এখনও বিচার পায়নি নির্ভয়া, প্রিয়াঙ্কার কি হবে

261
এখনও বিচার পায়নি নির্ভয়া, প্রিয়াঙ্কার কি হবে/The News বাংলা
এখনও বিচার পায়নি নির্ভয়া, প্রিয়াঙ্কার কি হবে/The News বাংলা

এখনও বিচার পায়নি নির্ভয়া, প্রিয়াঙ্কার কি হবে। ২০১২-র নির্ভয়ার স্মৃতি এখনও দগদগে। কাঁচা সেই ক্ষতে এখনও মলম পড়েনি। এখনও মেয়ের সেই নৃশংস মৃত্যুর বিভীষিকা; কাটিয়ে উঠতে পারেনি নির্ভয়ার পরিবার। তার মা এখনও বিচার পায়নি; মেয়ের ওপর ঘটে যাওয়া সেই পাশবিক অত্যাচারের। তারই মাঝে হায়দরাবাদে নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা; দেশকে আরও একবার লজ্জায় ফেলে দিল।

২০১২ সালে দিল্লির মুনরিকা এলাকায়; সেখানেই এক চলন্ত বাসে ছয় দুষ্কৃতীর লালসার শিকার হয়ে যে প্যারামেডিক্যাল পাঠরতা ছাত্রী নির্ভয়াকে অকালে চলে যেতে হয়েছিল; তার দোষীরা আজও সাজা পায়নি। সেদিন গর্জে উঠেছিল দেশ ; প্রতিবাদ মিছিল বেরিয়েছিল পথে পথে। বিচার চলাকালীন রাম সিং নামে একজনের মৃত্যু হয় তিহার জেলে। এর মধ্যে একজনের বয়স ১৮-র কম হওয়ায়; নাবালক অপরাধী হিসাবে তাকে সংশোধনাগারে পাঠানো হয়েছিল।

প্রিয়াঙ্কা ধর্ষণ হত্যা মামলা, মহম্মদ পাশার সঙ্গে অপরাধী শিবা, নবীন ও কেশাভুলু

৩ বছর পর মুক্তিও পেয়ে যায় সে। বাকি চার অপরাধী বিনয়, মুকেশ, পবন ও অক্ষয়কে গত বছর ৫ মে সুপ্রিম কোর্ট ফাঁসির সাজা দেয়। যদিও নানান আইনি গাফিলতির কারণে; তারা আজও জীবিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদী পোস্ট করে সকলে ক্ষোভ উগরে দিয়েছে। কিন্তু সেখানেই শেষ। থামেনি ধর্ষণ। হাজার এক নির্ভয়া এভাবেই ক্ষুধার্থ কিছু রাক্ষসের গ্রাসের শিকার হয়েছে বারংবার। উদাহরণের কমতি নেই।

বুধবার তেলেঙ্গানার সাধনগরের সামশাবাদের কাছে; ধর্ষণ করে জ্বলন্ত জালিয়ে দেওয়া হয়; পশু চিকিৎসক প্রিয়ঙ্কা রেড্ডিকে। তার অগ্নিদ্বগ্ধ দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রিয়ঙ্কার বাড়ির তরফে অভিযোগ; পুলিশও সেদিন অভিযোগ নিতে খুব একটা সাহায্য করেনি তাদের। এক থানা থেকে আরেক থানায় ঘোরাতে থাকে। যাতে অনেকটা সময় দেরি হয়ে যায়।

এমনকি কোন থানার অধীনে ঘটনাটি ঘটেছে; তাও ঠিক করে বলতে পারেনি পুলিশ। এমনকি মেয়েকে খুঁজতে দু জন কনস্টেবলের সাহায্য চাওয়া হলেও সেই সাহায্যটুকুও পাননি তিনি; অভিযোগ প্রিয়ঙ্কার বাবার। পরে একাই মেয়েকে খুঁজতে বেরিয়ে পড়েন তিনি। এরপরেই মেয়ের ঝলসে যাওয়া দেহটি চাক্ষুস করেন; নির্যাতীতার বাবা। প্রতিদিনই খবরের ফ্রন্ট পেজ ভরাতে নির্ভয়া, আশিফা, প্রিয়াঙ্কাদের কাহিনী সামনে আসে। প্রতিবাদ হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়; এবারেও পথে নেমে মোমবাতি হাতে প্রতিবাদের ভাষা জানাবেন অনেকেই। এতদিন ধরে তো তাই করে এসেছি আমরা; তারপর সব চুপ।

নির্বাক প্রশাসনও। ফাঁসির দোরগোড়া অব্দি গিয়ে; আইনের ঢিলেমির কারণেই হাজার হাজার নির্ভয়ার অভিযুক্তরা; আজও ফাঁসি কাঠে ঝুলতে পারেনি। যাদের সত্যই জ্বলন্ত জালিয়ে দেওয়ার কথা; তারা এখনও বহাল তবিয়তে বেঁচে আছে। পরিবর্তে নিজের সর্বস্ব খুইয়ে ঝলসে যেতে হচ্ছে প্রিয়াঙ্কাদের। নেই কোনও উত্তর; দেশের প্রশাসনিক ব্যবস্থা ঝাড়া হাতপা।

যতটা সময় দোষীদের সাজা দিতে নেওয়া হয়; ততদিনে আরও পাঁচটা নির্ভয়া কাণ্ড ঘটে গিয়েছে দেশে। তবু বদলায়নি সিস্টেম; আদও বদলাবে কিনা; প্রিয়াঙ্কার ওপর ঘটে যাওয়া নৃশংস ঘটনার পরেও কি নিরুত্তর থাকবে প্রশাসন; হয়তো হ্যাঁ। বিচার পায়নি নির্ভয়া; প্রিয়াঙ্কার কি হবে সে কি বিচার পাবে; নাকি আবারও বাড়বে ধর্ষণ। প্রশ্ন থাকছেই।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন