অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষীর গাড়িতে দুর্ঘটনা, মৃত্যু, পিছনে কি গভীর চক্রান্ত

98
অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষীর গাড়িতে দুর্ঘটনা, মৃত্যু, পিছনে কি গভীর চক্রান্ত
অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষীর গাড়িতে দুর্ঘটনা, মৃত্যু, পিছনে কি গভীর চক্রান্ত
Simple Custom Content Adder

অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষীর গাড়িতে দুর্ঘটনা; দুজনের মৃত্যু। পিছনে কি গভীর চক্রান্ত? উঠে গেছে প্রশ্ন। ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে; অনুব্রত মণ্ডলের প্রধান নিরাপত্তারক্ষী সাইগেল হোসেনের গাড়ি। ঘটনায় মৃত এক শিশু সহ দুই; নিহতের নাম মাধব কৈবর্ত। মারা গেছে সাইগেল হোসেনের বাচ্চা মেয়ে। জানা গেছে, গাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে; ১০ লক্ষ টাকা।

পুলিশ সূত্রে খবর, মঙ্গলবার মধ্যরাতে দুর্গাপুর থেকে বোলপুর ফেরার পথে; ইলামবাজার জঙ্গলে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ডাম্পারকে সজোরে ধাক্কা মারে গাড়িটি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়; একটি শিশু সহ দু’জনের। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় ইলামবাজার থানার পুলিশ। দুর্ঘটনায় একজন গাড়ি চালক আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে; তিনি বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অনুব্রত মণ্ডলের প্রধান নিরাপত্তারক্ষীর গাড়িতে দুর্ঘটনা ঘটায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে; বীরভূম জেলা জুড়ে।

গরু পাচার মামলায় আপাতত সিবিআই-অনুব্রত টানাপড়েন চলছে; ওই মামলায় সায়গলকেও সিবিআইয়ের জেরার মুখোমুখি হতে হয়েছে। ফের ডাকা হবে সাইগেল হোসেনকে। তার আগেই এই দুর্ঘটনা; অনেক প্রশ্ন তুলে দিয়েছে।

রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে, ইতিমধ্যেই দাবি করা হয়েছে; “মেরে ফেলা হবে অনুব্রত মণ্ডল-কে”। এরমধ্যেই এই দুর্ঘটনা; সেই দাবিকেই মান্যতা দিচ্ছে বলেই দাবি করেছেন বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। অনুব্রতের দেহরক্ষী সায়গল মঙ্গলবার রাতে দুর্গাপুর থেকে; গাড়িতে সপরিবার বাড়ি ফিরছিলেন। বীরভূমের ইলামবাজার থানা এলাকায়; এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় মারা যায়; সায়গলের ছ’বছরের কন্যা; মৃত্যু হয়েছে গাড়ির আরোহী মাধব কৈবর্তর। আহতও হয়েছে কয়েকজন।

দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটি থেকে; প্রায় ১০ লক্ষ টাকা পাওয়া গিয়েছে বলে অসমর্থিত সূত্রের খবর। পুলিশ বিষয়টি নিয়ে সরকারিভাবে এখনও কিছু জানায়নি। তবে এটি নিছকই দুর্ঘটনা? না এর পিছনে কোনও চক্রান্ত রয়েছে; তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ-প্রশাসন। তবে গাড়ির পিছনে থাকায়; বড়সড় দুর্ঘটনার হাত থেকে বেঁচে যান সায়গল। তাঁর প্রাণের আশঙ্কা নেই বলেই; প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে। যদিও তাঁর গাড়ির চালকের অবস্থা; বেশ আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনার খবর জানাজানি হতেই; ‘চক্রান্ত’-এর তত্ত্ব নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। গরুপাচার মামলায় তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রতকে তলব করলেও; সিবিআইয়ের দফতরে এখনও পর্যন্ত হাজিরা দেননি তিনি। কিছুদিন আগেই অনুব্রতর দেহরক্ষী সায়গলকে; সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তারপরেই এই দুর্ঘটনা কি কাকতালীয়; নাকি কোনও চক্রান্ত রয়েছে?

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন