ইভিএমের প্রথম বোতামেই শুভেন্দুর নাম, নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে অ্যাডভান্টেজ ‘ঘরের ছেলে’

863
ইভিএমের প্রথম বোতামেই শুভেন্দুর নাম, নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে অ্যাডভান্টেজ 'ঘরের ছেলে'
ইভিএমের প্রথম বোতামেই শুভেন্দুর নাম, নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে অ্যাডভান্টেজ 'ঘরের ছেলে'

মানব গুহ, কলকাতাঃ EXCLUSIVE: ইভিএমের প্রথম বোতামেই শুভেন্দুর নাম; নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে অ্যাডভান্টেজ ‘ঘরের ছেলে’। ভোট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইভিএমের প্রথম বোতামেই যদি বড় দলের চিহ্ন বা হেভিওয়েট প্রার্থীর নাম থাকে; তাহলে তিনি কিছুটা হলেও সুবিধা পান। নন্দীগ্রামে কি সেই সুবিধাটাই পেতে চলেছেন; বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী? এটাই এখন বড় প্রশ্ন। নন্দীগ্রামে মুখোমুখি; শুভেন্দু অধিকারী বনাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু বাংলা নয়; গোটা দেশের নজর রয়েছে নন্দীগ্রাম আসনের দিকে। আর সেই আসনেই এবার একে অপরের মুখোমুখি; কাঁথির শুভেন্দু অধিকারী বনাম কালীঘাটের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নন্দীগ্রামের সেই লড়াইয়ে অ্যাডভান্টেজ কি শুভেন্দুর?

ইঙ্গিতটা দিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী নিজেই। শুক্রবার নন্দীগ্রামের খোদামবাড়ি এলাকায় শুভেন্দু বলেন; প্রতিবারের মত এবারেও ইভিএমে প্রথম নাম থাকবে অধিকারী শুভেন্দুরই। ভারতের নির্বাচন কমিশনের নিয়মানুযায়ী; ইভিএমে প্রথম নাম থাকবে জাতীয় দলগুলির। তারপর থাকবে স্থানীয় দলগুলির। তারপর থাকবে নির্দল ও শেষে থাকবে নোটা। আর জাতীয় দলের প্রার্থীদের নাম; ইংরাজি আলফাবেটিক্যাল অর্ডার অনুসারেই হবে। আর তাই অধিকারী টাইটেল হওয়ায়; নন্দীগ্রামে ইভিএমের প্রথম নামটা শুভেন্দুর।

আরও পড়ুনঃ কাঁপছে বাংলার পুলিশ প্রশাসন, কয়লা চুরি কাণ্ডে ‘খেলা শুরু’ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের

ইভিএমের প্রথমেই নাম থাকায়; কতটা সুবিধা পেতে পারেন শুভেন্দু অধিকারী? শুধু ভারতের নয়, বিশ্বের ভোট বিশেষজ্ঞরা বলছেন; প্রথমে নাম থাকলে কিছুটা সুবিধা পাওয়া যায়। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ক্ষেত্রে; প্রথমেই নাম থাকলে অনেকটাই সুবিধা পাওয়া যায়। ভারতে বা বাংলায় ইভিএমে প্রথমে নাম থাকা নিয়ে; অনেক বিতর্ক আছে। তবে ২০০০ সালে, আমেরিকা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে; স্বল্প ব্যবধানে আল গোরের বিরুদ্ধে জয় পান জর্জ ডব্লু বুশ। সেই থেকেই, ব্যালট পেপার ডিজাইনের প্রতি; মিডিয়ার আগ্রহ বেড়েছিল।

আরও পড়ুনঃ “মানুষ ভয় পাচ্ছে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে, সঙ্গে থাকুক রাজ্য পুলিশ”, নির্বাচন কমিশনে দাবি তৃণমূলের

নন্দীগ্রামের ক্ষেত্রেও এই আগ্রহটা; ভোটের পর বাড়বে? হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর; মাত্র কয়েক ভোটের ব্যবধানে এই ফলাফল হলে; এই প্রশ্ন অবশ্যই উঠবে। তবে বাংলার রাজনৈতিক মহলের অনেকেই বলছেন; শুভেন্দু অধিকারীর নাম নন্দীগ্রামে ইভিএমের প্রথমেই থাকায়; দুই হেভিওয়েট এর লড়াইয়ে; প্রথমেই অ্যাডভান্টেজ শুভেন্দুরই।

তবে তৃণমূলের তরফ থেকে এই ধারণা; একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পরিষ্কার বলা হয়েছে; “নন্দীগ্রামে হাসতে হাসতে জিতবে মমতা”। বিজেপির তরফেও বলা হয়েছে; “ওখানে মমতা এমনিতেই হারবেন; শুভেন্দু জিতবে”। ২ রা মে ভোটের ফল বেরনোর পর; ইভিএমে প্রথমেই শুভেন্দুর নাম থাকাটা আলোচনায় আসে কিনা; সেটাই এখন দেখার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন