মমতারই পুরোনো অস্ত্রে তাকে ভোটযুদ্ধে চরম সমস্যায় ফেললেন মুকুল

312
মমতারই পুরোনো অস্ত্রে তাকে ভোটযুদ্ধে চরম সমস্যায় ফেললেন মুকুল/The News বাংলা
মমতারই পুরোনো অস্ত্রে তাকে ভোটযুদ্ধে চরম সমস্যায় ফেললেন মুকুল/The News বাংলা

মুকুল রায়, ২০১৯ লোকসভা ভোটে বিজেপির অন্যতম সেনাপতি। দলে যোগ দেবার পর এই প্রথমবার বিজেপির হয়ে ভোট পরিচালনা করবেন একসময়ের তৃণমূল কংগ্রেসের চাণক্য। তৃণমূলের বহুবছরের ভোটের সেনাপতি হিসাবে দলের আঁটঘাট সবই জানেন। এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর হাতিয়ারেই তৃণমূল ও মমতাকে সমস্যায় ফেলতে চলেছেন মুকুল রায়।

আরও পড়ুনঃ বাংলার কোন লোকসভা আসনে কবে ভোট দেখে নিন

মমতা ও তৃণমূল কংগ্রেসকে এবারের ভোটযুদ্ধে সমস্যায় ফেলতে পাল্টা চাল দিচ্ছেন দলের একসময়কার সেকেন্ড ইন কম্যান্ড মুকুল রায়। বাম আমলে নির্বাচনের সময় যে যে অভিযোগের চিঠি মমতা তুলে দিয়েছিলেন নির্বাচন কমিশনের হাতে, সেই সব চিঠি ফের কমিশনকে দিচ্ছেন মুকুল রায়।

তাতে যে সমস্ত অভিযোগ ছিল সেই একই অভিযোগ এবার মমতার বয়ানেই নির্বাচন কমিশনে করছেন মুকুল রায়। রাজ্যের কোথায় সন্ত্রাস হয়, কোথায় স্পর্শকাতর বুথ আছে, মমতার সেই হিসাবই এবার কমিশনকে দিচ্ছেন মুকুল।

আরও পড়ুনঃ পশ্চিমবঙ্গে নজিরবিহীন ৭ দফা ভোটে সুবিধা বিজেপির

শুধু তাই নয়। বিরোধী নেত্রী থাকাকালীন বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে একখানি বই লিখেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দেজ পাবলিকেশন থেকে প্রকাশিত মমতার লেখা বইটির নাম ‘SLAUGHTER OF DEMOCRACY’। রাজ্যে গণতন্ত্র এর বেহাল অবস্থার পাশাপাশি সেখানে রাজ্যের কোন কোন বুথকে স্পর্শকাতর বলে ঘোষণা করতে হবে সেই দাবিও আছে।

বিরোধী নেত্রী থাকাকালীন ওই বইটি লিখেছিলে তৃণমূল নেত্রী নিজেই। বইয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্বাচনের দাবিও তোলা হয়। বিভিন্ন ঘটনা বর্ণনা করে বাংলার গনতন্ত্র বিপন্ন সেটাই বোঝানো হয়। এই বইটিও এবার নির্বাচন কমিশনের কাছে উপহার দিতে চলেছেন মুকুল রায়।

আরও পড়ুনঃ মমতার প্রার্থী তালিকা নিয়ে গোপনে ক্ষোভ বাড়ছে জেলায় জেলায়

নির্বাচন কমিশনকে লেখা তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিঠিপত্রও এবার নির্বাচন কমিশনে জমা দিচ্ছেন মুকুল রায়। ওই চিঠিপত্রে মমতা দাবি করেছিলেন, কোন বুথেই রাজ্যের হোমগার্ড রাখা চলবে না। রাজ্য পুলিশকে কোন দায়িত্ব দেওয়া চলবে না। প্রতিটি বুথেই মোতায়েন করতে হবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়েই ভোট করাতে হবে।

আরও পড়ুনঃ মিমি নুসরত এর চরিত্র নিয়ে কটাক্ষ বিতর্কে জড়ালেন দিলীপ ঘোষ

মুকুল রায় ও বিজেপির বক্তব্য, এই দাবিগুলিই তো এখন তারা তুলেছে। এটা যদি বাংলাকে অপমান করা হয়, তাহলে মমতা কি বাংলাকে অপমান করেননি তখন? আজ বিজেপি একই দাবি তুলছে বলে তৃণমূল ধর্মতলায় অবস্থান করে নির্বাচন কমিশনের উপর চাপ বাড়াতে চাইছে।

তৃণমূলের এই দুই মুখকে তুলে ধরতেই নির্বাচন কমিশনে মমতার সব চিঠি ও বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে লেখা বই জমা দিচ্ছেন মুকুল রায়। এর ফলে বাংলায় স্পর্শকাতর বুথের দাবি যে মমতা অনেক আগেই তুলেছিলেন সেটা প্রমাণ হবে। অন্যদিকে রাজ্যের গনতন্ত্র যে এখনও বিপন্ন সেটাও নির্বাচন কমিশনের কাছে তুলে ধরা যাবে।

আরও পড়ুনঃ অর্জুনকে ওপেন চ্যালেঞ্জ অভিষেকের, দীনেশ ত্রিবেদীকে ২ লাখ ভোট জেতাব

মুকুলের এই পাল্টা চাল মমতাকে কতটা বেকায়দায় ফেলে সেটাই এখন দেখার। তবে তৃণমূলের তরফ থেকে বলা হয়েছে বাম আমল আর তৃণমূল আমলের আকাশ পাতাল তফাৎ হয়েছে। মুকুল রায় ও বিজেপির সব অভিযোগ মিথ্যা। আর এই ইস্যুতে দূরে দাঁড়িয়ে তাড়িয়ে তাড়িয়ে মজা উপভোগ করছেন বাম নেতারা। তাঁরা এই নিয়ে মুখ খুলতে চান নি।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন