নির্বাচন কমিশনের হাত থেকে নন্দীগ্রামের সব ইভিএম নিল জেলা প্রশাসন

1232
নির্বাচন কমিশনের হাত থেকে নন্দীগ্রামের সব ইভিএম নিল জেলা প্রশাসন
নির্বাচন কমিশনের হাত থেকে নন্দীগ্রামের সব ইভিএম নিল জেলা প্রশাসন

নির্বাচন কমিশনের হাত থেকে; নন্দীগ্রামের সব ইভিএম নিল জেলা প্রশাসন। ভোটগণনা হয়েছে রবিবার ২ মে। দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর; গণনার ৫ দিনের মাথায় গণনাকেন্দ্র থেকে; প্রশাসনিক কার্যালয়ে পৌঁছল নন্দীগ্রামের সব ইভিএম। বৃহস্পতিবার কড়া পুলিশি পাহারায় হলদিয়া গণনা কেন্দ্রে থাকা; নন্দীগ্রামের সব ভিভিপাট মেশিন, ইভিএম এবং নির্বাচনী জিনিসপত্র সরানো হল। বৃহস্পতিবার নতুন জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাঝির তৎপরতায়; নির্বাচনী গুরুত্বপূর্ণ নথি-গুলি স্কুল থেকে বের করে; হলদিয়ার ওয়ার হাউসে রাখা হয়। সেখানেও কড়া নিরাপত্তার বন্দোবস্ত রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ “হিন্দুরা একটু বুঝুক”, এবার শুভেন্দুর অডিও ফাঁস সেই প্রলয়ের সঙ্গে

বৃহস্পতিবার পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায়; নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের সমস্ত ইভিএম; হলদিয়া গভর্নমেন্ট স্পনসর্ড হাইস্কুল থেকে সরিয়ে; অতিরিক্ত জেলাশাসকের অফিসের পাশে ওয়াররুমে নিয়ে যাওয়া হয়। রাজ্য প্রশাসনের তরফে পুরো প্রক্রিয়াটির; ভিডিওগ্রাফি করা হয়। ২ মে রাতে নন্দীগ্রাম আসনে; বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকে জয়ী ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তারপর থেকেই ওই কেন্দ্রে; গণনায় কারচুপির অভিযোগে সরব হয়; মমতার তৃণমূল কংগ্রেস।

আরও পড়ুনঃ ‘ভাইজানের সঙ্গে ভোটের জোট ঐতিহাসিক ভুল’, বি’স্ফোরক অশোক ভট্টাচার্য

নন্দীগ্রামে পুনর্গণনার দাবিতে; ২ মে রাত থেকেই হলদিয়ার মঞ্জুশ্রী মোড়ে; অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের আপত্তিতে গণনাকেন্দ্র হলদিয়া গভর্নমেন্ট স্পনসর্ড হাইস্কুল থেকে; ইভিএম সরানো সম্ভব হচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালে, পূর্ব মেদিনীপুরের নব নিযুক্ত জেলাশাসক; পূর্ণেন্দু মাজির আশ্বাসে জট কাটে।

আরও পড়ুনঃ “তৃণমূল থেকে বেনোজল এনে, চোখের সামনে বিজেপির কবর খোঁড়া হল”

জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজি বলেন; “এই ইভিএমগুলো সর্বোচ্চ সুরক্ষা দিয়ে; আলাদা জায়গায় রাখা হচ্ছে। ইভিএম, ভিভিপ্যাট সবই রাখা হয়েছে। নন্দীগ্রামের ইভিএম প্রশাসনিক কার্যালয়ে সংরক্ষণের সময়; তৃণমূল কংগ্রেসের কয়েকজন প্রতিনিধি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, ইভিএম বোঝাই একটি ট্রাঙ্ক; খোলা অবস্থায় ছিল। একটি ইভিএমের বাক্সে লাগানো ট্যাগে; শুধুমাত্র বিজেপি এজেন্টের সই থাকায়; তা নিয়েও সরব হয় তৃণমূল। তবে সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন