মুর্শিদাবাদ থেকে শামিম আনসারি নামে, আরও এক আল কায়দা সন্দেহভাজন গ্রেফতার

1848
মুর্শিদাবাদ থেকে শামিম আনসারি নামে, আরও এক আল কায়দা সন্দেহভাজন গ্রেফতার
মুর্শিদাবাদ থেকে শামিম আনসারি নামে, আরও এক আল কায়দা সন্দেহভাজন গ্রেফতার

মুর্শিদাবাদ থেকে আল কায়দা জঙ্গি সন্দেহে; ফের গ্রেফতার এক যুবক। শামিম আনসারি নামে; আরও এক আল কায়দা সন্দেহভাজন গ্রেফতার। শুক্রবার রাতে জলঙ্গির নওদাপাড়া থেকে; তাকে আটক করে বিএসএফ। স্থানীয়দের দাবি, বেশ কিছুদিন কেরলে; রাজমিস্ত্রির কাজ করত সে। ডোমকল থেকে ধৃত আল কায়দা জঙ্গি আল মামুনের সঙ্গে; ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল তার। গত শনিবার আল-কায়দা জঙ্গি সন্দেহে; জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা, এনআইএ যে ৬ জনকে দিল্লিতে ধরে নিয়ে গিয়েছে; তাদেরই একজন আল মামুন।

আরও পড়ুনঃ কেন্দ্র বিজেপিতে প্রমোশন, সর্বভারতীয় সহ সভাপতি করা হল মুকুল রায়কে

এনআইএ’র একটি সূত্রে দাবি করা হয়; মুর্শিদাবাদে ধৃতদের একটি গ্রুপ ছিল হোয়াটসঅ্যাপে। সেই গ্রুপে কথোপকথনের পর; সমস্ত চ্যাট ডিলিট করা হত। ছজন ধরা পড়ার পর, ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সূত্র ধরে; বাকিদের খোঁজও শুরু করেছেন এনআইএ এর গোয়েন্দারা। তাঁদের সন্দেহের তালিকায়; মালদার দুই যুবকও রয়েছে। ছ’জনের ফোনকলও পরীক্ষা করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইডির ভুয়ো কাগজপত্র দেখিয়ে তোলাবাজি, দুই বাংলা চ্যানেলের দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে তদন্ত

কেন্দ্রের এই গোয়েন্দারা আগেই জানিয়েছেন; সন্দেহের তালিকায় আরও অনেক জন রয়েছে। শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয়, অন্যান্য রাজ্যেও ছড়িয়ে রয়েছে; এই জঙ্গি নেটওয়ার্ক। এনআইএ’র ইঙ্গিতেই; শামিম আনসারির গ্রেফতারি বলে মনে করা হচ্ছে।

ওদিকে ধৃতের পরিবারের তরফে; অকারণে নির্যাতনের অভিযোগ তোলা হয়েছে। ধৃতের স্ত্রী চাঁদতারা বিবির দাবি; শুক্রবার রাতে বাড়ি এসে, শামিমকে নিয়ে যান বিএসএফ জওয়ানরা। কেন তাঁকে ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে; তা জানানো হয়নি। মৃতের মায়ের দাবি, শামিমের নাম পর্যন্ত জিজ্ঞাসা করেননি জওয়ানরা। ঘরে ঢুকে তাকে নিয়ে; তাড়াতাড়ি বেরিয়ে যায়। এই নিয়ে রাজ্য পুলিশ এর সঙ্গে; বিএসএফ ও এনআইএ এর বিবাদ শুরু হবার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। রাজ্য কেন্দ্র এই ইস্যুতে; সংঘাতে জড়িয়ে না পরে; আশঙ্কা প্রশাসনিক মহলে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন