অদ্ভুত এক কারণে, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের কাছে যেতে পারলেন না বাবুল

1069
অদ্ভুত এক কারণে, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের কাছে যেতে পারলেন না বাবুল
অদ্ভুত এক কারণে, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের কাছে যেতে পারলেন না বাবুল

মানব গুহ, কলকাতাঃ খুব ইচ্ছে ছিল; কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারলেন না। ইচ্ছে ছিল, তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত; নিজের কর্মী সমর্থকদের পাশে দাঁড়াবেন। কিন্তু ইচ্ছে থাকলেই কি সব হয়? অদ্ভুত এক কারণে, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের কাছে; যেতে পারলেন না বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু সেই অদ্ভুত কারণটি কি? সেটাও জানালেন; বাবুল সুপ্রিয় নিজেই। আসলে তিনি গাড়ি নিয়ে বেরোলেই; সেই গাড়ির কাচ ভেঙে দেবে তৃণমূল; আর সেই ভয়েই আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের কাছে যেতে পারলেন না বাবুল। টুইট করে স্বীকার করে নিলেন; আসল কারণটা।

২১ এর ভোটে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে; মমতার তৃণমূল কংগ্রেস। আর তারপরেই শুরু হয়েছে; বাংলা জুড়ে রাজনৈতিক স’ন্ত্রাস। শাসক দল তৃণমূলের আক্রমণে ইতিমধ্যেই মারা গেছেন; ৮ বিজেপি কর্মী; অভিযোগ বিজেপির। ঘরছাড়া হাজার হাজার; বিজেপি কর্মী সমর্থক। “হাতে এত সাংসদ বিধায়ক; মানুষের পাশে না দাঁড়ালে ইস্তফা দেওয়া উচিত”; নিজের দলের নেতাদের একহাত নিয়েছেন; বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। আর তারপরেও এল বাবুল সুপ্রিয়র; সেই অদ্ভুত টুইট।

আরও পড়ুনঃ “হাতে এত সাংসদ বিধায়ক, মানুষের পাশে না দাঁড়ালে ইস্তফা দেওয়া উচিত”, নেতাদের একহাত নিলেন অর্জুন

বাবুল সুপ্রিয়র সেই অদ্ভুত টুইট

কি লিখলেন বাবুল? যা লিখলেন, তাতে মোদ্দা কথা এটাই; তিনি বিজেপি কর্মী সমর্থকদের এই বিপদে; পাশে গিয়ে দাঁড়াতে পারছেন না। কারণ গাড়িতে গেলেই; রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা তৃণমূলের গুণ্ডারা তাঁর গাড়ি আক্রমণ করে ভেঙে দেবে। পুলিশ কিছুই করছে না; আর তাই তিনি এখন কোথাও বেরোতে পারবেন না। তবে চেষ্টা করছেন তিনি; বিজেপি কর্মীদের পাশে থাকতে।

আরও পড়ুনঃ কর্মীদের বাড়িতে হামলা, খুন, নাড্ডার জন্য অপেক্ষা বাংলা বিজেপির নেতাদের

বাবুলের টুইট দেখে; ক্ষেপে গিয়েছেন বিজেপির কর্মী-সমর্থকরাই। নেতাদের জন্যে লড়তে গিয়ে, যেখানে বিপদে কর্মী সমর্থকরা; সেখানে গাড়ি ভেঙে দেবার অজুহাত দেখিয়ে সাংসদ বাইরে বেরচ্ছেন না; এটা অতন্ত লজ্জার লেগেছে অনেকেরই। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন; “এই সাহস নিয়ে; রাজনীতি করতে এলেন কেন”?

বিজেপির আর এক সাংসদ অর্জুন সিং এদিন বলেন; “বিজেপির ১৮ জন সাংসদ; ৭৬ জন বিধায়ক; আমরা জনপ্রতিনিধিরা যদি মানুষের পাশে দাঁড়াতেই না পারি; তাহলে আমাদের ইস্তফা দিয়ে দেওয়া উচিত”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন