পাহাড়ে গোর্খাল্যান্ড দাবি মানেনি বিজেপি, ২১ এর বিধানসভায় মমতার সঙ্গেই জোট বাঁধতে চান বিমল গুরুং

2399
বিমল গুরুং নিয়ে চুপ মমতা, নবান্নে পাহাড় বৈঠকের পরেও গুরুং চিন্তায় বিনয় তামাং
বিমল গুরুং নিয়ে চুপ মমতা, নবান্নে পাহাড় বৈঠকের পরেও গুরুং চিন্তায় বিনয় তামাং

“ফের একবার মমতাকেই মুখ্যমন্ত্রী দেখতে চাই”; ২০১৭ সালের পর প্রথমবার প্রকাশ্যে বেড়িয়ে; এমনটাই ঘোষণা করলেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নেতা বিমল গুরুং। পাহাড়ে গোর্খাল্যান্ড দাবি মানেনি বিজেপি; ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে; মমতার সঙ্গেই জোট বাঁধতে চান বিমল গুরুং। ২১-এর ভোটের আগে; পাহাড়ের রাজনীতিতে জোর চমক। প্রায় চার বছর অজ্ঞাতবাসে থাকার পর; বুধবার প্রকাশ্যে এসেই চমক ‘ফে’রার’ বিমল গুরুংয়ের। সাংবাদিক সম্মেলন করে, সরাসরি এনডিএ ছাড়ার ঘোষণা; গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ‘সুপ্রিমো’র ৷ সেই সঙ্গে মমতার তৃণমূলের সঙ্গে; জোটের ঘোষণা।

আরও পড়ুনঃ পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে, কলকাতার রাস্তায় প্রকাশ্যে ঘুরছেন ফে’রার বিমল গুরুং

অজ্ঞাতবাস ছেড়ে আচমকা উদয় হয়েছেন; মোর্চার বহিষ্কৃত নেতা বিমল গুরুং। বুধবার বিকেলে; সল্টলেকের গোর্খাভবনে আসেন তিনি। আধঘণ্টা অপেক্ষা করার পরও; গোর্খাভবনের দরজা খোলা হয়নি। বাধা পেয়ে ফিরে যান। এরপর কলকাতার এক পাঁচতারা হোটেলে; সাংবাদিক সম্মেলন করেন গুরুং। পাশে ছিলেন। মোর্চার প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরিও।

UAPA মামলায় অভিযুক্ত; অমিতাভ মল্লিক খুনে অভিযুক্ত; বিমল গুরুং কলকাতায়

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসের পর থেকে; বিমল গুরুংকে আর দেখা যায়নি ৷ অবশেষে ২০২০ সালের পঞ্চমীর সন্ধ্যায়; সল্টলেকের গোর্খা ভবনের সামনে আচমকাই উদয় মোর্চা সভাপতি বিমল গুরুয়ের ৷ বিমল গুরুংয়ের সাংবাদিক সম্মেলনে; এদিন চমকে দেওয়া ঘোষণা ৷ তিনি বলেন, “প্রতিশ্রুতি পূরণ করেননি মোদী-শাহ ৷ গোর্খাল্যান্ডের জন্য; কিছুই করেনি বিজেপি ৷ তাই, এনডিএ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলাম”। এখানেই শেষ নয়, আরও এক পা এগিয়ে গুরুং এও বলেন; “২০২১-এ তৃণমূলের সঙ্গে জোট বেঁধে লড়ব; মমতাকেই ফের মুখ্যমন্ত্রী দেখতে চাই”।

আরও পড়ুনঃ মুর্শিদাবাদ থেকে গ্রেফ’তার আ’ল কা’য়দা জ’ঙ্গিদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি তৃণমূল নেতার

‘গোর্খাল্যান্ড’ আন্দোলনের নামে, পাহাড়ের পরিস্থিতি অ’শান্ত হওয়ার পর থেকেই; দূরত্ব বেড়েছিল তৃণমূল সরকারের সঙ্গে গুরুংয়ের ৷ ২০১৭ সালে দার্জিলিংয়ে তীব্র অ’শান্তির পিছনে; মূল চ’ক্রী হিসাবে তার নাম উঠে আসায়; ওয়া’রেন্ট জারি করে চলেছিল তার খোঁজ। এখনও পর্যন্ত UAPA ‌সহ একাধিক দেশ’দ্রোহিতার অভিযোগ রয়েছে; বিমল গুরুংয়ের বিরুদ্ধে। আদালত হু’লিয়া জারিও করেছে। পুলিশ কর্মী অমিতাভ মালিক; খু’নের মা’মলাও রয়েছে বিমল গুরুংয়ের বিরুদ্ধে।

প্রায় চার বছর পর, গুরুংয়ের এভাবে ফিরে আসার প্রেক্ষাপট; কিন্তু ধীরে ধীরে তৈরি হচ্ছিল। সূত্রের খবর, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভোটকুশলী, প্রশান্ত কিশোর মারফত; পাহাড়ের একদা প্রতাপশালী নেতার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছিল। এমনকী এ বিষয়ে, রাজ্যের এক মন্ত্রীর; ভূমিকার কথাও শোনা যাচ্ছে। এই নিয়ে শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। UAPA মা’মলায় অভি’যুক্ত; অমিতাভ মল্লিক খু’নে অভিযুক্ত; বিমল গুরুং কীভাবে এমন প্রকাশ্যে; কলকাতার রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে পারে? এতকিছুর পরেও, সেই বিমল গুরুং এর সঙ্গে জোট করবেন মমতা? উঠে গেছে প্রশ্ন। তবে, এই নিয়ে মুখ খোলে নি তৃণমূল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন