পুজোর আগেই রাজ্যে সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ, বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতার

713
পুজোর আগেই রাজ্যে সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ
পুজোর আগেই রাজ্যে সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

পুজোর আগেই রাজ্যে; ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ; নবান্নে বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতার। পুজোর আগেই রাজ্যে প্রাইমারি ও আপার প্রাইমারি মিলিয়ে; মোট ২৪৫০০ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। সোমবার নবান্নে বড় ঘোষণা করলেন; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা জানিয়েছেন; “আদালতে মামলা চলার জেরে; এই নিয়োগ প্রক্রিয়া আটকে ছিল। এবার সেই প্রক্রিয়া; চালু করা হবে। পুজোর আগেই রাজ্যে; ২৪৫০০ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। পুজোর পরে প্রাইমারিতে; আরও সাড়ে সাত হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে; বলেও জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার বিকেলেই স্কুল সার্ভিস কমিশনের ওয়েবসাইটে; ইন্টারভিউয়ের তালিকা প্রকাশ হবে। পুজোর আগেই শিক্ষক নিয়োগ সেরে ফেলা হবে বলে; জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানান; পুজোর আগে ১৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে; আপার প্রাইমারিতে। ১০ হাজার ৫০০ প্রাইমারি শিক্ষক; নিয়োগ করা হবে ৷ পুজোর পর আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যে; আরও ৭ হাজার ৫০০ প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ করা হবে ৷ রাজ্যে সর্বমোট ৩২ হাজার শিক্ষক; নিয়োগ করা হবে বলে জানান মমতা ৷

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলে ঢুকেই কাজ শুরু করলেন মুকুল, ভাঙন বিজেপি শিবিরে

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন; “মেধাই পরিচয়’; লবি করার প্রয়োজন নেই। যাঁরা পরীক্ষায় পাশ করেছেন; তাঁরাই চাকরি পাওয়ার অধিকারী। আদালতে মামলার জন্যই; এতদিন নিয়োগ আটকে ছিল”। অর্থাৎ শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে, দীর্ঘদিন ধরে স্বজনপোষণ বা দুর্নীতির যে অভিযোগ উঠেছিল; তা খারিজ করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। অতীতে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে; বেনিয়মের নানা অভিযোগ উঠেছিল। একাধিকবার দুর্নীতির অভিযোগ তুলে, আদালতের দ্বারস্থ হলে; বারবার নিয়োগে স্থগিতাদেশ দেয় আদালত। ফলে মুখ্যমন্ত্রীর এদিনের ঘোষণা এবং তার পরবর্তী মন্তব্য; খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় হাইকোর্টে ধাক্কা মমতা সরকারের, খারিজ আবেদন

বিভিন্ন আইনি জটিলতা কাটিয়ে, আদালতের নির্দেশে; গত বছরই শিক্ষক নিয়োগ হয়েছে রাজ্যে। এ বছরও আবার ৩২ হাজার শিক্ষক; চাকরি পাবেন। আর এই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে, রাজ্যের স্কুলগুলিতে পড়াশোনার পরিকাঠামো আরও উন্নত হবে বলে; আশাবাদী পড়ুয়া, অভিভাবকরা। তবে এই প্রক্রিয়া শেষ পর্যন্ত ঠিকঠাক হবে তো; এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন