৩৭০ ধারা রদের পর, এবার জম্মু-কাশ্মীরে বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দির তিরুপতির

2028
৩৭০ ধারা রদের পর, এবার জম্মু-কাশ্মীরে বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দির তিরুপতির
৩৭০ ধারা রদের পর, এবার জম্মু-কাশ্মীরে বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দির তিরুপতির

মোদী সরকারের ৩৭০ ধারা রদের পর; এবার জম্মু-কাশ্মীরে, বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দির তৈরি তিরুমালা তিরুপতি ট্রাস্ট। বড় খবর, জম্মু-কাশ্মীরে বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দির গড়ছে; তিরুপতি ট্রাস্ট। এই জন্য ইতিমধ্যেই তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানমকে; ৬২ একর জমি দিয়েছে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন। সেই মন্দিরের ভূমি পুজোও; হয়ে গেছে। বৈষ্ণোদেবীর মন্দির এবং অমরনাথজির মন্দিরের জন্য; জম্মু-কাশ্মীরের বিশ্ব জোড়া খ্যাতি। এবার তিরুমালা তিরুপতির তৈরি বেঙ্কটেশ্বরা স্বামীর মন্দিরও; পর্যটক ও তীর্থযাত্রীদের কাছে বাড়তি আকর্ষণ হবে।

প্রস্তাবিত তিরুপতি মন্দির চত্বরে, আনুষাঙ্গিক পরিকাঠামো; যেমন তীর্থযাত্রী-পর্যটকদের পরিষেবা কমপ্লেক্স; বেদ পাঠশালা; আধ্যাত্মিক ধ্যানকেন্দ্র; আবাসিক কোয়ার্টার; পার্কিং স্পেস বানানো হবে। ভবিষ্যতে চিকিৎসা শিক্ষা সংক্রান্ত পরিষেবা; গড়ে তোলার চিন্তা ভাবনাও রয়েছে তিরুপতি ট্রাস্টের।

আরও পড়ুনঃ বাংলার বাইরে পা দিলেই, পুরোপুরি বিজেপির নীতি নেয় তৃণমূল

দেশের সবচেয়ে ধনী ট্রাস্টগুলির মধ্যে অন্যতম; তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানম। দানধ্যান এবং সেবামূলক কাজের জন্য; আন্তর্জাতিক স্তরেও তাঁদের খ্যাতি আছে। জম্মু-কাশ্মীরে টিটিডি-র মন্দির গড়ে তোলার ফলে; রাজ্যের পর্যটন শিল্পের বিকাশ হবে বলেই মনে করছে স্থানীয় প্রশাসন।

আরও পড়ুনঃ ১১ বছর বয়সেই কম্পিউটার পোগ্রামিং বই লিখে বিশ্বকে চমকে দিল বাঙালি বালক

জম্মু কাশ্মীরে বৈষ্ণদেবী মন্দির; সবচেয়ে বিখ্যাত। এখানে প্রতি বছর প্রায়; ৫০ লক্ষ মানুষ আসেন। এই মন্দিরের আয়; বার্ষিক ৫০০ কোটি টাকারও বেশি। মা বৈষ্ণোদেবী বা ‘মাতারানি’র এই মন্দিরে; দর্শনার্থী সংখ্যা তিরুপতি মন্দিরের পরেই। পায়ে হেঁটে যাওয়া ছাড়া; ঘোড়া, ডুলি বা পিঠ্ঠুর ব্যবস্থা আছে। তবে এখন হেলিকপ্টার করেও যাওয়া যায়। এবার জম্মু কাশ্মীরে বৈষ্ণদেবী মন্দিরের পাশাপাশি; গড়ে উঠছে তিরুপতি মন্দির। যা জম্মু কাশ্মীরে পর্যটনের ক্ষেত্রকে; আরও বাড়াবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন