ভোট দিলেই ব্যাঙ্কে ১০০০ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি, তৃণমূল নেতাদের ধরে পুলিশে দিল গ্রামবাসীরা

1374
ভোট দিলেই ব্যাঙ্কে হাজার টাকার প্রতিশ্রুতি, তৃণমূল নেতাদের ধরে পুলিশে দিল গ্রামবাসীরা
ভোট দিলেই ব্যাঙ্কে হাজার টাকার প্রতিশ্রুতি, তৃণমূল নেতাদের ধরে পুলিশে দিল গ্রামবাসীরা

ভোট দিলে ব্যাঙ্কে ১০০০ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি! তৃণমূল নেতাদের ধরে; পুলিশে খবর দিল গ্রামবাসীরা। তৃণমূলে ভোট দিলেই, সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে মিলবে; ১ হাজার টাকা। এই রকমই লিফলেট বিলি করার অভিযোগ উঠল; শাসক দল তৃণমূলের কিছু নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। ঘটনা, নদিয়ার হাঁসখালির সর্দার পাড়ায়। অভিযোগের পর চাঞ্চল্য ছড়ায়; গোটা এলাকায়। জানা গিয়েছে যে, তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে; তৃণমূল-কে ভোট দিলেই, ১ হাজার টাকা করে; ব্যাঙ্কে পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেয়। এরপর গ্রামবাসীরা তাঁদের চালাকি ধরে ফেলে; পুলিশে খবর দেয়। তৃণমূলের তরফ থেকে; এই ঘটনা সম্পূর্ণ অস্বীকার করা হয়েছে।

তৃণমূলকে ভোট দিলেই; সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ঢুকবে ১০০০ টাকা। নদিয়ার হাঁসখালির সর্দারপাড়ায়; তৃণমূলের যুব নেতারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে; এই ধরণের লিফলেট বিলি করে; এমনই আশ্বাস দিয়েছেন বলে অভিযোগ। আর ভোট আবহে; এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার রাতে তৃণমূলের যুব নেতারা; দলীয় প্রার্থীর হয়ে প্রচারে বের হন। তাঁদের হাতে ছিল লিফলেট। বাড়ি বাড়ি ঘুরে তাঁরা সেই লিফলেট; বিলি করেন। বলা হয়, তৃণমূলকে ভোট দিলেই; ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১০০০ টাকা করে ঢুকে যাবে। এমনটাই দাবি গ্রামবাসীদের।

আরও পড়ুনঃ মুখ্যমন্ত্রীর সিকিউরিটি-তে হাত, মমতার নিরাপত্তা আধিকারিককে সরিয়ে দিল কমিশন

এই খবর চাউর হতেই; গ্রামে উত্তেজনা ছড়ায়। ওই তৃণমূল নেতাদের; গ্রামেই আটকে রাখে গ্রামবাসীরা। খবর পৌঁছায়; স্থানীয় বিজেপি কর্মীদের কাছে। এরপরই বিজেপি কর্মীরা; সর্দারপাড়ায় গিয়ে তৃণমূলের যুব নেতাদের; ঘেরাও করে রাখেন বলে অভিযোগ। এরপরে, ঘটনাস্থলে পৌঁছয়; পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী। শেষ পর্যন্ত, কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশের সামনেই; মুচলেকা দেন ওই তৃণমূলের যুব নেতারা।

আরও পড়ুনঃ “আমাকে খু’নের ষ’ড়যন্ত্র করা হতে পারে”, ভোটপ্রচারে দাবী মমতার

অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাদের বক্তব্য; “গ্রামবাসীদের অভিযোগ মিথ্যা। আমরা এখানে টাকা বিলি করতে আসি নি। আমরা ব্যাঙ্কে টাকা দেবার প্রতিশ্রুতিও; দিচ্ছি করছি না। প্রচারে এসেছিলাম। কাউকে টাকা দিইনি”। যদিও গ্রামবাসীদের অভিযোগ; সম্পূর্ণ আলাদা। এই ঘটনায় রাজনৈতিক মহলে; যথেষ্টই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে; জেলা প্রশাসন। বিজেপির তরফে বলা হয়েছে; “নিশ্চিত হার জেনেই; এসব করছে তৃণমূল”। অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন