নতুন রাজ্য সভাপতিই কি হতে চলেছেন, বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী

9730
নতুন রাজ্য সভাপতিই কি হতে চলেছেন, বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী/The News বাংলা
নতুন রাজ্য সভাপতিই কি হতে চলেছেন, বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী/The News বাংলা

নতুন রাজ্য সভাপতিই কি হতে চলেছেন; বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী? দিল্লির রাজনৈতিক মহল বলছে; বাংলায় রাজ্য সভাপতি বদল হচ্ছে। ১৫ই আগস্টের পরেই; কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে যে; কে পশ্চিমবঙ্গের নতুন সভাপতি হবেন? আর যিনি নতুন সভাপতি হবেন; তিনিই কি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হবেন? এই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে। বিজেপির অন্দরে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে; এইসব প্রশ্ন। নির্ধারিত সময় অক্টোবরের আগেই; বাংলা বিজেপি পেতে চলেছে নতুন রাজ্য সভাপতি; দিল্লী সূত্রে এমনটাই জানা যাচ্ছে। দিলীপ ঘোষের পর; বাংলা বিজেপির নতুন মুখ কে হবেন? বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীও; কি তিনিই হবেন? এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জগৎ প্রকাশ নাড্ডা, বা জেপি নাড্ডা আসার পর; গোটা দেশ জুড়ে অনেক রাজ্যেই রাজ্য সভাপতি পরিবর্তন করেছেন তিনি। তথ্য বলছে, জেপি নাড্ডা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি হবার পর; রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল নিয়ে ৩০ জন নতুন বিজেপি সভাপতি এসেছেন। শুধু ২০২০ তেই, অরুণাচল প্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ সহ বিভিন্ন রাজ্যে রাজ্য সভাপতি পদে; দৃষ্টান্তমূলক পরিবর্তন করেছেন জেপি নাড্ডা। করোনা আবহে শুধু জুলাইয়ে; ৫ জন নতুন রাজ্য সভাপতি হয়েছেন। এবার পালা বাংলার। এটা পরিষ্কার, আগস্টেই নতুন রাজ্য সভাপতি পাচ্ছে; বাংলা বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ করোনা মৃতদেহ বাড়িতে এনে এলাকায় মিছিল, তৃণমূল নেতাদের সব ছাড়, যত নিয়ম সাধারণ মানুষের জন্য

দিল্লি বিজেপি সূত্রের খবর; দুই বাঙালির পাশাপাশি, RSS এর দাবী মেনে তিনজন প্রবাসী বাঙালীর নামও; আলোচনায় উঠেছে বিজেপি কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে। জে পি নাড্ডা স্বয়ং এই নিয়ে; মুকুল রায়ের সঙ্গে কথা বলেছেন। কারণ, ২০২১ বিধানসভা ভোটে বাংলায় বিজেপির ভোট যুদ্ধের সেনাপতি সেই মুকুল রায়ই। বাংলায় নতুন রাজ্য সভাপতি যিনি হবেন; তাঁকে মুকুল রায়ের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করে; বিজেপিকে বাংলায় ক্ষমতায় নিয়ে আসতে হবে।

দিল্লি বিজেপি সূত্রে খবর; বর্তমান রাজ্য নেতৃত্ব অর্থাৎ রাহুল-দিলীপ-সুব্রত গোষ্ঠীর কাজে ব্যপক অসন্তুষ্ট কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বারে বারে প্রকাশ পেয়েছে; যা নিয়ে চরম বিরক্ত কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। মুকুল রায়ের হঠাৎ চুপ করে যাওয়ায়; নজরে এসেছে কেন্দ্রীয় নেতাদের। শুধু তাই নয়, বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য, রাজু ব্যানার্জি, সঞ্জয় সিং, সায়ন্তন বসু এদের বিরুদ্ধে নারী কেচ্ছা ও আর্থিক দুর্নীতির; নানান অভিযোগ জমা পরেছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। নেতাদের বিরুদ্ধে, একের পর রিপোর্টে বিরক্ত; বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

আরও পড়ুনঃ গল্প হলেও সত্যি, কেউ শেষ কেউ জেলে, রামমন্দির বিরোধীরা ভুগছেন কর্মফল

দলের বিভিন্ন সূত্র, IB রিপোর্ট, IPS পুলিশ রিপোর্ট, অমিত শাহ এর নিজস্ব টিম রিপোর্ট এবং সংঘের বেশকিছু উচ্চপর্যায়ের কার্যকর্তা; যারা বাংলার এইসকল নেতার কাজে অসন্তুষ্ট; তাদেরও রিপোর্টে উঠে এসেছে দিলীপ ঘোষকে অবিলম্বে পরিবর্তন না করলে; বাংলায় বিজেপি আসবে না। সব রিপোর্ট জমা পরেছে; অমিত শাহ ও জে পি নাড্ডা-র কাছে। বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের বিরুদ্ধে; কোন ইস্যু ভিত্তিক আন্দোলন তুলে আনতে পারছে না বলেই; রিপোর্ট জমা পরেছে।

তাই, সব দিক বিবেচনা করে; খুব শীঘ্রই রাজ্যে পরিবর্তন আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বাংলার নেতৃত্ব যে পরিবর্তন যে অবশ্যম্ভাবী; সেটা বিজেপির বাকি সবকটি রাজ্যের সভাপতির পরিবর্তন দেখলেই বোঝা যায়। এই মাসেই, কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে সমস্ত সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে; এবং দিল্লী সূত্রে যা জানা যাচ্ছে, অক্টোবর মাসে কেন্দ্রীয় কমিটির ঘোষণার পূর্বেই; রাজ্য কমিটির নতুন সভাপতি ঘোষণা করা হবে। তবে তিনিই কি বাংলা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী মুখ হবেন? সেটাই এখন বড় প্রশ্ন।

ঠকবেন না, পশ্চিমবঙ্গের একমাত্র আসল করোনা প্রোডাক্ট বিক্রেতা
Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন