“মৃত্যুভয়ে কাঁপছে বিজেপি, তাই আমাকে রাজ্যে ঢুকতে বাধা”, বিপ্লবকে কটাক্ষ অভিষেকের

1049
"মৃত্যুভয়ে কাঁপছে বিজেপি, তাই আমাকে রাজ্যে ঢুকতে বাধা", বিপ্লবকে কটাক্ষ অভিষেকের

“মৃত্যুভয়ে কাঁপছে বিজেপি; তাই আমাকে রাজ্যে ঢুকতে বাধা”; বিপ্লবকে কটাক্ষ অভিষেকের। মৃত্যুর আশঙ্কা করছে বিজেপি; তাই আমাকে ত্রিপুরায় ঢুকতে বারবার বাধা দিচ্ছে; ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব ও বিজেপিকে এই ভাষাতেই কটাক্ষ করলেন; তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পরপর দুদিন তাঁর পদযাত্রা বাতিল হয়ে যাওয়ায়, অভিষেক টুইট করে দাবি করেন; বিজেপি ও বিপ্লব দেব আমাকে ত্রিপুরায় প্রবেশে বাধা দিতে; সমস্ত শক্তি ও সম্পদ ব্যবহার করছে”। “মৃত্যুর আশঙ্কা করছে বিজেপি; তাই আমাকে রাজ্যে ঢুকতে বাধা”, দাবি অভিষেকের।

অভিষেক আরও লেখেন, “চেষ্টা চালিয়ে যাও; কিন্তু তুমি আমাকে থামাতে পারবে না। তোমার ভয় পাওয়া এটাই দেখায় যে; বিজেপি শাসন ও আপনার দিনগুলি সংখ্যাযুক্ত। সত্যি বলছি, ইয়ে ডর হামে আছা লাগা”! পরপর দুদিন অভিষেকের পদযাত্রা; বাতিল করে দিয়েছে ত্রিপুরা প্রশাসন। ফলে বিপ্লব দেব সরকারের বিরুদ্ধে; ক্ষোভে ফুঁসছে তৃণমূল। ফের একটি নতুন দিন ঠিক হয়েছে, ত্রিপুরায় অভিষেকের বন্দ্যোপাধ্যায়ের; রাজনৈতিক কর্মসূচির জন্য।

আরও পড়ুনঃ দেবী দুর্গাকে অপমান করে ‘মমতার মন্ত্রপাঠ’ ফিরহাদ হাকিমের, থানায় গেল বিজেপি

আর সেই দিনও যদি প্রশাসন অনুমতি না দেয়; তাহলে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ঘাসফুল শিবির। এর আগে ১৫ সেপ্টেম্বর ও ১৬ সেপ্টেম্বর; অভিষেকের পদযাত্রা কর্মসূচি বাতিল করে দেওয়া হয়। এ বার ২২ সেপ্টেম্বর পদযাত্রার অনুমতি চেয়ে; চিঠি দিল ত্রিপুরা তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যান্য রাজনৈতিক দলকে সভা-মিছিল করার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে; তাই চিঠিতে তৃণমূলের দাবি তাদেরকেও সেই সুযোগ দিতে হবে। তৃণমূলের নেতৃত্বের দাবি, ২২ তারিখেও যদি অনুমতি না মেলে; তাহলে আদালতে যেতেও পিছপা হবে না তারা।

এই ইস্যুতেই ক্ষোভ প্রকাশ করে, টুইট করেন; অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কিছুটা হুঁশিয়ারির সুরেই অভিষেক লেখেন; শত চেষ্টা করেও তাঁকে রোখা যাবে না। অভিষেক ও তৃণমূলের অভিযোগ; যে ভাবে তাদের একের পর এক কর্মসূচি বাতিল করা হচ্ছে; তা গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জাজনক। সূত্রের খবর, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কর্মসূচি যে ভাবে নিয়মিত বাতিল করতে হচ্ছে; তাতে নতুন রণকৌশল সাজাচ্ছে তৃণমূল। আগে থেকে ঘোষণা করে, অভিষেক ত্রিপুরা সফর করবেন না; বলেই সূত্রের দাবি। “এরকম হাস্যকর দাবি; ত্রিপুরার মানুষ আগে শোনেনি”; পাল্টা কটাক্ষ ত্রিপুরা বিজেপির।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন