এবার নির্বাচন কমিশনের কোপে দিদির প্রিয় কেষ্ট, রাতের মধ্যেই জবাব

1109
এবার নির্বাচন কমিশনের কোপে দিদির প্রিয় কেষ্ট, রাতের মধ্যেই জবাব
এবার নির্বাচন কমিশনের কোপে দিদির প্রিয় কেষ্ট, রাতের মধ্যেই জবাব

এবার নির্বাচন কমিশনের কোপে; দিদির প্রিয় কেষ্ট। তৃণমূল কংগ্রেসের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুূব্রত মণ্ডলকে; মঙ্গলবার শো কজ করল নির্বাচন কমিশন। ভোট প্রচারে, আপত্তিকর মন্তব্যের জন্যই; অনুব্রতকে কারণ দর্শানোর নোটিস দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বীরভূম জেলা প্রশাসনের মাধ্যমেই; এই নোটিস পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার রাতের মধ্যেই; এই শো কজের জবাব দিতে হবে অনুব্রত মণ্ডলকে। উত্তর পছন্দ না হলে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাহুল সিনহার মত; অনুব্রত-কেও নিষেধাজ্ঞায় পরতে হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ যোগীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে ‘সঠিক সিদ্ধান্ত’, মমতার বেলায় কমিশন ‘নিরপেক্ষ নয়’

অনুূব্রত মণ্ডলের মুখে বিতর্কিত মন্তব্য; নতুন কিছু নয়। বিধানসভাই হোক বা লোকসভা ভোট; প্রত্যেকবারই নির্বাচনের আগে নতুন নতুন শব্দবন্ধ শোনা যায়; এই তৃণমূল নেতার মুখে। যা ভাইরাল হয়ে যায়; গোটা রাজ্যেই। এবারও ভোট প্রচারে একাধিক সভায়; অনুব্রতর মুখে ‘ঠেঙিয়ে পগার পার’ করার মতো; বিতর্কিত মন্তব্য শোনা গিয়েছে। মূলত এই বক্তব্যের জন্যই; অনুব্রতকে শো কজ করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ধর্নায় বসে ছবি আঁকলেন মমতা, কিন্তু কি আঁকলেন চিন্তায় বাংলা

এ ছাড়াও ভোট প্রচারে ‘ভয়ঙ্কর খেলা হবে’; ‘খেলা হলে নির্বাচন কমিশনার রেফারি থাকবে’-র মতো; বিভিন্ন মন্তব্য করছেন অনুব্রত। নির্বাচন কমিশনের অ্যাপের মাধ্যমেই; অনুব্রতর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। তারপরেই তাঁকে শো-কজ করে কমিশন। ঘটনাচক্রে মঙ্গলবারই অনুব্রত মন্তব্য করেছিলেন; শীতলকুচি কাণ্ড নিয়ে দিলীপ ঘোষের মতো বিজেপি নেতারা যে মন্তব্য করেছেন; তা তিনি করলে তাঁকে নজরবন্দি করা হত। কাকতালীয় ভাবে, এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই; অনুব্রতকে শো কজ করল কমিশন।

আরও পড়ুনঃ রাহুল, দিলীপ, শুভেন্দুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা, নির্বাচন কমিশন বাংলায় পক্ষপাত করছে না

সোমবারই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারের উপরে; ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন। এরপর এ দিন বিজেপি-র প্রার্থী রাহুল সিনহার প্রচারে; ৪৮ ঘণ্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করে কমিশন। পাশাপাশি শো-কজ করা হয়েছে; বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। নিজের বক্তব্য নিয়ে, সতর্ক হতে বলা হয়েছে; শুভেন্দু অধিকারীকেও। বাংলায় ভোট নিয়ে, কমিশন যে সদা সতর্ক; তা বলাই যায়। অনুব্রত মণ্ডল ও দিলীপ ঘোষ নিয়ে; নির্বাচন কমিশন কি সিদ্ধান্ত নেয়; সেটাই এখন দেখার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন