পুজোর আগেই দেশ কাঁপাতে আসছে কাপ্পা ও ডেল্টা

2425
পুজোর আগেই দেশ কাঁপাতে আসছে কাপ্পা ও ডেল্টা
পুজোর আগেই দেশ কাঁপাতে আসছে কাপ্পা ও ডেল্টা

পুজোর আগেই দেশ কাঁপাতে আসছে; কাপ্পা ও ডেল্টা। ইতিমধ্যে দেশে ঢুকে পড়েছে; করোনার দুই নতুন রূপ, নতুন দুই স্ট্রেন ডেল্টা ও কাপ্পা। দেশব্যাপী নিম্নমুখী সংক্রমণের মধ্যেও; একাধিক রাজ্যে উদ্বেগ বাড়িয়ে চলেছে করোনার এই নতুন স্ট্রেন। ইতিমধ্যে উত্তরপ্রদেশে ডেল্টা প্লাসে; আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। ডেল্টায় আক্রান্ত একজন রোগী ইতিমধ্যেই মারাও গিয়েছেন; বলেই জানা যাচ্ছে। এর মধ্যেই, উত্তরপ্রদেশে করোনা ভাইরাসের কাপ্পা ভ্যারিয়েসনে; আক্রান্ত হয়েছেন অনেকেই। যোগী প্রশাসনের পাশাপাশি; এই দিকে কড়া নজর রাখছে; মোদী সরকার।

আরও পড়ুনঃ এসএসকেএম যৌ’ন হে’নস্থা কাণ্ডে এক ডাক্তারকে নীলরতন ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যালে বদলি

লখনউয়ের কিং জর্জ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি থাকা; ২ জন রোগীর নমুনার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। গত অক্টোবরে ভারতে করোনা ভাইরাসের; দুটি নতুন রূপের খোঁজ পাওয়া যায়। যেগুলির নাম যথাক্রমে; ‘বি.১.৬১৭.১’ এবং ‘বি.১.৬১৭.২’। পরে ওই দুই রূপের; নতুন নামকরণ করা হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) জানায়; বি.১.৬১৭.১ রূপকে ‘কাপ্পা’ এবং বি.১.৬১৭.২ রূপকে ‘ডেল্টা’ নামে ডাকা হবে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন; করোনার এই দুই রূপের চিকিৎসা সম্ভব।

আরও পড়ুনঃ মোদী সরকারের ১ লক্ষ কোটি টাকার উপহার, ধর্না গুটিয়ে বাড়ির পথে কৃষকরা

গত অক্টোবরে ভারতে করোনা ভাইরাসের; দুটি নতুন প্রজাতির খোঁজ পাওয়া যায়। প্রাথমিকভাবে যার নাম ছিল; বি.১.৬১৭.১ এবং বি.১.৬১৭.২। অনেকে এই দুটিকে; ‘ভারতীয় প্রজাতি’ বলাও শুরু করেছিল। কিন্তু তীব্র আপত্তি জানায়; ভারত সরকার। তারপরেই ভারতে পাওয়া, করোনার নাম বদলে দিল; বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। করোনা ভাইরাসের নয়া ভারতীয় প্রজাতির নাম; ‘ডেল্টা’ রাখা হয়েছে। যা গ্রিক বর্ণমালার চতুর্থ বর্ণ। আরেক প্রজাতির নাম; রাখা হয়েছে ‘কাপ্পা’। গ্রিক বর্ণমালার দশম বর্ণ। ব্রিটেনে যে প্রজাতির খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল; তার নাম পরে রাখা হয় ‘আলফা’।

আরও পড়ুনঃ ‘এক দেশ এক আইন’, অভিন্ন দেওয়ানি বিধির পথে দেশ

দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার যে অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছিল; তার নাম দেওয়া হয়েছিল ‘বিটা’। ব্রাজিলে যে প্রজাতি সংক্রমণ ছড়িয়েছে; তার নাম ‘গামা’ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। হু এর তরফে জানানো হয়েছে; “নতুন নামের সঙ্গে; বিজ্ঞানসম্মত নামের কোনো সম্পর্ক নেই। গবেষণায় ও বৈজ্ঞানিক তথ্য আদান-প্রদানে; সেই নামই ব্যবহৃত হবে”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন