দুইয়ের বেশি সন্তান হলে আর ভোটে দাঁড়ান যাবে না, থাকতে হবে শিক্ষাগত যোগ্যতা

9725
দুইয়ের বেশি সন্তান হলে আর ভোটে দাঁড়ান যাবে না, থাকতে হবে শিক্ষাগত যোগ্যতা/The News বাংলা
দুইয়ের বেশি সন্তান হলে আর ভোটে দাঁড়ান যাবে না, থাকতে হবে শিক্ষাগত যোগ্যতা/The News বাংলা

দুইয়ের বেশি সন্তান হলে; আর ভোটে দাঁড়ান যাবে না। থাকতে হবে মিনিমাম শিক্ষাগত যোগ্যতাও। ভারতবাসী বহু দিন ধরেই; এইধরনের কিছু পদক্ষেপ; আশা করছিল কেন্দ্র ও সব রাজ্য সরকারের কাছ থেকে। অবশেষে একটি রাজ্য সরকার; সেই পদক্ষেপ নিল।

উত্তরাখণ্ড পঞ্চায়েতি রাজ সংশোধনী বিল ২০১৯; উত্তরাখণ্ড রাজ্য বিধানসভায় আনা হয় মঙ্গলবার। বিরোধীদের প্রতিবাদ সত্বেও; তা ধ্বনি ভোটে পাস হয়ে যায়। এবার তা রাজ্যপালের অনুমোদনের অপক্ষায়। বিলে রাজ্যপালের সই হয়ে গেলেই; তা পরিণত হবে আইনে।

আরও পড়ুনঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ রক্ষার দায় বামেদের নেই

উত্তরাখণ্ড পঞ্চায়েতি রাজ সংশোধনী বিল ২০১৯; এতে কি কি পরিবর্তন আনা হচ্ছে? প্রথমত, ভোট প্রার্থীর দুটির বেশি সন্তান থাকা চলবে না। দ্বিতীয়ত, প্রার্থীর একটা ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকতে হবে। এমনই একটি বিল পাস হয়ে যায়; উত্তরাখণ্ড বিধানসভায়।

কি কি রয়েছে ওই বিলে? পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রার্থী হতে গেলে; ২টির বেশি সন্তান থাকলে চলবে না। পুরুষ প্রার্থীদের ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা; হতে হবে মাধ্যমিক পাস। মহিলা ও তপসিলি জাতি ও উপজাতির পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে; প্রার্থীকে কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণ হতে হবে।

আরও পড়ুনঃ জনতার অসন্তোষে আক্রান্ত শাহরুখকে, মমতার ক্ষতিপূরণ কি নাম ধর্ম দেখে, প্রশ্ন বিজেপির

রাজস্থান, বিহার, হরিয়ানা ও ওড়িশার পর উত্তরাখণ্ড হল পঞ্চম রাজ্য; যারা এই বিল পাশ করল। উত্তরাখণ্ড মুখ্যমন্ত্রী ত্রিভেন্দ্র সিং রাওয়াত বলেছেন; “রাজ্যবাসীর পাশাপাশি গোটা দেশবাসীই; এমন আইন চান”।

এই বাধানিষেধ আরোপ করে; জনসংখ্যা কমানোর প্রচেষ্টাকে সমালোচনা করেছে; অনেক রাজনৈতিক দলই। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারে হস্তক্ষেপ বলেই; আদালতের শরণাপন্ন হতে চলেছেন বিরোধীরা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন