ভোটের ফলের পর হিংসা, তিন তৃণমূল কর্মী খুন

482
ভোটের ফলের পর হিংসা, তিন তৃণমূল কর্মী খুন
ভোটের ফলের পর হিংসা, তিন তৃণমূল কর্মী খুন

শুধু বিজেপি কর্মীরা নয়; ভোটের ফল পরবর্তী হিংসায় এখনও পর্যন্ত তিন তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগের তীর বিজেপির দিকেই। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। বর্ধমানের জামালপুরের নবগ্রামে বিজয় মিছিল করছিলেন; তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। অভিযোগ, সেই সময় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা; হামলা চালায়। ঘটনায় ২জন মারা যান। পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামে তৃণমূলের এক পঞ্চায়েত সদস্যকে; কুপিয়ে খুনের অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। এক্ষেত্রেও অভিযোগ অস্বীকার বিজেপির।

আরও পড়ুনঃ ‘দলবদলু গদ্দার’দের ঘরে ডাকাই কি কাল হলো, তদন্তে আরএসএস

তৃণমূলের অভিযোগ, ৫৫ বছরের ওই পঞ্চায়েত সদস্য শ্রীনিবাস ঘোষকে; সোমবার রাত ১০টা নাগাদ বাড়ি থেকে টেনে বের করে; কুপিয়ে খুন করে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। ধারাল অস্ত্রের কোপে তাঁর একটি পা বাদ যায়। এই সময় তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্যকে বাঁচাতে গিয়ে; গুরুতর আহত হন আরও ২ তৃণমূল কর্মী।

আরও পড়ুনঃ কেন্দ্রীয় বাহিনী যেতেই, বাংলায় রাজনৈতিক স’ন্ত্রাস শুরু, বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা

তাঁদের কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে; ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে, রাতেই ঘটনাস্থলে যায়; কেতুগ্রাম থানার পুলিশ। পুলিশ এই ঘটনায়; এখনও পর্যন্ত ৫ জনকে আটক করেছে। সূত্রের খবর, যাদের আটক করা হয়েছে; তারা এলাকার বিজেপি কর্মী। যদিও বিজেপি এই হামলা ও খুনের অভিযোগ; সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে। “ফাঁসানো হচ্ছে”; দাবি বিজেপির। “বিজেপি কর্মীরা ইচ্ছে করেই হামলা করছে; ঝামেলা বাড়াবার জন্য”; দাবি তৃণমূলের।

আরও পড়ুনঃ মমতার শপথের দিনেই দেশজুড়ে ধর্নায় বসবে বিজেপি

অন্যদিকে, সোমবার তৃণমূলের বিজয় মিছিলের পর; দলের কর্মীরা জামালপুরের নবগ্রামের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময়; তাদের উপর হামলা হয় বলে অভিযোগ। এই সংঘর্ষকে কেন্দ্র করেই; উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। জানা গেছে, এই সংঘর্ষে; মৃত্যু হয় তিনজনের। সূত্রের খবর, এই তিনজনের মধ্যে; একজন বিজেপি কর্মী এবং দুজন তৃণমূল সমর্থক। গোটা রাজ্যে মোট ১২ জন মানুষের খুন হওয়ার খবর এসেছে; বিধানসভা ভোটের রেজাল্ট বেরোনোর পর।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন