চিনের দাদাগিরি থামাতে, এশিয়ায় সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা

4302
চিনের দাদাগিরি থামাতে, এশিয়ায় সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা
চিনের দাদাগিরি থামাতে, এশিয়ায় সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা

চিনের দাদাগিরি থামাতে, এশিয়ায় সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকাআমেরিকা ইউরোপে থাকা আমেরিকান আর্মি সরিয়ে এশিয়ায় মোতায়েন করা শুরু করে দিয়েছে। চিনের স্বৈরাচারী মনোভাব দমনের জন্য; বড় সিদ্ধান্ত নিল আমেরিকা। বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী দেশ আমেরিকা; চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মির মোকাবিলা করার জন্য; ইউরোপ থেকে নিজেদের সেনা সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে। সেই সেনা মোতায়েন করা হবে এশিয়ায়।

আরও পড়ুনঃ ভুটান মোটেও নদীর জল বন্ধ করে নি, ফেক নিউজে কড়া ব্যবস্থা নেবে ভারত সরকার

পূর্ব লাদাখে ভারত-চিন সংঘাতকে কেন্দ্র করে; ক্রমশ যুদ্ধ পরিস্থতি তৈরি হচ্ছে। এই সংঘাতের মধ্যেই; জাপান নিজেদের মিসাইলের মুখ; চিনের দিকে ঘুরিয়ে দিয়েছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীও যে-কোনও পরিস্থিতি; মোকাবিলায় প্রস্তুত। ভারতের সেনাপ্রধান নিজে গিয়ে; লাদাখে পরিস্থতি পর্যবেক্ষণ করে এসেছেন। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় চিনের এই আগ্রাসনে; আমেরিকাও যে হাত-পা গুটিয়ে বসে নেই; তা পরিষ্কার করে দিয়েছেন, মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও। চিনের মোকাবিলায় এশিয়ায় আসছে মার্কিন সেনা।

চিনের দাদাগিরি থামাতে, এশিয়ায় সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা

চিন নিজেদের প্রতিবেশী দেশগুলোতে; লাগাতার চাপ সৃষ্টি করছে। একদিকে ভারতকে চাপে ফেলতে লাদাখে LAC এর পাশে; চিন প্রচুর পরিমাণে সেনা মোতায়েন করছে। আরেকদিকে সাউথ চায়না সমুদ্রে; নিজের আক্রমণাত্বক রণনীতি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে চিন। এছাড়াও নেপালের মতো ক্ষুদ্র দেশগুলোকে; ধীরে ধীরে গ্রাস করার পরিকল্পনা নিচ্ছে চিন। আর এই কারণেই চিন এখন; গোটা বিশ্ব; ও আমেরিকার কাছে বড় বিপদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর সেই কারণেই; এবার ইউরোপ থেকে সেন সরিয়ে এশিয়ায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুনঃ রাজীব গাঁধী ফাউন্ডেশনের নামে, চিনের কাছে টাকা খেয়েছে গান্ধী পরিবার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মুখে; ভারত-চিন সীমান্ত সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের কথা বললেও; আমেরিকা কিন্তু চিনের বিরুদ্ধে তলে তলে যুদ্ধ প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার ব্রাসেলস ফোরামের ভার্চুয়াল সম্মেলনে; মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও বলেন; “ভারত ও দক্ষিণ এশিয়ায় চিনের দাদাগিরির কারণেই; ইউরোপ থেকে মার্কিন সেনার সংখ্যা কমানো হচ্ছে। সেই সেনা পাঠানো হবে এশিয়ায়”।

আরও পড়ুনঃ বৈঠকের পরেও গালওয়ান থেকে সরে নি বিশ্বাসঘাতক চিন, ধরা পরে গেল উপগ্রহে

মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও বলেন; “কিছু জায়গায় আমেরিকার সেনা কমানো হবে; কারণ আমেরিকার সেনার মোতায়েন সেই জায়গায় হবে; যেখানে চিনের কমিউনিস্ট পার্টি নিজেদের আক্রমণাত্বক মনোভাব বাড়িয়েছে। আমরা আমদের সেনাকে ভারত, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ চিন সাগরের, সেই জায়গায় মোতায়েন করতে চলেছি; যেখানে চিনা সেনার বিপদ সবথেকে বেশি।

‘আগ্রাসী রাশিয়া’কে ঠেকাতেই; পূর্ব ইউরোপের দেশগুলিতে সেনা উপস্থিতি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আমেরিকা। ৬২ হাজারের উপর; মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে ইউরেপে। ইউক্রেন সংকট নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে দ্বন্দ্ব শুরু হওয়ার পর; নেটোয় এটাই যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশি সেনা উপস্থিতি। এবার আগ্রাসী চিনকে ঠেকাতে; সেই সেনা মোতায়েন হবে এশিয়ায়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন