“এটা কে, খায় না মাথায় দেয়”? মমতার বিরুদ্ধে বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ ফিরহাদের

2227
"এটা কে? খায় না মাথায় দেয়"?,বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ ফিরহাদের

ভবানীপুর উপনির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে; বিজেপি প্রার্থী হিসাবে নাম ঘোষণা হয়েছে প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের। হাইভোল্টেজ ভোটে ‘বাংলার মেয়ে’ মমতার মোকাবিলায়; লড়াকু মহিলা আইনজীবীকেই টিকিট দিল বিজেপি। প্রার্থী হিসাবে নাম ঘোষণার পরই, বিজেপি নেত্রীকে কটাক্ষ করে; তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম বলেন; “এটা কে? খায় না মাথায় দেয়? তাঁর সমাজে কী অবদান রয়েছে? উনি কি কোনদিন কাউন্সিলার নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন? কোনদিন কি পঞ্চায়েত ভোটে দাঁড়িয়েছেন? মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে? একজনকে ভোটে দাঁড় করিয়ে দিলাম; আর অল ইন্ডিয়া পার্টি হইহই করলাম; তাতে যে ভোট হয় না তা তো দেখেছেন”।

২০১৪ সালে বিজেপিতে যোগ দেন; আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। শুরুতে বাবুল সুপ্রিয়র আইনি পরামর্শদাতা হিসাবে; কাজ করতেন প্রিয়াঙ্কা। ২০১৫ সালে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন; কলকাতা পুরসভার ভোটে। ২০২১ সালে ফের প্রার্থী হন; বিধানসভা ভোটে। এন্টালিতে দাঁড়ান তিনি। যদিও তৃণমূলের স্বর্ণকমল সাহার কাছে; পরাজিত হন তিনি।

আরও পড়ুনঃ শাস্তিমূলক বদলির প্রতিবাদে বিষ খেলেন শিক্ষিকারা, গারদে পুরতে পুলিশ খুঁজছে আন্দোলনের নেতাকে

বিজেপি যুব মোর্চার ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রিয়াঙ্কা; কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী। বাংলায় ভোট পরবর্তী অশান্তি মামলায়; রাজ্যের বিরোধী পক্ষের আইনজীবী তিনি। ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ তুলে; বিজেপির হয়ে কলকাতা হাইকোর্টে একের পর এক মামলায়; সওয়াল করেছেন প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল।

আরও পড়ুনঃ ‘দুয়ারে সরকার’ লাইন থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মার পুলিশের, বিজেপি কর্মীর মৃত্যু থানায়

প্রার্থী হিসাবে তাঁর নাম, ঘোষণা হবার পরেই প্রিয়াঙ্কা জানান; “মাথায় রাখতে হবে; এটা বিধায়ক নির্বাচনের লড়াই নয়। কারণ বিধায়ক হিসাবে ওনাকে ইতিমধ্যেই; মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছেন। উনি নন্দীগ্রামে; হেরে গিয়েছেন। যদি উনি ভেবে থাকেন; মুখ্যমন্ত্রী পদটা ধরে রাখার জন্য এই লড়াই দরকার; তা হলে আমি মানুষকে বলব এ লড়াই গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই। যে কারণে আমি এতদিন ধরে লড়ছি; আমি চাইব মানুষও এবার নিজেদের জবাব; নিজেদের মতো করেই দিন”।

এদিন ভবানীপুর-বাসীর কাছে প্রিয়াঙ্কার আবেদন; “নন্দীগ্রাম যা করে দেখিয়েছে; এবার ভবানীপুরকেও তা করে দেখাতে হবে। যদি পশ্চিমবঙ্গকে বাঁচাতে হয়; তা হলে এটাই একমাত্র উপায়”। নাম ঘোষণার পরেই, একের পর এক তৃণমূল নেতা জানিয়েছেন; তাঁরা কেউ নামই শোনেননি মমতার বিরুদ্ধে বিজেপি প্রার্থীর।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন