গরমের দুমাসেই উপচে পড়ল রাজ্যের কোষাগার, সৌজন্যে বাংলার ‘বিয়ারপ্রেমী’রা

35
গরমের দুমাসেই উপচে পড়ল রাজ্যের কোষাগার, সৌজন্যে বাংলার 'বিয়ারপ্রেমী'রা
গরমের দুমাসেই উপচে পড়ল রাজ্যের কোষাগার, সৌজন্যে বাংলার 'বিয়ারপ্রেমী'রা
Simple Custom Content Adder

গরমের দুমাসেই উপচে পড়ল রাজ্যের কোষাগার; সৌজন্যে বাংলার ‘বিয়ারপ্রেমী’রা। মদ বিক্রিতে আগেই, অনেক রেকর্ড গড়েছে রাজ্য। প্রত্যেকবার দুর্গা পুজোতেই মদ বিক্রির নতুন রেকর্ড গড়ে রাজ্য। তবে এবার চিলড বা ঠান্ডা কনকনে বিয়ার বিক্রিতেও; রেকর্ড গড়ল বাংলা। রাজ্য আবগারি দফতর সূত্রে খবর, গত দুমাসে অর্থাৎ এপ্রিল-মে মাসে; প্রায় ৪৫ লক্ষ কেস চিলড বিয়ার বিক্রি হয়েছে রাজ্যে; যার আর্থিক মূল্য কয়েক শো কোটি টাকা। বলাই বাহুল্য এর দরুন; রাজ্যের কোষাগারে ঢুকেছে কয়েক কোটি টাকা।

এবছর ছিল রেকর্ড গরম। দুমাস ও তার বেশি সময় ধরেই; তীব্র গরমে হাঁসফাঁস করেছে রাজ্যবাসী। আর ওই কথায় আছে না; “কারো পৌষ মাস তো কারো স’র্বনাশ”। এমন তীব্র গরম আবহাওয়ায় যত হাঁসফাঁস করেছে রাজ্যবাসি; তত ফুলেছে রাজ্যের কোষাগার। এইরকম আবহাওয়ায় বাংলার সুরাপ্রেমীদের; প্রথম পছন্দ ছিল ঠান্ডা বিয়ার। সেই চাহিদা মিটিয়েই; এবার রাজ্যের লক্ষ্মীলাভ ঘটেছে।

আরও পড়ুনঃ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীকে ‘জুতো মা’রার দা’ওয়াই’ দিয়ে বিতর্কে বিজেপি নেতা

মা-মাটি-মানুষের সরকারের কোষাগারে দুমাসেই এসেছে; প্রায় ৬৫০ কোটি টাকা। সাম্প্রতিক-কালে রাজ্যে বিয়ার বিক্রিতে; এমন রেকর্ড হয়নি বলেই দাবি আবগারি দফতরের কর্তাদের। এবার মে মাসের শুরু থেকেই; রাজ্যের তাপমাত্রা ছিল ঊর্ধ্বমুখী। ফলে বিয়ারের চাহিদা যে বাড়বে; তা বোঝা গিয়েছিল। কিন্তু সেই চাহিদা যে আকাশ ছোঁবে তা কে জানত! তাতেই বাজিমাত রাজ্য সরকারের।

রেকর্ড যে হবে তা বোঝা গিয়েছিল; এপ্রিল মাসেই। এপ্রিল-মাস থেকেই; রাজ্যে শুরু হয়েছিল বিয়ার সংকট। এমনকি বিয়ারের রেশনিং ব্যবস্থাও করতে হয়েছিল; অর্থাৎ একজন সর্বাধিক কতগুলো বিয়ার কিনতে পারবে। তখনই আবগারি আধিকারিকরা অনুমান করেছিলেন; এবার গরমে রাজ্যে রেকর্ড বিয়ার বিক্রি হবে। সেই অনুমানেই এবার সিলমোহর পড়ল। তীব্র গরমের মাস গুলিতে বিয়ার বিক্রি করে; রেকর্ড আয় করল রাজ্য।

আবগারি দফতর সূত্রে খবর, মাত্র গত দুমাসে; প্রায় ৪৫ লক্ষ কেস বিয়ার বিক্রি করেছে আবগারি দফতর। গড়ে হিসাব ধরলে যা থেকে রোজগার প্রায় ৬৫০ কোটি টাকা। এত পরিমান বিক্রি অন্তত সাম্প্রতিক সময়ে হয়নি; বলে দাবি করছেন আবগারি দফতরের আধিকারিকরা। আবগারি দফতরে সূত্রে খবর, বিয়ার সংকটের জেরে; রাজ্যে বিয়ার ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটগুলির উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন