খুন অপহরণ ধর্ষণ তোলাবাজি, বিহারে প্রার্থী তালিকায় মাফিয়া ডন আর তাদের বউদের দাপাদাপি

1994
খুন অপহরণ ধর্ষণ তোলাবাজি, বিহারে প্রার্থী তালিকায় মাফিয়া ডন আর তাদের বউদের দাপাদাপি
খুন অপহরণ ধর্ষণ তোলাবাজি, বিহারে প্রার্থী তালিকায় মাফিয়া ডন আর তাদের বউদের দাপাদাপি

খুন অপহরণ ধর্ষণ তোলাবাজি, বিহারে প্রার্থী তালিকায়; মাফিয়া ডন আর তাদের বউদের দাপাদাপি। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে; তিন দফায় হবে বিহার বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে নির্বাচন কমিশনের নিয়মাবলী মেনে; দলের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে থাকা অপরাধের তালিকা প্রকাশ করতে শুরু করেছে রাজনৈতিক দলগুলি। আর তাতেই আসল বিষয়টি সামনে এসেছে। খুন-অপহরণ-ধর্ষণ-তোলাবাজি; ভূরি ভূরি মামলায় অভিযুক্ত বিহারের প্রার্থীরা। বিহারে প্রার্থী তালিকায়; মাফিয়ার ছড়াছড়ি।

প্রার্থীদের একটা বড় অংশের বিরুদ্ধে খুন, জালিয়াতি এবং রাহাজানির মতো; গুরুতর অপরাধ মামলা চলছে। এ ব্যাপারে বিজেপি ও কংগ্রেস খানিকটা গা বাঁচিয়ে চললেও; লালুপ্রসাদ যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) এবং নীতীশ কুমারের সংযুক্ত জনতা দল (জেডিইউ); একে অপরকে টেক্কা দিচ্ছে। দুদলের প্রার্থী তালিকায়; মাফিয়াদের ছড়াছড়ি।

আরও পড়ুনঃ বাংলার দুর্গাপুজোয় অংশ নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ষষ্ঠীতে করবেন দেবীর বোধন

প্রার্থী তালিকায় ১১ জন ডন বা তাদের বউরা রয়েছেন। এর মধ্যে আছেন সাতটি খুনে অভিযুক্ত ও জেলে থাকা অনন্ত সিং; বিভিন্ন অপরাধের মামলায় আসামি সুনীল পান্ডে; যার বিরুদ্ধে একবার জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) তদন্ত করেছিল; আর আছেন কুখ্যাত ‘ডন’, রিট লাল যাদব; যার নাম আছে বিহারের প্রায় সব থানার অভিযোগ খাতায়। আছেন সুরেন্দ্র যাদব। তিনি হলেন আরও এক ডন; যিনি তাঁর অঞ্চলে ‘মগধ সম্রাট’ নামে পরিচিত। তিনি গয়ার বেলাগঞ্জ আসন থেকে; আরজেডির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

বিধানসভায় দারিয়েছেন; অমরেন্দ্র পান্ডে। অমরেন্দ্র পান্ডে ওরফে পাপ্পু পান্ডে; গোপালগঞ্জের জেডি (ইউ) বিধায়ক। তিনি টিকিট ধরে রেখেছেন। পান্ডে গোপালগঞ্জ ট্রিপল হত্যা মামলার আসামিল যেখানে স্থানীয় আরজেডি নেতার বাবা-মা এবং ভাইকে হত্যা করা হয়েছিল। প্রার্থী তালিকায় আছে; রমা সিংয়ের স্ত্রী বীণা সিংহ। আরজেডি বৈশালী জেলার মাহনা আসনে; বীণা সিংকে মাঠে নামিয়েছে। প্রাক্তন সাংসদ রমা সিংহের বিরুদ্ধে; খুন থেকে অপহরণ পর্যন্ত; একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তিনি গত সপ্তাহে আরজেডিতে যোগ দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুনঃ গরু পাচার, সারদা, নারদা তদন্ত শেষ করতে, কলকাতা ইডি’র দায়িত্বে বিশেষ অধিকর্তা বিবেক ওয়াদেকরকে

এর মধ্যে আরজেডি-র যে সমস্ত নেতার নাম রয়েছে; তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন অনন্ত সিংহ। নিজের এলাকায় যিনি ছোটে সরকার বলে পরিচিত। এ বছর তাঁকে মোকামা থেকে দাঁড় করানো হয়েছে। ১টা বা ২টো নয়, সবমিলিয়ে অনন্তের বিরুদ্ধে; মোট ৩৮টি গুরুতর অপরাধের মামলা ঝুলছে। এর মধ্যে খুনের মামলাই রয়েছে ৭টি। এ ছাড়াও রয়েছে অপহরণ, জমি দখল, শ্লীলতাহানি; এবং খুনের চেষ্টার মতো মামলাও। ২০০৭ সালে রেশমা খাতুন নামের একটি মহিলার শ্লীলতাহানি; এবং খুনের মামলায় নাম জড়ায় অনন্তের। সেই নিয়ে তাঁর সাক্ষাৎকার নিতে গেলে; দুই সাংবাদিককে তিনি নিজের বাংলোয় পণবন্দি করে রাখেন। বাড়িতে এঁকে ৪৭ আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগে; এখন সে জেলে।

তবে অনন্ত একা নন, আরজেডির বেলাগঞ্জের প্রার্থী সুরেন্দ্র যাদব; শাহপুরের প্রার্থী রাহুল তিওয়ারি; জামুইয়ের প্রার্থী বিজয় প্রকাশ; নোখার প্রার্থী অনিতাদেবী; দেহরির প্রার্থী ফতেহ বাহাদুর সিংহ-সহ; কমপক্ষে আরও ২০ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে তোলাবাজি, প্রতারণা এবং হামলা চালানোর মতো গুরুতর মামলা রয়েছে। অন্যদিকে, মঞ্জু বর্মা ছাড়াও, অমরেন্দ্র পান্ডে, মনোরমা দেবী-র মতো একাধিক অপরাধে; অভিযুক্তদের ভোটে দাঁড় করিয়েছে জেডিইউ। মাফিয়া ডন বিন্দি যাদবের স্ত্রী মনোরমাদেবীকে; আত্রি থেকে দাঁড় করানো হয়েছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন