মমতার থেকে টাকা পাওয়া ক্লাব ও পুজোগুলি এবার কিছুটা ফিরিয়ে দিক

2370
মমতার থেকে টাকা পাওয়া ক্লাব ও পুজোগুলি এবার কিছুটা ফিরিয়ে দিক
মমতার থেকে টাকা পাওয়া ক্লাব ও পুজোগুলি এবার কিছুটা ফিরিয়ে দিক

করোনা প্রতিরোধে সাধারণ মানুষের কাছে; আর্থিক সাহায্য চেয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে দান করতে; ডাক দিয়েছেন মমতা। কিন্তু বছরে ১লাখ ও ২ লাখ করে; যাদের সাহায্য করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়; তাঁরা কি করছেন? বছরে ১লাখ ও ২ লাখ করে যারা পেয়েছেন; সেই ক্লাব ও পুজোগুলি এবার কিছুটা ফিরিয়ে দিক; মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে। রাজ্যের অনেক ক্লাবকেই বছরে ২লাখ বা ১ লাখ করে; আর্থিক সাহায্য দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্লাবগুলো এবার সেই সাহায্যের কিছুটা হলেও ফিরিয়ে দিক; চাইছেন আমজনতা।

ঘেঁটে গেছে বাংলা, লক ডাউনে বাজার খোলা, বাজার গেলে মারছে পুলিশ

ইতিমধ্যেই ফোরাম ফর দুর্গোৎসব ২ লক্ষ টাকা দিয়েছে; রাজ্যের এমারজেন্সি রিলিফ ফান্ডে। ঠিক এইভাবেই রাজ্যের বাকি ক্লাবগুলি; কিছুটা করে হাত বাড়িয়ে দিক মমতার দিকে; চাইছেন সাধারণ মানুষ। কলকাতার বেশ কিছু পুজো উদ্যোক্তা; ইতিমধ্যেই নিজেদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সন্তোষপুর লেক পল্লী, ভবানীপুর অবসর ক্লাব, চোরাবাগান, জগৎ মুখাজি, বেলেঘাটা ৩৩ পল্লী ক্লাব; সাহায্যের হাত বাড়িয়ে আর্থিক সাহায্য পাঠিয়েছেন ত্রাণ তহবিলে। কলকাতার আরও বিগ বাজেটের পুজো গুলির কাছেও; এই একই কাজ করার আবেদন মানুষের।

আঁকলেন মমতা, প্রথমবার তাঁর আঁকা সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসির খোরাক নয়

তবে কলকাতা ও রাজ্যের বাকি ক্লাব ও পুজোগুলি এইভাবেই এগিয়ে আসুক; চান সাধারণ মানুষ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার রাজ্যের সব ক্লাব ও পুজো কমিটি গুলির পাশে দাঁড়িয়েছেন। বছরে আর্থিক সাহায্য ছাড়াও; পুজোর সময় রাজ্যের প্রত্যেক পুজো কমিটি গুলিকে টাকা দিয়েছেন মমতা; বিরোধী দল ও মানুষের সমালোচনা উপেক্ষা করে। এবার কি তাদের পালা নয় ? রাজ্যের বিপদের মুখে যখন মমতা বারবার সাহায্য চাইছেন; তখন কি নিজেদের সামর্থ্য মত হাত বাড়িয়ে দেবে তারা। প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ।

ফিরে এসেছেন অগ্নিকন্যা, প্রথমের পর ভারতের দ্বিতীয় করোনা হাসপাতালও বাংলাতে

মানুষের সেবা করা কলকাতা ও রাজ্যের পুজো কমিটি গুলি; এই বিপদে সামর্থ্য মত মমতার হাতে সাহায্য তুলে দেবেন বিশ্বাস মানুষের। ইতিমধ্যেই সেই কাজ শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু রাজ্যের সব আর্থিক সাহায্য পাওয়া ক্লাবগুলো কি করবে? এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন