয়। এমনকি গোটা ঘটনা; ক্যামারাবন্দী করে রাখেন অনেকেই। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে; ওই মহিলাকে ‘সবক’ শেখানো সম্পূর্ণ হয়। এই ঘটনা নিয়ে; কোন শোরগোল নেই; বাংলার সংবাদজগতে। অদ্ভুতভাবে চুপ সবাই।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় আদিবাসী মহিলার উপর নি’র্যাতন, সালিশি সভায় পিটিয়ে ন’গ্ন করে ঘোরানো হল গ্রামে

আলিপুরদুয়ারের কুমারগ্রাম থানার; পশ্চিম চেংমারী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। তারপর থেকে নিখোঁজ; ওই মহিলা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, মাস ছয়েক আগে ওই মহিলা; বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। তাঁকে বিয়ে করে; স্বামীর ঘরও ছাড়েন। কিন্তু, যাকে তিনি বিয়ে করে তিনি স্বামীকে ছেড়েছিলেন; সেই ব্যক্তিই তাঁকে ত্যাগ করে। এরপর নিজেদের মধ্যে কথা বলে; স্ত্রীকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন স্বামী। স্বামী-স্ত্রী সব মেনে নিলেও; এলাকার মাতব্বরেরা মেনে নেননি। সালিশি সভা বসিয়ে, বিচার করে পিটিয়ে নগ্ন করে; গোটা গ্রাম ঘোরানো হয় ওই আদিবাসী মহিলাকে।

আরও পড়ুনঃ মুকুল রায়ের টার্গেট ‘ম্যাজিক ২৫’, ঘোর চিন্তায় শুভেন্দু

তৃণমূলের তরফ থেকে বলা হয়েছে; “এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা; পুলিশ ব্যবস্থা নিয়েছে”। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন তুলেছে; সাধারণ মানুষ। অন্য রাজ্যে ঘটলে; গেল গেল রব; আইনের শাসন নেই! আর বাংলাতে ঘটলেই; বিচ্ছিন্ন ঘটনা! বুদ্ধিজীবীরা কোথায়? প্রতিবাদীরা কি শীতঘুমে? বুদ্ধিজীবীদের ‘চটিচাটা’ বলে; সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড়। সেই সঙ্গে ব্যঙ্গ; বাংলার সংবাদমাধ্যম-কেও। ‘সরকারি বিজ্ঞাপণে মুখ ঢেকেছে; বাংলা গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ’; ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন বাংলার আমজনতা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন