সীমান্তে কাঁটাতার পাহাড়া দেওয়া জওয়ানদের রাখী পরালেন বাংলার বোনেরা

115
সীমান্তে কাঁটাতার পাহাড়া দেওয়া জওয়ানদের রাখী পরালেন বাংলার বোনেরা/The News বাংলা
সীমান্তে কাঁটাতার পাহাড়া দেওয়া জওয়ানদের রাখী পরালেন বাংলার বোনেরা/The News বাংলা

পরিবার পরিজন ও বাড়িঘর থেকে অনেক দূরে; বিএসএফ-এর জওয়ানরা আসেন দেশবাসীকে সব রকম সুরক্ষা দিয়ে; নিজের দায়িত্ব পালন করতে। সব রকম উৎসবে; তাই পরিবারের সঙ্গে দেখা করার সুযোগও পান না তারা। কিন্তু এই বছরের রাখী বন্ধন উৎসব; বাকি বছরগুলোর মতো একেবারেই নয়। ঠিক আগের দিন; বুধবার আম নাগরিকরা তাদের হাতে রাখী পড়িয়ে একটা স্নেহের বন্ধন প্রতিষ্ঠা করল।

এই রাখী উৎসবে খুব খুশি বিএসএফ কর্মীরা। তারা বলেছেন; “আমরা আমাদের বাড়ি থেকে অনেক দূরে থাকি। তাই যাওয়া হয় না পরিবারের কাছে। আজকে মনে হচ্ছে আমাদের বাড়ির বোনেরাই এখানে এসে উপস্থিত হয়েছে। খুব আনন্দ হচ্ছে”। তারা পরিবারের সঙ্গে রাখী উৎসবের কথাও ভাগ করে নেয় সবার সঙ্গে।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত বদলে দিতে চাওয়া নোবেল এবার কি পুলিশের জালে

প্রসঙ্গত; ‘রাখী বন্ধন উৎসব’ দেশের বিভিন্ন স্থানে পালিত হয়। ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দে বঙ্গভঙ্গের প্রতিবাদে; কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হিন্দু ও মুসলমান সম্পদায়ের মধ্যে ঐক্য বজায় রাখতে রাখী উৎসব শুরু করেন। মূলত তারপর থেকেই জাতি-ধর্ম ভেদাভেদ ভুলে আজও অনন্য ভাবে পালিত হয় এই উৎসব।

এই ধারাবাহিকতাকে বজায় রেখে; বুধবার হাওড়া স্টেশনের সৈনিক বিশ্রামাগারের রক্ষক ফাউন্ডেশনের সদস্যরা; দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা বি.এস.এফ ব্যাটালিয়ানদের সঙ্গে ভাগ করে নিল রাখীর আনন্দ। বি.এস.এফ জওয়ানরা ফিরে গেল তাদের নিজ নিজ স্মৃতিতে।

আরও পড়ুনঃ মুম্বাই সমুদ্রতটে হাই অ্যালার্ট, আকাশে চক্কর দিচ্ছে সেনা হেলিকপ্টার

সংস্থার কর্মীরা জানাচ্ছেন এই বছরই প্রথম তারা এটা করলেন। এই উৎসবের আনন্দ তারা সেনাদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে পেরে তারা যেমন আনন্দিত তেমনই গর্বিত। তারা জানায় বিএসএফ সেনা বাহিনীরা যদি তাদের আবার ডাকেন তারা নিশ্চই আসবেন প্রতি বছর।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন