বুলবুল নিয়ে রাজ্যপালকে তোপ মুখ্যমন্ত্রী মমতার, মোদীর দিকে বন্ধুত্বের হাত

216
বুলবুল নিয়ে রাজ্যপালকে তোপ মমতার, মোদীর দিকে বন্ধুত্বের হাত /The News বাংলা
বুলবুল নিয়ে রাজ্যপালকে তোপ মমতার, মোদীর দিকে বন্ধুত্বের হাত /The News বাংলা

বুলবুল নিয়ে রাজ্যপালকে তোপ মুখ্যমন্ত্রী মমতার; মোদীর দিকে বন্ধুত্বের হাত। নাম না করে ফের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে তোপ দাগলেন; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যপাল বিজেপির মুখপাত্র হিসেবে কাজ করছেন; সমান্তরাল প্রশাসন চালাচ্ছেন ও নিজের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছেন; বলে অভিযোগ করেন তিনি। নবান্ন সভা ঘরে বুধবার প্রশাসনিক বৈঠকের পর; সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

সেখানে মহারাষ্ট্রের সাম্প্রতিক অবস্থা ও রাজ্যপাল-এর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে; ঘুরিয়ে রাজ্যের রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে; প্রশ্ন তোলেন তিনি। রাজ্যপালের নাম না করলেও মুখ্যমন্ত্রী বলেন; ‘বিজেপির মুখপাত্র হিসেবে কেউ কেউ কাজ করছেন।

আমাদের রাজ্য কি হচ্ছে; আপনারা দেখতে পাচ্ছেন। সমান্তরাল প্রশাসন চালানো হচ্ছে। রাজ্য ও কেন্দ্রে নির্বাচিত সরকার রয়েছে; সে কথা মনে রাখতে হবে। কেন্দ্রীয় সরকারকেউ কেউ কেউ কেউ অতিক্রম করে যাচ্ছে; এটা দেখতে হবে কেন্দ্রকে।’ মমতার এই মন্তব্যে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে; রাজ্যপালের মধ্যে বিভাজন তৈরি করার চেষ্টা; দেখতে পাচ্ছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন: মিঠুনের পর নতুন মহাগুরু পেল বাংলা

সম্প্রতি রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়; বিভিন্ন বিষয়ে নজিরবিহীন সক্রিয় হয়ে উঠেছেন; বলে তৃণমূলের অভিযোগ। সম্প্রতি সিঙ্গুর পরিদর্শন; ঘূর্ণিঝড় তাণ্ডবে বিধ্বস্ত এলাকাগুলিতে সফর থেকে শুরু করে; বিনা আমন্ত্রণে; বিভিন্ন জায়গায় পৌঁছে গেছেন রাজ্যপাল।

তার জন্য নির্ধারিত প্রটোকলের কোনটাই তিনি মানছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে; রাজ্যপালের সমস্ত পদক্ষেপ; কেন্দ্রের অনুমোদন সাপেক্ষে কিনা; তা নিয়েও প্রশাসনিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে। তাই কুশলী মুখ্যমন্ত্রী এদিন; সুকৌশলে এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেন; বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন: বিজেপিকে অশ্লীল গালাগাল দিতে এবার স্বামী বিবেকানন্দের শরণাপন্ন হল বামেরা

সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য; মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কেন্দ্রের সাহায্য চেয়েছেন। কেন্দ্রের আর্থিক বঞ্চনার কারণে; রাজ্য সরকারকে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করতে; অসুবিধায় পড়ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

রাজ্যের সচিবালয় নবান্নে এদিন রাজ্য সরকারের সমস্ত দফতরের কাজ কর্মের পর্যালোচনায়; এক প্রশাসনিক বৈঠকের পর; মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন; কেন্দ্রীয় কর আদায়ের হার কমায় রাজ্য সরকার ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। চলতি আর্থিক বছরের অক্টোবর মাস পর্যন্ত; এই খাতে ৬৪০ কোটি টাকা লোকসান হয়েছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন