হাড্ডাহাড্ডি লড়াই তো পরে, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে প্রার্থী দিতে পারবে তো বিজেপি

228
হাড্ডাহাড্ডি লড়াই তো পরে, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে প্রার্থী দিতে পারবে তো বিজেপি/The News বাংলা
হাড্ডাহাড্ডি লড়াই তো পরে, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে প্রার্থী দিতে পারবে তো বিজেপি/The News বাংলা

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা মনে করছেন প্রথম দফার দুটি আসনের ভোটেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা আছে। বিজেপিও মনে করছে প্রথম দফার দুটি আসনের ভোটেই তারা জিততে পারে। কিন্তু আদৌ বিজেপি ওই দুটি আসনে প্রার্থী দিতে পারবে তো? বিজেপির কর্মী সমর্থকদের পাশাপাশি আশঙ্কা রাজনৈতিক মহল ও সাধারণ মানুষেরও।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় বিজেপির সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা

রাজ্যে প্রথম দফায় ২টি আসনে ভোট, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার। প্রথম দফায় বাংলার যে দুই আসনে ভোটগ্রহণ হবে, সেই আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার কেন্দ্রের প্রার্থীরা হাতে মাত্র এক দিন সময় পাবেন মনোনয়ন জমা দেওয়ার জন্য। বুধবারও যদি অফিস বন্ধের আগে যদি ঘোষিত হত প্রার্থীদের নাম, তা হলে মনোনয়ন জমার কাজ কিছুটা অন্তত এগিয়ে রাখতে পারতেন বিজেপি প্রার্থীরা। সে কথা মাথায় রেখে বুধবার বিকেলের আগেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপরে চাপ বাড়িয়েছিলেন বঙ্গ বিজেপির নেতারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর হল না।

আরও পড়ুনঃ সেন্ট্রাল ফোর্স বছরে এই কয়েকদিন থাকবে, হুমকি মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের

তৃণমূল বাম কংগ্রেস, ৩ দল প্রচারে, বিজেপি কর্মী সমর্থকরা বলতে শুরু করেছেন ‘আর কবে’। কলকাতা সহ রাজ্যের জেলায় জেলায় এখন এটাই প্রশ্ন, আর কবে? মঙ্গলবারও হল না। বুধবার বিকালে ফের প্রার্থী ঘোষণার আশা ছিল বিজেপির তরফ থেকে। তবে এখনও প্রার্থী না পাওয়ায় হতাশা গ্রাস করছে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের। কবে হবে কেউ জানে না। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার হোলির ছুটির মধ্যেই কি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হবে?

আরও পড়ুনঃ বাম কংগ্রেস বিজেপির আপত্তি নেই, কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে কেন মাথাব্যথা শুধু তৃণমূলের

রাজ্যে এবার চার দলের লড়াই। তৃণমূল, বাম, কংগ্রেস ও বিজেপির মুখোমুখি লড়াই। বাকি তিন দল প্রার্থী ঘোষণা করে প্রচারেও নেমে পড়েছে। ঘরে বসে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা জিজ্ঞাসা করছেন, আর কবে ঘোষণা হবে? কেউ কেউ হতাশ, ভোটের আগে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হবে তো! আর এতেই বাংলায় ২২ আসন জেতার বিজেপির দাবি যে ক্রমশই ফিকে হয়ে আসছে সেটাই বলছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সেই সব ছাড়িয়ে এখন এটাই প্রশ্ন আদৌ বিজেপি প্রথম দফার দুই আসনে প্রার্থী দিতে পারবে তো বিজেপি?

আরও পড়ুনঃ বিরোধী মহিলা প্রার্থীদের ‘মাল’ সম্বোধন করে কুরুচিপূর্ণ আক্রমণ ফিরহাদের

আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে ভোটগ্রহণ হবে প্রথম দফায়। ওই দুই আসনে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ মার্চ অর্থাৎ সোমবার। কিন্তু সোমবারের আগে যে চারটে দিন পড়ে রয়েছে, তার মধ্যে ২১ ও ২২ মার্চ দোল এবং হোলির ছুটি। ২৩ ও ২৪ মার্চ শনি ও রবিবার সপ্তাহান্তিক ছুটি সরকারি অফিস দফতরে।

আরও পড়ুনঃ অনুব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের

অর্থাৎ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার জন্য শুধু সোমবারটাই থাকছে বিজেপির হাতে। ওই দিনেই আদালতে গিয়ে হলফনামা জমা করতে হবে। তার পরে জেলাশাসকের দফতরে গিয়ে জমা দিতে হবে মনোনয়নপত্র। দুটো কাজই সময় সাপেক্ষ। একদিনে ওই দুটো কাজ করা যাবে কি না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে রাজ্য বিজেপিতে।

আরও পড়ুনঃ মিমি নুসরত এর চরিত্র নিয়ে কটাক্ষ বিতর্কে জড়ালেন দিলীপ ঘোষ

তাই বুধবার দুপুরের আগেই আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারের প্রার্থীদের নাম অন্তত ঘোষণা করে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপরে চাপ বাড়ায় রাজ্য বিজেপি। কিন্তু বুধবার অফিস-কাছারি বন্ধ হওয়ার আগে প্রার্থীদের নামে চূড়ান্ত সিলমোহর দিতে পারেননি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা।

মঙ্গলবার প্রথম কয়েক দফায় বিজেপি প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয় নি। আরও একবার পিছিয়ে যায় বিজেপির প্রার্থী তালিকা। বুধবার দিল্লিতে প্রথম তিন দফার প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করার কথা ছিল গেরুয়া শিবিরের। কিন্তু তাও প্রকাশ করতে পারল না তারা। আর এতেই চূড়ান্ত হতাশ রাজ্যের বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

আরও পড়ুনঃ বাবুলকে হারাতে ১ কোটি টাকার কাজের টোপ, বিতর্কিত ঘোষণা মেয়রের

ভোটের দিন ঘোষণার পরই গত রবিবার ১০ই মার্চ নিজেদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দিয়েছে বিজেপির প্রতিপক্ষ রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। জোট ভেঙে নিজেদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে বাম কংরেসও। কিন্তু এখনও নিজেদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারেনি বিজেপি। আর এতেই বেজায় হতাশ বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। ভোটের আগে অনেকটাই পিছিয়ে পরলেন তারা, এমনটাই মনে করছে বিজেপি কর্মীরা। আর এখন প্রশ্ন, প্রার্থী দেওয়া যাবে তো?

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন