সিপিএম নেতা ও সাধারণ মানুষ মেরে জেল খাটার পরে, তৃণমূল রাজ্য কমিটিতে ‘মাওবাদী’ ছত্রধর মাহাতো

3542
সিপিএম নেতা ও সাধারণ মানুষ মেরে জেল খাটার পরে, তৃণমূল রাজ্য কমিটিতে মাওবাদী ছত্রধর মাহাতো
সিপিএম নেতা ও সাধারণ মানুষ মেরে জেল খাটার পরে, তৃণমূল রাজ্য কমিটিতে মাওবাদী ছত্রধর মাহাতো

সিপিএম নেতা ও সাধারণ মানুষ মেরে জেল খাটার পরে, তৃণমূল রাজ্য কমিটিতে মাওবাদী ছত্রধর মাহাতো। অপ্রত্যাশিতভাবে, একুশের বিধানসভা ভোটের আগে; সাংগঠনিক স্তরে বড়সড় রদবদল ঘটল তৃণমূলে। রীতিমতো ঢেলে সাজানো হয়েছে; দলের সংগঠনকে। মাওবাদী সন্দেহে দীর্ঘকাল জেলবন্দি থাকার পর; গত বছর মুক্ত হওয়া ছত্রধর মাহাতোকে; সরাসরি নিয়ে আসা হল তৃণমূলের রাজ্য কমিটিতে। দায়িত্ব বাড়ল মহুয়া মিত্রের। এছাড়া রাজ্য কমিটির নতুন সদস্য হলেন; অমিত মিত্র, সৌগত রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, সুকুমার হাঁসদা। ২১ জনের রাজ্য কমিটির অধিকাংশ; নতুন মুখ।

ছত্রধর মাহাতোর এই সংযোজন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে; রাজনৈতিক মহলের একটা বড় অংশ। পাকাপোক্ত পরিকল্পনা করেই; তাঁকে রাজনীতি মূল স্রোতে আনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তেমনটাই মনে করা হচ্ছে। জেল থেকে বেরোনোর পরেই ছত্রধর বলেছিলেন; “২০২১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই; ফের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই। আমি ওঁর আদর্শে অনেকখানি প্রভাবিত। জঙ্গলমহলে যে উন্নয়ন হয়েছে; তা অন্য কোনও সরকার করতে পারত বলে মনে করি না”। তখনই আভাস পাওয়া গিয়েছিল।

আরও পড়ুনঃ বিজেপির ‘মিশন বেঙ্গল’, অমিত শাহের ‘বড় দায়িত্ব’ কাঁধে ফিরলেন মুকুল রায়

জঙ্গলমহলের দিকে নজর রেখে; মমতা আরও তিন জেলা নিয়েও বড়সড় সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পুরুলিয়ার জেলা সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল; মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতোকে। বদলে নতুন সভাপতি হলেন গুরুপদ টুডু; যিনি আবার সম্পর্কে আরেক মন্ত্রী সন্ধ্যারানি টুডুর স্বামী। শান্তিরাম মাহাত দীর্ঘদিন ধরে জেলা সভাপতির দায়িত্ব সামলালেও; তাঁর বিরুদ্ধে কিছুটা নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ উঠছিল বেশ অনেকদিন ধরে। মমতা তাঁকে একাধিকবার সাবধানও করেন। এবার তাঁকে দায়িত্ব থেকেই সরিয়ে দেওয়া হল।

আরও পড়ুনঃ মোদীর জাঁতাকলে মমতা, অযোধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে আমন্ত্রণ, শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্রর

ঝাড়গ্রামে নেত্রীর নিজের অত্যন্ত পছন্দের পাত্রী; বীরবাহা সোরেনকে সরিয়ে দেওয়া হল; একুশের দিকে চোখ রেখে। তাঁর জায়গায় জেলা সভাপতি হলেন দুলাল মুর্মু। বাঁকুড়ায় তৃণমূলের নতুন জেলা সভাপতি হলেন; শ্যামল সাঁতরা। দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা সভানেত্রীর পদ থেকে সরানো হয়েছে; অর্পিতা ঘোষকে। নতুন জেলা সভাপতি গৌতম দাস।

রদবদল হয়েছে রাজ্যের অন্যত্রও। রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে সরিয়ে; কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি হয়েছেন; পার্থপ্রতীম রায়। নদিয়া জেলা তৃণমূল সভাপতি হয়েছে মহুয়া মৈত্র। হাওড়ায় অরূপ রায়কে সরিয়ে; দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে লক্ষ্মীরতন শুক্লকে। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে আনা হয়েছে রাজ্য কমিটিতে। দিনকয়েক আগেই অরূপ রায়ের বিরুদ্ধে; বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিলেন তিনি। দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা সভাপতি; পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে অর্পিতা ঘোষকে। রাজ্য কোর কমিটিতে আনা হল শুভেন্দু অধিকারীকে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন