বাম কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট জোট, আসন রফা চূড়ান্ত, কার ভাগে কটা আসন

3930
বাম কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট জোট, আসন রফা চূড়ান্ত
বাম কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট জোট, আসন রফা চূড়ান্ত

বাম কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট জোট; আসন রফা চূড়ান্ত। দীর্ঘ টালবাহানার পর; বাম কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের জোটের জট কাটল। গত কয়েকদিন ধরে দফায় দফায় বৈঠকের পর; সম্পূর্ণ হয়ে গেল জোট প্রক্রিয়া। অন্তত আসন সংখ্যার নিরিখে প্রায় ঐকমত্যে পৌঁছল; জোট শিবিরের তিন শরিক। তবে কে কোন আসনে লড়বে; সেটা নিয়ে সংশয় রয়েছে। জোট শিবির সূত্রের খবর; ১৬৫, ৯২, ৩৭; এই সূত্র অনুযায়ী জোটের তিন শরিকের রফা হয়েছে। অর্থাৎ সবচেয়ে বড় শরিক বামফ্রন্ট; লড়বে ১৬৫টি আসনে। নিজেদের দাবি মতো কংগ্রেস পাচ্ছে; ৯২টি আসনই। আব্বাস সিদ্দিকির দল আইএসএফ; লড়াই করবে ৩৭টি আসনে। তবে দুএকটি জেলায় এখনও; কথা চলছে জোটের।

বামেদের ১৬৫ আসনের মধ্যে; বাম শরিকদের মধ্যে বৃহত্তম দল সিপিএম একাই লড়বে ১৩০টি আসনে। দ্বিতীয় বৃহত্তম বাম দল ফরওয়ার্ড ব্লক লড়বে; ১৫টি আসনে। আরএসপির ভাগে পড়েছে ১১টি আসনে। সিপিআই প্রার্থী দেবে ৯টি আসনে। আসন সংখ্যা নিয়ে রফা হলেও, কে কোন আসনে লড়াই করবে; এটা নিয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে বাম এবং আইএসএফের দ্বন্দ্ব এখনও অব্যাহত।

আরও পড়ুনঃ প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হলেই বি’দ্রোহের আ’শঙ্কা, তৃণমূল ভবনে ডাক নেতাদের

মালদা, মুর্শিদাবাদে জোট শরিকদের আসন না ছাড়ার ব্যাপারে; গোঁ ধরে বসে আছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। উত্তরবঙ্গেও আইএসএফকে; বেশি আসন না ছাড়ার ব্যাপারে অনড় অধীর। কিন্তু আইএসএফ চাইছে তাঁদের ভাগে থাকা; ৩৭টি আসনের মধ্যে যে কোনও তিনটির পরিবর্তে; মালদায় অন্তত একটি এবং উত্তরবঙ্গের অন্য দুই জেলায় একটি করে আসন তাদের ছাড়া হোক।

বাম শরিক ফরওয়ার্ড ব্লকের সঙ্গে; আবার কংগ্রেসের বিবাদ পুরুলিয়া নিয়ে। পুরুলিয়া জেলা কংগ্রেসের সভাপতি নেপাল মাহাতোর জেলায়; অন্তত ৪টি আসনে প্রার্থী দিতে চান অধীর। তাতে আপত্তি নেই বামেদের। কিন্তু কোন আসনে কারা প্রার্থী দেবে; সেটা নিয়েই চলছে দ্বন্দ্ব। বাম শরিক ফরওয়ার্ড ব্লক; বাঘমুণ্ডি আসনটিতে প্রার্থী দিতে চায়। অথচ, ওই কেন্দ্রে; নেপাল মাহাতো নিজেই কংগ্রেস বিধায়ক। ওই আসনটি নিয়ে এখনও দুই শিবিরের; দড়ি টানাটানি চলছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন