দুর্গাপুজোয় প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে আদালতে যাওয়ার পরে, সরস্বতী ঠাকুরকে ‘পুতুল’ বলে বিতর্কে বিকাশ ভট্টাচার্য

6291
দুর্গাপুজোয় প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে আদালতে যাওয়ার পরে, সরস্বতী ঠাকুরকে 'পুতুল' বলে বিতর্কে বিকাশ ভট্টাচার্য
দুর্গাপুজোয় প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে আদালতে যাওয়ার পরে, সরস্বতী ঠাকুরকে 'পুতুল' বলে বিতর্কে বিকাশ ভট্টাচার্য

ধর্মতলায় গরুর মাংস খেয়ে, ‘বিদ্রোহ’ করার পরে; করোনা কালে দুর্গা পুজোয় মানুষের প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে আদালতে গিয়েছিলেন। এবার ফের হিন্দু ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ উঠল; বাম সাংসদ বিকাশ ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে। সরস্বতী মূর্তি নিয়ে তাঁর করা একটি ফেসবুক পোস্ট ঘিরে; শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। ওই পোস্টে সরস্বতীর মূর্তিকে ‘পুতুল’ বলে; উল্লেখ করেছেন এই বাম নেতা। আর তাতেই বেজায় চটেছেন হিন্দুরা; সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর সমালোচনা করেছেন গেরুয়া শিবিরের সমর্থকরা। পাশপাশি, এই পোস্ট অপ্রত্যাশিত বলেও; মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

আরও পড়ুন; “কলকাতায় জল জমার জন্য দায়ী উত্তরাখণ্ড”, ঘোষণা ফিরহাদ হাকিমের

২০২০ সালে করোনার সময়ে, দুর্গা পুজোয় মানুষের প্রবেশে নিষেধ করতে; কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন সিপিএম নেতা বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। সেই নিয়েও; বিতর্ক কম হয়নি! এর আগে, ধর্মতলায় নিজেদের ধর্মনিরপেক্ষ প্রমাণ করতে; প্রকাশ্যে গরুর মাংস খেয়েছিলেন বিকাশ ভট্টাচার্য। এবার হিন্দুদের আরাধ্য দেবী সরস্বতীকে; পুতুল বলে বিতর্ক বাড়ালেন আইনজীবী নেতা বিকাশ ভট্টাচার্য।

বিকাশ ভট্টাচার্যের সেই ফেসবুক পোস্ট
Bikash Ranjan Bhattacharya Post Creates Controversy Called Saraswati Idol a Doll
বিকাশ ভট্টাচার্যের সেই ফেসবুক পোস্ট

বিকাশ ভট্টাচার্যের একটি ফেসবুক পোস্টকে ঘিরে; বিতর্ক শুরু হয়েছে। তিনি AICTE দফতরে একটি অনুষ্ঠানে; যোগ দিতে গিয়েছিলেন। সেখানেই প্রবেশের পথে তাঁর নজরে আসে; একটি বড় সরস্বতী মূর্তি। সেই প্রসঙ্গেই বিকাশ ভট্টাচার্য লেখেন; “একটি গুরুত্বপূর্ণ কমিটির সদস্য হিসেবে; AICTEA-র দফতরে গিয়েছিলাম। খুব সুন্দর এক বিশাল ইমারত; প্রবেশদ্বারেই একটি সুন্দর বিশালাকায় পুতুল; হাতে তার বীণা”। তাঁর পোস্টের এতটুকু পড়েই; বোঝা গিয়েছিল মূর্তিটি সরস্বতীর।

আরও পড়ুন; হিন্দু দেব-দেবী নিয়ে যা খুশি, হিজাব পরিহিতা মা দুর্গার ছবি আঁকলেন বাংলার চিত্রশিল্পী

তিনি আরও লেখেন, “সেই পুতুলে পুষ্পার্ঘ্য দেবার; অনুরোধ করা হয় আমাকে। আমি সবিনয়ে প্রত্যাখ্যান করি; বুঝলাম ওটি সরস্বতীর প্রতিমা”। এরপরেই শুরু হয়ে যায়; জোর বিতর্ক। হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী; সরস্বতী হল বিদ্যার দেবী। প্রতিবছর নিষ্ঠা সহকারে পড়ুয়ারা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে; সাড়ম্বরে এই পুজোর আয়োজন করে। সেই বিদ্যার দেবীকে ‘পুতুল’ বলে মন্তব্য করা; কোনওভাবেই মেনে নিতে পারেননি হিন্দু ধর্মের মানুষরা। হিন্দুদের বারবার অপমান করার জন্য; বিকাশ ভট্টাচার্যকে হিন্দু সমাজ থেকে বয়কট করার ডাকও উঠেছে। তবে এই নিয়ে, আর কিছু বলেননি; কমরেড বিকাশ ভট্টাচার্য।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন