চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন, লাদাখে বড়সড় আক্রমণের ছক জিনপিংয়ের

1346
চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন, লাদাখে বড়সড় আক্রমণের ছক জিনপিংয়ের
চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন, লাদাখে বড়সড় আক্রমণের ছক জিনপিংয়ের

The News বাংলা Exclusive: চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন, লাদাখে বড়সড় আক্রমণের ছক জিনপিংয়ের। গোপন সূত্রে এমনটাই জানা যাচ্ছে। ভারতের স্পেশ্যাল ফ্রন্টিয়ার ফোর্স এর সেনারা এখন; চিনের দখলে থাকা ভারতের জমি উদ্ধার করছে; যা ভারতের ইতিহাসে আগে কখনই হয় নি। লাদাখের প্যাংগং হ্রদের চারপাশের উঁচু পাহাড়চূড়ো; এখন স্পেশ্যাল ফ্রন্টিয়ার ফোর্স দখলে। প্যাংগং হ্রদের চারপাশে উঁচু পাহাড়চূড়ো গুলো বরাবর চিন দখলে ছিল। সেইগুলি এখন ভারতীয় সেনার দখলে।

আরও পড়ুনঃ Ladakh Exclusive: চিনের বিরুদ্ধে তিব্বতিদের প্রতিশোধ নেবার সুযোগ করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী

আর তার জেরে চিনা ফৌজের সব গতিবিধি; এখন ভারতের নজরে। সেনা সূত্রের খবর, অগাস্টের শেষ থেকেই; প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণের শৃঙ্গগুলির দখল অভিযান; শুরু করেছিল ভারতীয় সেনা। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই তা সম্পূর্ণ হয়। আর যেটা করেছে; এই চিন বিরোধী ‘বিকাশী’ সেনা। চিনের কাছে এটা একটা বড় ধাক্কা।

চিনের ভাষাতেই জবাব দিচ্ছে দেশ, প্যাংগং হ্রদের চারপাশে উঁচু পাহাড়চূড়ো এখন ভারতীয় সেনাবাহিনীর দখলে
প্যাংগং হ্রদের চারপাশে উঁচু পাহাড়চূড়ো এখন ভারতীয় সেনাবাহিনীর দখলে

এর জবাব দিতেই হবে; প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং কে। কারণ, এটা তাঁর ব্যর্থতা হিসাবেই দেখা হচ্ছে। কয়েকদিনের মধ্যেই, প্যাংগং লেকের পাহাড়ে; বড়সড় হামলার পরিকল্পনা করছে লাল ফৌজ। ইতিমধ্যেই দু-একবার ধাক্কা খেয়ে ফিরেও গেছে। তবে, সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও)-এর বৈঠকে; দু-দফায় মুখোমুখি হলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এবং চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই। তাই, এত তাড়াতাড়ি আবার কোন সংঘর্ষ এর রিস্ক চিন নেবে কিনা; সেটাই একমাত্র প্রশ্ন।

আরও পড়ুনঃ চিনের ভাষাতেই জবাব দিচ্ছে দেশ, প্যাংগং হ্রদের চারপাশে উঁচু পাহাড়চূড়ো এখন ভারতীয় সেনাবাহিনীর দখলে

আবার চিনের দিক থেকে বিচার করলে; এই মুহূর্তে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের পক্ষে; নরম মনোভাব দেখানোটাও অস্বস্তিকর। কারণ আগামী মাসেই চিনা কমিউনিস্ট পার্টির গুরুত্বপূর্ণ; প্লেনাম শুরু হচ্ছে। সেখানে চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার; শতবর্ষ উদযাপনের ঘোষণা করার কথা শি জিনপিংয়ের।

মাও সে তুং-এর পর, নিজেকে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির সেরা নক্ষত্র হিসেবে; তুলে ধরতে মরিয়া জিনপিং। একই সঙ্গে দলের শতবর্ষে, দেশবাসীর সামনে নিজেকে এবং চিনকে; প্রবল ক্ষমতাবান প্রমাণ করার দায়ও রয়েছে তাঁর। এই সময় ভারতের দাবি মেনে সেনা পিছিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া; চিনের প্রেসিডেন্টের পক্ষে যথেষ্টই অস্বস্তির। ফলে, প্যাংগং লেকের পাহাড় চুড়ায়; লাল ফৌজ ফের বড়সড় হামলা চালাতে পারে; এমনটাই মনে করছে ভারতীয় সেনাও।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন