চোরের মত লুকিয়ে থাকা পুলিশ খুঁজতে, রাজ্য গোয়েন্দা দফতরেই হানা সিবিআইয়ের

408
চোরের মত লুকিয়ে থাকা পুলিশ খুঁজতে, রাজ্য গোয়েন্দা দফতরেই হানা সিবিআইয়ের/The News বাংলা
চোরের মত লুকিয়ে থাকা পুলিশ খুঁজতে, রাজ্য গোয়েন্দা দফতরেই হানা সিবিআইয়ের/The News বাংলা

মানব গুহঃ গোয়েন্দাকে খুঁজতে গোয়েন্দা দফতরেই হানা সিবিআইয়ের। চোরের মত লুকিয়ে থাকা পুলিশ খুঁজতে, রাজ্য গোয়েন্দা দফতরেই হানা সিবিআইয়ের। লুকিয়ে থাকা সিআইডি এডিজি রাজীব কুমারের খোঁজে; সিবিআইয়ের ৬ অফিসারের একটি দল; শনিবার হানা দেয় ভবানী ভবনে। রাজ্য গোয়েন্দা বিভাগের সদর দফতর; আর সেখানেই রাজীব কুমারের খোঁজে হানা দিলেন সিবিআই গোয়েন্দারা। লজ্জার অন্ধকারে বাংলার পুলিশ প্রশাসন।

শুক্রবারের পরে শনিবারও সকাল থেকে রাজীব কুমারের খোঁজে; হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন সিবিআই গোয়েন্দারা। রাজীব কুমারের খোঁজে; সিবিআই এর স্পেশাল টিম কলকাতা জুড়ে চালাচ্ছে জোরদার তল্লাশি। শহর, শহরতলী, বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি ভিন রাজ্যেও চলছে তাঁর খোঁজ। এবার রাজীব কুমারকে নাগালে পেতে; খাস ভবানী ভবনে পৌঁছে যায় সিবিআই-এর একটি দল।

আরও পড়ুনঃ সারদা রোজভ্যালি কাণ্ডে মুখ বন্ধ করতে, খুন হতে পারেন রাজীব কুমার

শনিবার দুপুরে সেখানে পৌঁছয়; ৬ জনের এই সিবিআই গোয়েন্দা দলটি। তদন্তকারীরা। জানা যাচ্ছে, তাঁরা রিসেপশনে জিজ্ঞেস করেন; এডিজি সিআইডি কোথায়? তবে সেখানে জবাব না মেলায়; কাউকে তোয়াক্কা না করেই সটান তিনতলায় সিআইডির সদর দফতরে উঠে যান তাঁরা। জানা গেছে; ভবানী ভবনে হানা দিয়ে রাজীব কুমারের ব্যক্তিগত সচিবের ঘরে; তল্লাশি চালান সিবিআই গোয়েন্দারা।

আরও পড়ুনঃ সারদা রোজভ্যালি কাণ্ডে মুখ বন্ধ করতে, খুন হতে পারেন রাজীব কুমার

বেশ কিছুক্ষণ তল্লাশি চালানোর পরে; অবশ্য ভবানী ভবন থেকে বেরিয়ে যান সিবিআই কর্তারা। রাজীব কুমারের সন্ধানে ভবানী ভবনে; বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলেও খবর। চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে তৃণমূলকে বাঁচাতে ‘গর্তে লুকিয়ে গোয়েন্দা’; আর তার জেরে লজ্জার অন্ধকারে বাংলার তথা কলকাতার পুলিশ মহল।

আরও পড়ুনঃ চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে তৃণমূলকে বাঁচাতে গর্তে লুকিয়ে গোয়েন্দা, লজ্জার অন্ধকারে বাংলার পুলিশ

গোয়েন্দা যেভাবে তৃণমূলকে বাঁচাতে গর্তে লুকিয়ে আছেন; তাতে মাথা হেঁট গোটা রাজ্যের পুলিশের। লুকিয়ে থাকা পুলিশ কর্তার খোঁজে; রাজ্য গোয়েন্দা বিভাগের সদর দফতরেই হানা সিবিআইয়ের। এরপর আর বাংলা ও কলকাতার পুলিশের উপর মানুষের ভরসা থাকবে তো? এটাই এখন বড় প্রশ্ন। আর সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন নি প্রাক্তন পুলিশ কর্তারাও। গর্তে লুকিয়ে গোয়েন্দা; আর তার জেরে লজ্জায় মুখ লোকাচ্ছেন বাংলার সব পুলিশ অফিসাররা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন