কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ ভেবে গায়ে হাত ‘দুষ্টু লুঙ্গি বাহিনীর’

1770
কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ ভেবে গায়ে হাত 'দুষ্টু লুঙ্গি বাহিনীর'
কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ ভেবে গায়ে হাত 'দুষ্টু লুঙ্গি বাহিনীর'

কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ ভেবে গায়ে হাত তুলেছিল; ‘দুষ্টু লুঙ্গি বাহিনী’। এমনটাই দাবি বঙ্গ বিজেপির নেতাদের। এক সিআইএসএফ কম্যান্ডন্ট এর আহত হন। শীতলকুচির সংখ্যালঘু মুসলিম তৃণমূল কর্মীরা; তাঁর উপর হামলা চালায়। শনিবার ভোটের চতুর্থ দফায় সকাল থেকেই; দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় কোচবিহারে। শীতলকুচির পর উত্তেজনা ছড়ায়; মাথাভাঙা বিধানসভা কেন্দ্রের জোড়পাটকিতে। সেখানে পরিস্থিতি এতই জটিল হয়ে ওঠে; গুলি চালাতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। সেই সময় কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে; মৃত্যু হয় ৪ মুসলিম যুবকের। ঘটনায় শোরগোল পরে গেছে; রাজ্য ছাড়িয়ে গোটা দেশে।

আরও পড়ুনঃ “কেন্দ্রীয় বাহিনীকে আক্রমণ করে, অস্ত্র কাড়তে এসেছিল তৃণমূল”, মমতার পুলিশের রিপোর্ট

তৃণমূলের দাবি; মৃতরা তাঁদের দলের সমর্থক ছিলেন। অন্যদিকে বাহিনীর দাবি; হঠাৎই ৩০০-৪০০ লোক ঘিরে ধরে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে। দু-পক্ষের ঝামেলা থামাতে; এবং নিজেদের আত্মরক্ষার্থেই গুলি চালাতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। কোচবিহারের পুলিশ সুপার ও রাজ্য পুলিশ কর্তা দেবাশীষ ধরও; নির্বাচন কমিশনে জানিয়েছেন এই রিপোর্ট। কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রধানের উপর আক্রমণ হবার পরেই; বাকি বাহিনীর উপর হামলা হয়।

আরও পড়ুনঃ বাহিনীর উপর আক্রমণ, আত্মরক্ষার্থেই গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী

“কেন্দ্রীয় বাহিনীকে আক্রমণ করে; অস্ত্র কাড়তে এসেছিল তৃণমূল সমর্থকরা”; জানিয়ে দিল মমতার পুলিশ। শীতলকুচি গুলি চলার ঘটনায়; মারা যান ৪ মুসলিম যুবক। বাহিনীকে ঘেরাও করে; তাদের অস্ত্র কাড়ার চেষ্টা হয়। পোলিং অফিসারদের ও হোমগার্ডকে; মারধর করে তৃণমূল। বাহিনীর জওয়ানদের; অস্ত্র কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা হয়। শুন্যে গুলি চালিয়েও কাজ না হওয়ায়; আত্মরক্ষায় গুলি চালায় বাহিনী। আধা সেনার কো-অর্ডিনেশন অফিসার অশ্বিনী কুমার সিং; এই রিপোর্ট দেন নির্বাচন কমিশনে। সেই একই রিপোর্ট দেন; কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার দেবাশীষ ধরও।

আরও পড়ুনঃ ‘বেশি খেলতে গেলে আবার শীতলকুচির খেলা হবে’, নতুন স্লোগান বিজেপির

আর এরপরেই, ‘বেশি খেলতে যেও না, শীতলকুচির খেলা খেলে দেব’; নতুন স্লোগান বিজেপির। বিজেপি নেতাদের মতে; কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ ভেবে; গায়ে হাত ‘দুষ্টু লুঙ্গি বাহিনীর’। ঠাণ্ডা করে দিয়েছে; কেন্দ্রীয় বাহিনী। মত বিজেপির। চরম সমালোচনা করেছে তৃণমূল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন