‘চোলাই খোর নেতা’ বনাম ‘মাতাল নেতা’, বাংলার রাজনীতিতে কুকথার ফুলঝুরি

1065
'চোলাই খোর নেতা' বনাম 'মাতাল নেতা', বাংলার রাজনীতিতে কুকথার ফুলঝুরি/The News বাংলা
'চোলাই খোর নেতা' বনাম 'মাতাল নেতা', বাংলার রাজনীতিতে কুকথার ফুলঝুরি/The News বাংলা

‘চোলাই খোর নেতা’ বনাম ‘মাতাল নেতা’; বাংলার রাজনীতিতে কুকথার ফুলঝুরি। কেউ কাউকে বলছেন; “চোলাই খোর; সারাদিন চোলাই খায়”। কেউ আবার কোন নেতাকে আক্রমণ করে বলছেন; “ব্যাটা মাতাল, সারাদিন মাল খায়; মাল খেয়েই মঞ্চে আসে”। আর দুমাস মাস পরেই বাংলায়; ‘হাইভোল্টেজ’ বিধানসভার ভোট। তার আগে রাজ্যজুড়ে বাড়ছে; রাজনৈতিক তাপ-উত্তাপ। একে অপরকে তোপ দাগছেন; শাসক ও বিরোধী দলের নেতারা। আর তা করতে গিয়েই কখনও কখনও ছাড়িয়ে যাচ্ছে; শালীনতার মাত্রা। উধাও হচ্ছে শিক্ষা দীক্ষা রুচি। এক সাংসদ আর এক সাংসদকে বলছেন; মাতাল-চোলাই খোর।

বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহের গড় বলে পরিচিত; উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়ায়; সভা করেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সভা থেকে স্থানীয় বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহকে; তুলোধনা করেন তিনি। কল্যাণ বললেন অর্জুনকে টার্গেট করে; “ও চোলাই খেয়ে থাকে; আমি এসেছি তাতেই অস্বস্তিতে পড়েছে; এখানে পাপ্পুকে বলে দিলেই হবে; ওই অর্জুনকে সামলে দেবে”।

আরও পড়ুনঃ “কথা রাখেন নি মমতা”, পার্শ্ব শিক্ষকদের নবান্ন অভিযানে র’ণক্ষেত্র রাজপথ

প্রাক্তন সতীর্থ এখন প্রতিপক্ষর মুখে একথা শুনে; পাল্টা জবাব দিতে দেরি করেননি অর্জুন সিংহ! তিনি পাল্টা বলেন কল্যাণকে; “ওতো মাতাল, সারাদিন মদ খেয়ে থাকে; ভোটে মমতা-অভিষেক কিছু করতে পারল না; সরকারে থাকলে অনেক কিছু বলা যায়”। পরে, অর্জুন আবার বলেন, “অকে মঞ্চে দেখলেও মনে হয়; মদ খেয়েই উঠেছে”। ‘চোলাই খোর বনাম মাতাল’; লড়াইয়ে উত্তপ্ত বাংলার রাজনীতি।

আরও পড়ুনঃ “তোর হাত কেটে নেব, পিষে দেব” শুভেন্দুকে বড় চ্যালেঞ্জ দিলেন কল্যাণ

আর এই নিয়েই উত্তাল; সোশ্যাল মিডিয়া। যেভাবে দুই সাংসদ একে অপরকে কু কথায় ভরিয়ে দিচ্ছেন; তাতে ভোটের আগে আরও কত কি যে দেখতে হবে; সেটা ভেবেই আশ্চর্য হচ্ছেন আম বাঙালি। তবে, বাংলায় যে এভাবে; দুই দলের নেতাদের মধ্যে বাজে ভাষার ফোয়ারা ছুটবে; তা ভাবতেই পারছেন না শিক্ষিত বাঙালি। “এবার ভোটের আগে আরও অনেক কিছু দেখার ও শোনার বাকি”; এমনটাই মনে করছে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন