প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে পড়তে হবে ডায়াপার, চিন্তায় মহাকাশচারীরা

255
চিন্তায় মহাকাশচারীরা/The News বাংলা
চিন্তায় মহাকাশচারীরা/The News বাংলা

ডাক দিয়েছে প্রকৃতি; কিন্তু যেতে পারছেন না। খারাপ হয়ে পরে আছে বাথরুম! তাই ডায়াপারই ভরসা সারা দিনের জন্য। কিন্তু এতো বাথরুম থাকতে; হঠাৎ ডায়াপার কেন? পৃথিবীতে নয়; ভাসমান ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে; আছে মাত্রদুটি শৌচালয়। তার মধ্যে কাজ করছে না একটিও। হুলুস্থুলুস পরে গেছে মহাকাশে। সারাদিন পরে থাকতে হচ্ছে ডায়াপার। মাথায় হাত মহাকাশচারীদের। সম্প্রতি নাসার তরফ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে খবর।

মহাকাশে থাকা দুটি শৌচালয়ের মধ্যে; আমেরিকার অংশে থাকা শৌচালয়টি ইতিমধ্যে খারাপ হয়ে গেছে। অন্যদিকে, রাশিয়ার অংশের শৌচালয়টি এতই নোংরা; তা ব্যবহার করা যাচ্ছে না বলে ইন্টারন‌্যাশনাল স্পেস স্টেশনের কমান্ডার লুসা পরমিটানো জানিয়েছেন। পৃথিবী হোক বা মহাকাশ; সবাই এই একটা জিনিস একটু পরিষ্কার আশা করে।

আরও পড়ুনঃ প্রিয়াঙ্কা ধর্ষণ হত্যা মামলা, মহম্মদ পাশার সঙ্গে অপরাধী শিবা, নবীন ও কেশাভুলু

আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে থাকটাই একটা বড় চ্যালেঞ্জ। তার ওপর আসতে আসতে খারাপ হচ্ছে নিত্যদিনের প্রয়োজনের জিনিস। একইসঙ্গে শৌচাগার দুটি অকেজো হয়ে রীতিমতো নাস্তানাবুদ হয়ে পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছেন মহাকাশ্চারীরা।

অন্যদিকে রাশিয়ান স্পেস এজেন্সি রসকসমস থেকে জানানো হয়; ইন্টারন‌্যাশনাল স্পেস স্টেশনে রাশিয়ার তৈরি দু’টি শৌচাগারের কোনওটিই আর কাজ করছে না। অর্থাৎ ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনের ব্যবহারযোগ্য আর একটিও শৌচালয় নেই। ফলে মহাকাশচারীদের মাথায় হাত।

আরও পড়ুনঃ প্রিয়াঙ্কা রেড্ডির পর উদ্ধার আরও এক মহিলার দগ্ধ দেহ

এখন উপায় মাত্র দুটি। এক মহাকাশচারীদের ডায়াপার পরেই কাজকর্ম করতে হবে। বা সুয়োজ স্পেসশিপ ব্যবহার করতে হবে; যা ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে রয়েছে। কিন্তু কতদিন? জানা গেছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তা ঠিক করার চেষ্টা করছে বলে জানা যায়।

রসকসমসের তরফে জানানো হয়েছে; বর্জ্য পদার্থকে শুষে নিয়ে জায়গা পরিষ্কার করে দেয় সাকশন ফ্যান। দুটি এই ধরনের ফ্যান থাকে। কিন্তু বর্তমানে তার কোনওটাই কাজ করছে না। বলে জানিয়ে তারা। কত তাড়াতাড়ি ওই বিগড়ে যাওয়া ফ্যান ঠিক হয়, তা দেখছেন বিজ্ঞানীরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন