নীতীশ কুমারের নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটই ফের বিহারের ক্ষমতায়, ইঙ্গিত প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষায়

3049
নিতিশ কুমারের নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটই ফের বিহারের ক্ষমতায়, ইঙ্গিত প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষায়
নিতিশ কুমারের নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটই ফের বিহারের ক্ষমতায়, ইঙ্গিত প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষায়

নীতীশ কুমারের নেতৃত্বাধীন, এনডিএ জোটই; ফের বিহারের ক্ষমতায়। এমনটাই ইঙ্গিত দিয়েছে; বিভিন্ন প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষা। প্রাক নির্বাচনী এক সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে; নীতীশ কুমারের নেতৃত্বে, এনডিএ জোটই; সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ফের বিহারের ক্ষমতায় আসছে। ইন্ডিয়া টুডে-লোকনীতি যৌথ ভাবে; এই প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষা চালায়। এই সমীক্ষা অনুযায়ী, বিহারে ১৩৩-১৪৩টি আসন জিততে পারে; বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। যা ২৪৩ আসন-বিশিষ্ট বিহার বিধানসভার; ‘ম্যাজিক ফিগার’-এর (১২২) থেকে তেমন বেশি নয়। গত ১০ থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত হওয়া; এই সমীক্ষার তথ্য অনুযায়ী, এনডিএ ৩৮ শতাংশ ভোট টানবে।

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, ইতিমধ্যেই নীতীশ কুমারকেই; বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তুলে ধরেছে। অমিত শাহ জানান, “জেডি(ইউ)-এর থেকে বিজেপি যদি বেশি আসনও পায়; নীতীশ কুমারই ফের বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হবেন”। সমীক্ষা রিপোর্ট জানাচ্ছে, কেন্দ্রীয় সরকারের কাজে সন্তুষ্ট; বিহারের ৬১ শতাংশ ভোটার। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে, নীতীশ কুমারের পারফরম্যান্স সন্তোষজনক; হিসেবে উল্লেখ করেন ৫২ শতাংশ ভোটার।

আরও পড়ুনঃ ছত্রধর মাহাতো ও বিমল গুরুং, প্রশান্ত কিশোরের দুটো ভুল সিদ্ধান্তে ডুবতে পারেন মমতা

আরজেডির নেতৃত্বাধীন বিরোধী মহাজোট; পেতে পারে ৮৮ থেকে ৯৮টি আসন। রাহুল গান্ধী ও তেজস্বী যাদবদের ভোট শেয়ার; ২৯ থেকে ৩২ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে। বিরোধী মহাজোটে আরজেডি, কংগ্রেস ছাড়াও রয়েছে; সিপিআই ও সিপিআই (এমএল)। ১৯৯০ সালের পর এই প্রথম; বিহারের ভোট ময়দানে নেই রাষ্ট্রীয় জনতা দলের সুপ্রিমো লালু প্রসাদ যাদব। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে, দোষী সাব্যস্ত হওয়ায়; সাত বছরের কারাভোগ করছেন লালু।

এনডিএ জোট ভেঙে বেরিয়ে যাওয়া; চিরাগ পাসোয়ানের লোক জনশক্তি পার্টি (এলজেপি) একা লড়ে; বড়জোর দু’টি থেকে ছ’টি আসন পেতে পারে। তা সত্ত্বেও ৫ থেকে ৬ শতাংশ ভোট কেটে; বিহার নির্বাচনে নীতীশ কুমারকে যথেষ্ট বেগ দিতে পারে এলজেপি। সমীক্ষায় স্পষ্ট, নীতীশ কুমারের জনপ্রিয়তা; আগের তুলনায় কিন্তু কমেছে। ২০১৫-য় জেডি(ইউ) প্রধানের; জনপ্রিয়তা ছিল ৪০ শতাংশ। এ বার তা নেমে এসেছে ৩১ শতাংশে। তারপরেও জনপ্রিয়তায় নীতীশই সর্বাগ্রে। আরজেডি নেতা, লালুপুত্র তেজস্বী যাদবের জনপ্রিয়তা; ২৭ শতাংশ। বিরোধী মহাজোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী।

আরও পড়ুনঃ বিমল গুরুংকে স্বাগত জানাল মমতার তৃণমূল, অমিতাভ মালিকের খু’নি কি শা’স্তি পাবে না

একই সঙ্গে বিহারের রাজনীতিতে, এখনও যে লালুর পরিবার কতটা প্রাসঙ্গিক; তার ইঙ্গিত মিলেছে সমীক্ষায়। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৫ সালের তুলনায় এবার; লালুর পরিবারের জনপ্রিয়তা, ন’শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ শতাংশ। সমীক্ষার অনুযায়ী, ৩১ শতাংশ মানুষ নীতীশ কুমারকে; আরও একবার সুযোগ দিতে চান। তবে ২৬ শতাংশ মানুষ; একেবারেই উলটো সুরে কথা বলেছেন। ৩৪ শতাংশ মানুষ আবার জানিয়েছেন; বিহারে নয়া নেতার প্রয়োজন আছে। এমতবস্থায় নীতীশ কুমারের ভরসা; নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা।

বিহারের সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটার, মোদী সরকারের কাজে খুশি হওয়ায়; ভোটে এর সুফল ঘরে তুলবে এনডিএ। ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগেই, এ বার বিহারের জন্য; একগুচ্ছ প্রকল্প উদ্বোধন করেন মোদী। বিহারের মোট ২৪৩ আসনে; তিন দফায় ভোট হবে। প্রথম দফায় ৭১ আসনে; ভোট ২৮ অক্টোবর। ৩ নভেম্বর দ্বিতীয় দফায় ভোট রয়েছে; ৯৪ আসনে। তৃতীয় দফার ভোট রয়েছে, ৭ নভেম্বর; ৭৮টি আসনে। ভোটের ফল বেরোবে ১০ নভেম্বর।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন