কেঁচো খুঁড়তে কেউটে, গান্ধী পরিবারের অনেক দুর্নীতির গোপন তথ্য জানেন চিদাম্বরম

2058
কেঁচো খুঁড়তে কেউটে, গান্ধী পরিবারের অনেক দুর্নীতির গোপন তথ্য জানেন চিদাম্বরম/The News বাংলা
কেঁচো খুঁড়তে কেউটে, গান্ধী পরিবারের অনেক দুর্নীতির গোপন তথ্য জানেন চিদাম্বরম/The News বাংলা

কেঁচো খুঁড়তে কেউটে; সনিয়া রাহুল সহ; গান্ধী পরিবারের অনেক দুর্নীতির গোপন তথ্য জানেন চিদাম্বরম। আর তার জন্যই কি সুপ্রিম কোর্টে জামিন পেতে; জান লড়িয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস আইনজীবীরা? রাজধানীর রাজনৈতিক মহলে; অন্তত তেমনটাই মত। যদিও যে মামলায় চিদাম্বরম-এর নাম জড়িয়েছে; সেখানে অন্য কোন কংগ্রেস নেতার নাম আসবে না; তবু আশঙ্কা কংগ্রেসে।

কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম; ২০ আগস্ট থেকে পলাতক ছিলেন। বুধবার সারাদিন কংগ্রেসের আইনজীবীদের একটি দল; চিদাম্বরমের জামিনের জন্য সুপ্রিম কোর্টে হাজির ছিল। তবে জামিন মেলেনি। শেষপর্যন্ত বুধবার রাতে; সিবিআই ঘুষের মামলায়; কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরমকে গ্রেপ্তার করে।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীর থেকে ৩৭০ তুলে, দলে কয়েক কোটি সদস্য বাড়াল বিজেপি

CBI তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে; জিজ্ঞাসাবাদ চালাবে। এবং ঘুষ মামলায় সব অপরাধীদের সামনে আনবে। চিদাম্বরমকে জামিন পাওয়ানোর জন্য তিন কংগ্রেস নেতা ও আইনজীবী কপিল সিবাল; সালমান খুরশিদ; অভিষেক মনু সিংভি তাদের সর্বশক্তি প্রয়োগ করেছিলেন এবং করছেন।

কংগ্রেসের আইনজীবীরা বুধবারের পর বৃহস্পতিবারও; আদালতে চিদাম্বরমের জামিনের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু কংগ্রেসের এই প্রাণপণ লড়াইয়ের কারণ কি? রাজনৈতিক মহল বলছে; আসলে চিদাম্বরম হলেন; সনিয়া গান্ধীর ডান হাত।

UPA সরকারের সময়তেও; উনি সোনিয়া গান্ধীর ডান হাত ছিলেন। তাই চিদাম্বরম দোষী প্রমাণিত হলে; আরও বড় বড় রাঘব বোয়াল CBI এর জালে ফেঁসে যেতে পারে। চিদাম্বরম দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন; পাশাপাশি দীর্ঘদিন সোনিয়া গান্ধী সরকারের অর্থমন্ত্রী ছিলেন। চিদাম্বরমের মতো অনেক কংগ্রেস নেতার বিরুদ্ধেই; দুর্নীতির অভিযোগে মামলা চলছে।

সোনিয়া গান্ধীও জামিনে আছেন; রাহুল গান্ধীও জামিনে রয়েছেন। রবার্ট ভদ্রও জামিনে আছেন; এবং চিদাম্বরম তাঁদের পুরো রাশিফল ​​জানেন। সবার সব দুর্নীতির খবর; চিদাম্বরম জানেন। কারণ তিনি নিজে দেশের অর্থমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী; দুই পদেই ছিলেন।

এখন যেহেতু চিদাম্বরমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে; তাই বলা হচ্ছে; সোনিয়া, রাহুল গান্ধী এবং রবার্ট ভদ্রার সম্পর্কিত অনেক ধরণের সত্য উদ্ঘাটন হতে পারে। চিদাম্বরম এখনই মুখ খুললেই; অনেক রহস্য জানা যাবে।

আর এই কারণেই কংগ্রেসের নেতারা; লাগাতার চিদাম্বরমের গ্রেফতার নিয়ে; মুখ খুলতে আরম্ভ করেছেন। জামিন না পেলে কংগ্রেস যে আরও চিন্তায় পড়বে; সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন