মমতাজ বেগম টু মাদার টেরেসা

1386
মমতাজ বেগম টু মাদার টেরেসা/The News বাংলা

মমতাজ বেগম টু মাদার টেরেসা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে গোটা কলকাতা সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড মিশ্রিত রাসায়নিক স্প্রে করানোর সিদ্ধান্ত নিলেন ফিরহাদ হাকিম। এই সেই রাসায়নিক; যা শহরে শহরে স্প্রে করে চীন করোনার সংক্রমণ অনেকটা আয়ত্তে এনেছে। আর সেই একই স্প্রে ভারতের মধ্যে প্রথম করা হচ্ছে; বাংলার “করোনা”র এপিসেন্টার কলকাতায়। এছাড়াও আরো সহস্র কাজ যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে এতগুলো দিন!

ঈশ্বর কি বার্তা দিলেন?যাকে মমতাজ বেগম বলে গালি দিয়েছেন; তিনি আপামর বঙ্গবাসী বাঁচাতে নিজেকে উজাড় করে দিচ্ছেন! তাতে যেমন ৩০% মুসলিম আছে; আছে ৭০% হিন্দুও! মায়ের আঁচলে নিরাপদ আজ আপনাদের সযত্নে লেখা “তোষণ” শব্দটার অর্থ বদলে গিয়েছে।

উনি মানব জাতির তোষক; আমি জানতাম; একদিন আপনারা বুঝবেন ! আমাদের অহংকার; আমাদের মত কিছু মানুষ যারা তার পাশে দাঁড়িয়েছি চিরকাল; সেই আমরা তাকে চিনেছি সভ্যতার সুসময়ে; আজ আপনারা তাকে চিনছেন সভ্যতার দুঃসময়ে! আর ভবগবান বলেছেন; দুঃসময়ে মানুষ চেনা যায়

এদিকে; মুসলিম বলে যে ফিরহাদ হাকিমকে মেয়র করায় আপনারা রেগে গিয়েছিলেন; সেই ববি হাকিম চীনের মত করে কলকাতাকে জীবাণু মুক্ত করার ব্যাবস্থা করছেন! সেই কলকাতা, যার ৮০% হিন্দু! বিধাতার কি পরিহাস !

ঈশ্বর অসুর লেলিয়ে দিয়ে একটাই বার্তা দিলেন; আমাদের একমাত্র পরিচয় আমরা মানুষ। ধর্ম, জাত, ভাষা, রং, আয়, ভৌগলিক অবস্থান; কোনও বিভেদ নেই। আমাদের অধিকার নেই কাউকে দেশ থেকে তাড়ানোর; ঈশ্বর যদি তাড়ানো শুরু করেন; তখন কোথায় কার দেশ; আর কোনটা কার সীমা!

আজ প্রমাণিত; আমরা স্রেফ মানুষ! আর সেই মানব জাতির রক্ষার্থে বাংলার নতুন মাদার টেরেসার নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়; যিনি আঁতেল সমাজের কাছে বস্তির মেয়ে; ধর্মীয় উন্মাদের কাছে মমতাজ বেগম; সাধারণের দিদি; আর আমার মত হাজার হাজার সন্তানের মা।

(লিখলেন দেবাংশু ভট্টাচার্য্য, লেখকের দেওয়া তথ্য ও মতামত একান্ত ব্যাক্তিগত; তার সঙ্গে The News বাংলার কোন সম্পর্ক নেই)

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন