গেরুয়া ধাগাও বাঁচাতে পারেনি কাসভকে

1321
গেরুয়া ধাগাও বাঁচাতে পারেনি কাসভকে/The News বাংলা

গেরুয়া ধাগাও বাঁচাতে পারেনি কাসভকে। বছর সতেরোর এক তরতাজা তরুন, নাম আজমল কাসভ। মুম্বই হামলার নায়ক। একমাত্র সেই পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। বাকি জঙ্গিদের মৃত্যু হয় মুম্বই পুলিশের এনকাউন্টারে। পুলিশের হাতে আসার পরই; কাসভের সম্পর্কে অনেক তথ্যই সামনে আসে। এত কম বয়সের এক তরুণের জেহাদ ভাবনা যে কতটা মারাত্মক; তা জেলে থাকাকালীন জানতে পেরেছিলেন মুম্বইয়ের তাবড় সব পুলিশ কর্তারা। অবাকও হয়েছিলেন। মানুষের জীবন নিয়ে জেহাদ লাভে অনুপ্রাণিত ছিল; কাসভ।

কাসভের সঙ্গে চার বছর ধরে; পুলিশ কর্তাদের যে জিজ্ঞাসাবাদ চলেছিল তার একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মুম্বই পুলিশের প্রাক্তন কমিশনার রাকেশ মারিয়া; তাঁর বই ‘লেট মি সে ইট নাও’-তে তুলে ধরেছেন; যার মধ্যে অন্যতম হল সতেরো বছরের এই তরুণের হাতের গেরুয়া ধাগা। ২৬/১১ মুম্বই হামলার সময় লস্কর ই তইবা; যখন কাসভ সহ দশ জঙ্গিকে ভারতে ঢুকিয়েছিল তখন তাদের হাতে বেঁধে দিয়েছিল। যাতে তারা গোটা ঘটনাকে হিন্দু সন্ত্রাসবাদী হামলার চিত্র দিতে পারে। এই জঙ্গিরা যখন ভারতে প্রবেশ করে; সেই সময় প্রত্যেকের ভুয়ো পরিচয় পত্র তৈরি করা হয়। পরিচয় পত্রে নাম তো ভুয়ো ছিলই; তারা হায়দরাবাদের অরুনোদয় কলেজের ছাত্র এই পরিচয়েই; ভারতে প্রবেশ করে তারা। কাসভের নাম দেওয়া হয় সমীর রায় চৌধুরী।

২০০৮, ২৬ নভেম্বর মুম্বইয়ে এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়ে; ১৬৪ জন নিরপরাধ মানুষের জীবন নিয়েছিল কাসব ও তার সঙ্গীরা। রাকেশ মারিয়া বইয়ে লিখেছেন; চার বছর ধরে কাসভের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। সতেরো বছরের একজন কিশোরকে; কিভাবে জেহাদ নিয়ে ভুল বোঝানো হয়; তা কাসভের সঙ্গে কথা বলেই জানতে পারেন তিনি। কাসভ ভাবত ভারতের মসজিদে মুসলিমদের ঢুকতে দেওয়া হয়না। তার ধারণা পাল্টাতে তাকে মুম্বইয়ের একটি মসজিদে নিয়ে গিয়ে; সত্যটা চাক্ষুস করানো হয়। যা দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিল; কাসভ। শুধু তাই নয়; এই চার বছরে ধর্ম নিয়ে কাসভের নানান ভাবনা রীতিমতো অবাক করে দিয়েছিল রাকেশ মারিয়াকে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন