‘তিন মাস বিয়ে বন্ধ’ তুঘলকি নির্দেশে বিতর্কে যোগী সরকার

469
তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা
তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

The News বাংলা, প্রয়াগরাজ: এবার তিন মাস বিয়েই বন্ধ করে দিল উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকার। আগামী বছর জানুয়ারি থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হবে সব বিয়ের অনুষ্ঠান। এমনই নির্দেশ জারি করল যোগী আদিত্যনাথের সরকার।

বছর ঘুরলেই কুম্ভমেলা শুরু হবে এলাহাবাদে (এখন প্রয়াগরাজ)। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ তাই সেখানে বিয়ের অনুষ্ঠান বাতিলের নির্দেশ জারি করেছেন। আর তারই জেরে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

আরও পড়ুনঃ ধর্মান্তরিত না হলে খুনের হুমকি, মিশনারী স্কুলের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে অভিযোগ

আগামী ১৫ জানুয়ারি থেকে অর্ধকুম্ভের আসর শুরু হচ্ছে প্রয়াগরাজে। চলবে ৪ মার্চ পর্যন্ত। উত্তরপ্রদেশ সরকারের নির্দেশ, মেলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সেখানে কোনও বিয়ের অনুষ্ঠান করা চলবে না। এই নির্দেশের জেরে বিপাকে পড়েছে কয়েকলক্ষ পরিবার।

সমস্যায় স্থানীয় গেস্টহাউস, হোটেল কর্তৃপক্ষ এবং কেটারিং সংস্থাগুলি। ইতিমধ্যেই হোটেল এবং গেস্টহাউসগুলির কাছে বিয়ের বুকিং বাতিল করে অগ্রিম ফেরতের নির্দেশও পাঠিয়ে দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

আরও পড়ুনঃ কৃষক র‍্যালিকে ঢাল করেই মোদী বিরোধী মঞ্চ গঠনের মরিয়া চেষ্টা বিরোধীদের

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, কুম্ভস্নানের দিন, আগে ও পরে প্রয়াগরাজে কোনো বিয়ে হবে না। জেলা প্রশাসনকে এই নির্দেশের কপিও ইতিমধ্যেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এমনকী বিভিন্ন হোটেল, বিয়েবাড়িগুলিতেও কড়া নির্দেশ গিয়েছে। কোনো বুকিং থাকলে তা বাতিল করতে বলা হয়েছে।

সরকারের এই ঘোষণায় বিয়ে ঠিক করা পরিবারগুলি সমস্যায় পড়েছে। সমস্যায় পড়েছেন হোটেল বা বিয়েবাড়ির মালিকরাও। কেউ কেউ আইনি পথ নিতে চাইছেন।

তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা
তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা

কুম্ভস্নানের সময় সবমিলিয়ে মোট ছটি গুরুত্বপূর্ণ দিন থাকে। জানুয়ারিতে মকর সংক্রান্তি ও পৌষ পূর্ণিমা স্নান, ফেব্রুয়ারিতে মৌনি অমাবস্যা, বসন্ত পঞ্চমী ও মাঘী পূর্ণিমা স্নান এবং মার্চে মহা শিবরাত্রিতে স্নান করে পূণ্য অর্জনের প্রার্থনা করা হয়। এই সময়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রয়াগে ভিড় করেন। তাঁদের থাকার জন্যই এই নির্দেশ বলে জানান হয়েছে।

প্রতি বছরই সেখানে পুণ্যস্নানে অংশ নিতে যান লক্ষ লক্ষ মানুষ। এ বছরও তার অন্যথা হবে না। সেই সময় বিয়েবাড়ি থাকলে যানজটও বাড়বে বই কমবে না। ভিড় সামলাতে না পারলে যে কোনও অঘটন ঘটে যেতে পারে। ভোটের বছর বলে তাই আগেভাগেই ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী হয়েছে যোগী সরকার।

আরও পড়ুনঃ রামমন্দির নয়, হিন্দু ক্ষোভ থামাতে অযোধ্যায় রামমূর্তির ঘোষণা যোগীর

নতুন বছরের গোড়ায় অনেকগুলি বিয়ের তারিখ ছিল। তার জন্য আগেভাগে প্রয়াগরাজের হোটেল-গেস্টহাউস বুকও করে ফেলেছিল হবু বর-কনের পরিবার। সরকারি নির্দেশের জেরে সবাই বিপদে। এক গেস্ট হাউসের মালিক বলেছেন, ‘আমার পুরো সিজনের বুকিং হয়ে গিয়েছিল। আর্থিক ক্ষতি তো হবেই। তা ছাড়া, একটি পরিবার তো চুক্তি খেলাপের অভিযোগে আদালতে মামলা করারও হুমকি দিয়েছে। কিন্তু সরকারি নির্দেশের জেরে আমরা নিরুপায়’।

তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা
তিন মাস বিয়ে বন্ধ করে বিতর্কে যোগী/The News বাংলা

শুধু বিয়েই নয়, কুম্ভ-খাঁড়া নেমে এসেছে কানপুরের চর্মশিল্পের উপরেও! আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশের শিল্পশহরের ট্যানারিগুলি বন্ধের নির্দেশিকা জারি করেছে সরকার। ফলে, রুজি রোজগারের চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন বহু মানুষ।

এদিকে, প্রয়াগরাজে তিন মাসে কয়েক লাখ বিয়ে পাকা হয়ে গিয়েছে। ভাড়া করা হয়ে গিয়েছে বিয়েবাড়িও। নতুন বছরের শুরুতেই সাতপাকে বাঁধা পড়ার কথা ছিল অনেকের। কিন্তু যোগীর নির্দেশের ফলে বিয়েটা আপাতত সেরে নেওয়া যাচ্ছে না বলে খুব চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন প্রয়াগরাজের হবু বর-কনেরা। কারণ তাঁদের বিয়েতে বাধ সেধেছে যোগী সরকার।

আরও পড়ুনঃ আন্দামান নর্থ সেন্টিনেলে ‘জাড়োয়া’দের তীরের মুখে ভারতীয় কমান্ড্যান্ট

তাই, সিদ্ধান্ত একেবারেই মনঃপুত হয়নি প্রয়াগরাজের সাধারণ মানুষের। যাঁদের সামর্থ্য রয়েছে, তাঁরা প্রয়াগরাজের আশপাশের জেলাগুলিতে বিয়েবাড়ি সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা ভাবছেন। কিন্তু কষ্টের টাকা জমিয়ে যাঁরা বিয়ে বাড়ি ভাড়া নিয়েছিলেন, আগাম টাকা দিয়েছিলেন কেটারিং সার্ভিসকে, বিপাকে পড়েছেন তাঁরা।

এত কম সময়ের মধ্যে বিকল্প বন্দোবস্ত করা সম্ভব নয় তাঁদের পক্ষে। আবার বিয়ের মরসুমের উপর নির্ভর করেই যাঁদের সংসার চলে, আচমকা সরকারের এমন ঘোষণায় সমস্যায় পড়েছেন সেই সব ব্যবসায়ীরাও। আগেভাগে জানালে তবু কিছু একটা করা যেত। কিন্তু এখন বুকিংয়ের টাকা ফিরিয়ে দেওয়া ছাড়া উপায় নেই বলে আফশোস করেছেন তাঁরা। সবমিলিয়ে তুঘলকি ফরমানে ক্ষুব্ধ যোগীর রাজ্যের সাধারণ মানুষ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন