কর্মীদের বাড়িতে হামলা, খুন, নাড্ডার জন্য অপেক্ষা বাংলা বিজেপির নেতাদের

930
কর্মীদের বাড়িতে হামলা, খুন, নাড্ডার জন্য অপেক্ষা বাংলা বিজেপির নেতাদের
কর্মীদের বাড়িতে হামলা, খুন, নাড্ডার জন্য অপেক্ষা বাংলা বিজেপির নেতাদের

মানব গুহ, কলকাতাঃ কর্মীদের পাশে থাকতে; তাদের ভরসা দিতে ব্যর্থ; বাংলা বিজেপির নেতারা। ইতিমধ্যেই ভোটের ফল পরবর্তী হিংসায়; বিজেপির ৮ কর্মী মারা গেছেন বলেই অভিযোগ বিজেপির। হাজার হাজার কর্মী ঘরছাড়া; অসংখ্য বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। এরই প্রতিবাদে, মমতার শপথ গ্রহণের দিনেই; দেশজুড়ে ধর্নায় বসবে বিজেপি। বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই; রাজ্যে বিভিন্ন জায়গা থেকে এসেছে অ’শান্তির খবর। ভোট পরবর্তী হিং’সায়; অন্তত ১২ জনের প্রা’ণহানি হয়েছে। আহতও হয়েছেন আরও অনেকে। তবে বাংলার বিজেপি নেতারা; তাঁদের কর্মী সমর্থকদের পাশে দাঁড়াতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ; মনে করছে বিজেপি কর্মী থেকে রাজনৈতিক মহল।

নির্বাচনে জয়ের পর, তৃণমূল রাজ্য জুড়ে স’ন্ত্রা’স চালাচ্ছে; বলেই অভিযোগ বিজেপির। অভিযোগ, অন্তত ৮জন বিজেপি কর্মী খু’ন হয়েছেন; আহ’ত ও ঘরছাড়া বহু কর্মী। বিভিন্ন জেলায় দলীয় কার্যালয়; কর্মীর বাড়ি ভা’ঙচুর; পার্টি অফিস জ্বা’লিয়ে দেওয়ার ঘটনা হয়েছে। মার খাচ্ছেন বিজেপি কর্মীরা; তবে এখনও তাঁদের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায়নি বিজেপি নেতাদের। সংবাদমাধ্যমে মুখ দেখিয়েই; কাজ সেরেছেন সবাই। বাংলার নেতাদের নির্দেশ দিতে; দিল্লি থেকে আসছেন জেপি নাড্ডা।

আরও পড়ুনঃ মমতার শপথের দিনেই দেশজুড়ে ধর্নায় বসবে বিজেপি

দলীয় কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে; বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা; মঙ্গলবার ২ দিনের সফরে বাংলায় আসছেন। আ’ক্রান্তদের পরিবারের সঙ্গে; সাক্ষাৎ করবেন তিনি। রাজনৈতিক হিং’সার প্রতিবাদে; আগামী ৫ মে বুধবার দেশজুড়ে ধরনায় বসবে বিজেপি। পশ্চিমবঙ্গে হিং’সার ঘটনাকে জাতীয় স্তরে প্রচারে আনতে; কোমর বাঁধছে বিজেপি। কিন্তু বাংলার বিজেপি নেতারা কি করছেন? তাঁরা কেন জেলায় জেলায় যাচ্ছেন না? প্রশ্ন তুলেছেন; বিজেপির কর্মী সমর্থক নেতারাই।

আরও পড়ুনঃ কেন্দ্রীয় বাহিনী যেতেই, বাংলায় রাজনৈতিক স’ন্ত্রাস শুরু, বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা

সোমবার রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন; “দলের কর্মীরা খু’ন হচ্ছেন; আ’ক্রান্ত হচ্ছেন; পার্টি অফিস ভা’ঙচুর হচ্ছে। আমরা দেশ জুড়ে; আন্দোলনে নামব”। তবে এখনও ময়দানে; কাউকেই দেখা যায় নি। আদি বিজেপি থেকে নব্য বিজেপি; পাত্তা নেই কারোর। শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমস্যা না হয় বোঝা গেল; সব হারিয়েছেন তাঁরা। কিন্তু আদি বিজেপির দিলীপ ঘোষ, সায়ন্তন বসু, শমীক ভট্টাচার্যরা; জেলায় জেলায় কেন যাচ্ছেন না? উঠেছে প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন