চিনের মাটিতে দাঁড়িয়ে, শি জিনপিং কে শায়েস্তা করার হুঙ্কার দিলেন এই ভারতীয়

6825
চিনের মাটিতে দাঁড়িয়ে, শি জিনপিং কে শায়েস্তা করার হুঙ্কার দিলেন এই ভারতীয়/The News বাংলা
চিনের মাটিতে দাঁড়িয়ে, শি জিনপিং কে শায়েস্তা করার হুঙ্কার দিলেন এই ভারতীয়/The News বাংলা

চিনের মাটিতে দাঁড়িয়ে; শি জিনপিং-কে শায়েস্তা করার হুঙ্কার দিলেন; চিনে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিশ্রি। চিনা সরকারকে আক্রমণ করে; চিনকে সাবধান থাকতে বলেন তিনি। বেজিং এ বসে, ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বলেছেন; চিনা সেনাদের, ভারতীয় সেনাদের সীমান্তে টহলদারিতে বাধা সৃষ্টি করা; সম্পূর্ণ বন্ধ করতে হবে। না হলে চিনকে যোগ্য জবাব দেওয়া হবে বলে; সাফ জানিয়ে দেন তিনি। তিনি লাদাখের গালওয়ান উপত্যকার উপরে; চিনের সার্বভৌমত্বের দাবিটিকে; “সম্পূর্ণ অযৌক্তিক” বলেও অভিহিত করেছেন।

আরও পড়ুনঃ প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলের টাকাও রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনে, কংগ্রেসের ‘লুঠ’ দেখে হতবাক দেশ

এযেন সিংহের গুহায় দাঁড়িয়ে সিংহকেই হুঙ্কার। চিনে দাঁড়িয়ে; চিন ও শি জিনপিং কে শায়েস্তা করার হুঙ্কার দিলেন; চিনে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিশ্রি। এদিন তিনি ভারতের মত পরিষ্কার জানিয়ে দেন; চিন ও গোটা বিশ্বকে। চিন সীমান্তে ফের অশান্তির চেষ্টা করলে; যোগ্য জবাব মিলবে; পরিষ্কার হুঁশিয়ারি ভারতের। চিনে কর্তব্যরত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিশ্রির; এই হুঙ্কারে অবাক চিনও।

বিক্রম মিশ্রি বলেছেন; “প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় যে সমস্যা তৈরি হয়েছে; তা আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার একমাত্র রাস্তা হল; চিনের তরফ থেকে সেখানে নতুন নির্মাণ বন্ধ করা”। তিনি আরও বলেন; “গালওয়ান উপত্যকার উপর চিনের সার্বভৌমত্বের দাবি; মোটেই যুক্তিযুক্ত নয়”। চিনের এই ধরনের অতিরঞ্জিত দাবিগুলি; যে কোনও কাজে আসবে না; সেকথাও মনে করিয়ে দেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ লাদাখ সীমান্তে চিনের দিকে তাক করে দাঁড়াল, ভারতের খতরনাক ভীষ্ম ট্যাঙ্ক

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে, দুদেশের মধ্যে এই চাপানউতোর; শুধু যে ওই এলাকায় উত্তেজনা তৈরি করবে তাই নয়; চিনের এই কার্যকলাপ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উপর প্রভাব ফেলবে; এবং পাল্টা প্রতিক্রিয়াও সৃষ্টি করবে। চিনকে পরিষ্কার জানিয়ে দেন; চিনে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিশ্রি।

বলা হচ্ছে, ভারত সরকারের মত; জানিয়ে দিয়েছেন বিক্রম মিশ্রি। তিনি বলেছেন; “পূর্ব লাদাখে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর; সামরিক বিরোধ নিষ্পত্তির রাস্তা একটাই; তা হল বেজিংকে পরিষ্কার বুঝতে হবে যে; গায়ের জোরে স্থিতাবস্থা পরিবর্তন করতে চাওয়া; কোনও কাজের কথা নয়। তা করে এগোনোও যাবে না”। শুধু লাদাখ সীমান্তে নয়; কূটনৈতিক স্তরেও চিনকে পাল্টা জবাব দেওয়াটাই; এখন ভারতের লক্ষ্য।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন