যোগীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে ‘সঠিক সিদ্ধান্ত’, মমতার বেলায় কমিশন ‘নিরপেক্ষ নয়’

620
যোগীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে 'সঠিক সিদ্ধান্ত', মমতার বেলায় কমিশন 'নিরপেক্ষ নয়'
যোগীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে 'সঠিক সিদ্ধান্ত', মমতার বেলায় কমিশন 'নিরপেক্ষ নয়'

লোকসভা নির্বাচনে ২০১৯ এ, ৭২ ঘণ্টার জন্য; যোগী আদিত্যনাথের প্রচারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন। শুধু তাই নয়, ওই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকাকালীন; কোনও জনসভা ও পথসভা করতে পারবেন না যোগী; সাক্ষাৎকার দিতে পারবেন না সংবাদমাধ্যমে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও কোনও মন্তব্য; করতে পারবেন না। এমন সিদ্ধান্ত; জারি করেছিল কমিশন। সেই সময় এই তৃণমূলের তরফ থেকেই, বলা হয়েছিল; “সাহসী নিরপেক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন”। সেই তৃণমূল, এবার সেই একই নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেই এখন বলছে; কমিশন নিরপেক্ষ নয়। যোগীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে ‘সঠিক সিদ্ধান্ত’; আর মমতার বেলায় কমিশন ‘নিরপেক্ষ নয়’। তৃণমূলের দ্বিচারিতা কেন?

২০১৯ লোকসভা ভোটের সময়; ভোটের প্রচারে বেরিয়ে ঘৃ’ণা-ভাষণের জন্য; উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে; নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে প্রচারে; সাময়িক নিষেধাজ্ঞা বসায় নির্বাচন কমিশন। ধর্ম ও জাতি নিয়ে বি’দ্বেষপূর্ণ মন্তব্যের জন্য; নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল কমিশন। ১৬ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে; ১৯ এপ্রিল সকাল ৬ টা, ৭২ ঘণ্টার জন্য; যোগী আদিত্যনাথের প্রচারের উপর; নিষেধাজ্ঞা জারি করে কমিশন। ওই একই সময় থেকে, বহুজন সমাজ পার্টি নেত্রী মায়াবতীর উপর; নিষেধাজ্ঞা বসে ৪৮ ঘণ্টার।

আরও পড়ুনঃ প্ররোচনামূলক প্রচারের জন্য, মমতাকে ‘ব্যান’ করল নির্বাচন কমিশন

অন্যদিকে, সোমবার রাত ৮ টা থেকে মঙ্গলবার রাত ৮ টা পর্যন্ত; ভোট প্রচার করতে পারবেন না তৃণমূল নেত্রী। প্ররোচনামূলক প্রচারের জন্য; মমতার উপর ২৪ ঘণ্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করল; নির্বাচন কমিশন। প্ররোচনামূলক মন্তব্য করে, আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন মমতা; তাই তৃণমূল নেত্রীর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা; জারি করল কমিশন। নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ নয়; দাবি তৃণমূলের।

সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে, মঙ্গলবার গান্ধী মূর্তির নিচে; ধর্নায় বসেছেন মমতা ও তৃণমূল নেতা-নেত্রীরা। যোগীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে যে কমিশন; তৃণমূলের চোখে সাহসী ও নিরপেক্ষ ছিল; মমতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে সেই কমিশন এখন নিরপেক্ষ নয়। তৃণমূলের এই দ্বিচারিতা ধরে ফেলেছে বাংলার মানুষ; দাবি বিজেপি নেতাদের। পাল্টা দিয়েছে তৃণমূল। বাংলায় বিজেপির হয়ে কাজ করছে কমিশন; দাবি তৃণমূলের। তবে বাংলাতেও বিজেপি নেতা রাহুল সিনহাকে; ৪৮ ঘণ্টার জন্য ‘ব্যান’ করেছে কমিশন। আর রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে; নোটিস পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন