খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতার খাসতালুক ভবানীপুরে, পুরসভার বিষাক্ত পানীয় জল খেয়ে মৃত্যু

12415
খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতার খাসতালুক ভবানীপুরে, পুরসভার বিষাক্ত পানীয় জল খেয়ে মৃত্যু
খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতার খাসতালুক ভবানীপুরে, পুরসভার বিষাক্ত পানীয় জল খেয়ে মৃত্যু

খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতার খাসতালুক ভবানীপুরে; কলকাতা পুরসভার বিষাক্ত পানীয় জল খেয়ে মৃত্যু। গত একসপ্তাহ ধরে কলকাতা পুরসভার ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে; শশীশেখর বসু রোড সহ একাধিক এলাকায় দূষিত পানীয় জল আসছে; অভিযোগ উঠছিল এমনটাই। এমনকী, এই জল পান করে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন; বেশ কয়েকজন এলাকাবাসী। এমনই দাবি ছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের অধিকাংশের। খোদ মুখ্যমন্ত্রীর খাসতালুক ভবানীপুরে এমন একটি ঘটনা ঘিরে স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল পড়েছে। বিষাক্ত জল খেয়ে অনেকে অসুস্থ; ও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। খোদ মুখ্যমন্ত্রীর খাসতালুক ভবানীপুরে, এমন একটি ঘটনা ঘিরে; স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল পড়েছে।

সূত্রের দাবি, সম্প্রতি মাদককাণ্ডে ধৃত বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামী; আলিপুর মহিলা জেলে অসুস্থ হয়ে পড়েন। সোমবার এক বিচারাধীন বন্দির মৃত্যু হয়। জেলের আরও ৫ জন ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে; হাসপাতালে ভর্তি। সোমবার শম্ভুনাথ পণ্ডিত হাসপাতালে ভর্তি থাকা, প্রিয়াঙ্কা তামাং নামে ওই জেলবন্দির মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে, ডায়েরিয়ার জেরে এক ব্যক্তির মৃত্যুও হয়েছে; দাবি করেছে তাঁর পরিবার। অসুস্থ শতাধিক মানুষ। প্রতিটি ক্ষেত্রেই পানীয় জলে দূষণের অভিযোগ উঠেছে। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দাবি করছে, অসুস্থের সংখ্যাটা অনেক বেশি; যা গোপন করছে জেল প্রশাসন।

আরও পড়ুনঃ ভাঙন চলছে তৃণমূলে, দলবল নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন প্রভাবশালী নেতারা

এলাকাবাসীদের অভিযোগ, পানীয় জলে দূষণের জেরে; অসুস্থ হয়ে ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে মৃত্যু হয়েছে; কলকাতা পুরসভার এক কর্মীর। তাঁর নাম ভুবনেশ্বর দাস। তিনি থাকতেন শ্রমিক কোয়ার্টারে। ডায়েরিয়ার জেরে সম্প্রতি ওই পুরকর্মীর স্ত্রী ও জামাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। ৭৩ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতা ও কোঅর্ডিনেটর রতন মালাকার বলেছেন; “ওখানে জলের পাইপের সঙ্গে; ড্রেনের জল মিশে যাওয়াতেই এই জলদূষণের ঘটনা ঘটেছে। আমরা ওই পাইপ ব্লক করে দিয়েছি”।

এবার এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসল; কলকাতা পুর কর্তৃপক্ষ। পুরসভার সরবরাহ করা পানীয় জল সুরক্ষিত কিনা; অবিলম্বে তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিলেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম। তিনি জানান, ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে গিয়েছেন; জল সরবরাহ বিভাগের ডিজি ও অন্যান্য আধিকারিকরা। সংশ্লিষ্ট এলাকার জলের নমুনা পরীক্ষার জন্য; পাঠানো হয়েছে পরীক্ষাগারে। ভোটের মুখে এই ঘটনায় চরম অস্বস্তিতে তৃণমূল কংগ্রেস।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন