বাঙালির দুর্গা পুজো নিয়ে বড় পরিকল্পনা নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

695
বাঙালির দুর্গা পুজো নিয়ে বড় পরিকল্পনা নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়/The News বাংলা
বাঙালির দুর্গা পুজো নিয়ে বড় পরিকল্পনা নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়/The News বাংলা

দুর্গা পুজো নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উৎসাহ; বরাবরই চোখে পড়ার মত। প্রতি বছরই দুর্গা পুজোকে কেন্দ্র করে; একাধিক নতুন পরিকল্পনা নেন তিনি। পুজো কমিটি গুলিকে অর্থ সাহায্য করা থেকে শুরু করে; দেবীর চক্ষুদানও করেন তিনি নিজে হাতে। গত চার বছর ধরে পুজোর পরে রেড রোডে বর্ণাঢ্য কার্নিভ্যালের পরে; এবার বাঙালির দুর্গা পুজো নিয়ে বড় পরিকল্পনা নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুর্গা পুজোকে হেরিটেজ তকমা দিতে উদ্যোগী হলেন তিনি।

এই বছর; শুরু থেকেই দুর্গা পুজো নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতর বেশ প্রকট ছিল। পুজো উদ্বোধন থেকে শুরু করে; রেড রোডের কার্নিভ্যাল, সব কিছুতেই রাজনৈতিক বিতর্ক সৃষ্টি হয়ে ছিল। কিন্তু বাঙালির প্রানের উৎসবে সে সব বিতর্ক তুচ্ছ হয়ে গেছে। বাংলার মানুষ প্রমাণ করে দিয়েছে দুর্গা পুজোর মত জাতীয় উৎসবে রাজনীতির জায়গা নেই।

আরও পড়ুনঃ সংসার খরচের টাকা বাঁচিয়ে, নরেন্দ্র মোদীর মন্দির নির্মাণ করছেন রাজ্যের মুসলিম মহিলারা

বাংলার সংস্কৃতিতে; দুর্গাপুজোকে বাংলার জাতীয় উৎসব বললেও ভুল হবে না। বাংলার মানুষ, জাতি; ধর্ম; বর্ণ নির্বিশেষে দুর্গাপুজোর সময় একটাই পরিচয়ে পরিচিত, তারা বাঙালি। পুজোর আনন্দ সাগরে ডুব দেন আট থেকে আশি সকলেই। এই কটা দিন মেতে ওঠেন নির্ভেজাল আনন্দে।

বাঙালির এই ভাবাবেগের কথা মাথায় রেখে; বাংলার এই জাতীয় উৎসবকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে তুলে ধরতে চাইছে রাজ্য সরকার। এই উৎসবকে হেরিটেজ তকমা দেওয়ার কথা ভেবে রাজ্য সরকার একটি প্রেজেন্টেশন তৈরী করেছে ইউনেস্কোর প্রতিনিধিদলের জন্য।

আরও পড়ুনঃ মশা মারতে কামান দাগা, ইঁদুর ধরতে কোটি টাকা

এই দল দু’দিন ধরে কলকাতা পরিদর্শন করেছেন। ইউনেস্কোর এই প্রতিনিধিদলটি ভারত সহ; দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলির প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করছেন দুর্গা পুজোকে ‘হেরিটেজ তকমা’ প্রদানের প্রাথমিক ধাপ হিসেবে। বাংলায় এই বৈঠকটির আয়োজন করে পর্যটন দপ্তর। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণাতেই পর্যটন দপ্তর এই উদ্যোগ নিয়েছে।

দুর্গাপুজো ছাড়াও আরও তিনটি বিষয় নিয়ে প্রেজেন্টেশন তৈরী করেছে পর্যটন দপ্তর। কলকাতার ডালহাউসি অঞ্চল; বিশেষ স্থাপত্য হিসেবে উত্তর কলকাতার কলেজ স্ট্রীট ও শোভাবাজার রাজবাড়ি এবং প্রাচীন টেরাকোটা শিল্পের জন্য বিষ্ণুপুর; এই গুলিকেও হেরিটেজ তকমা দিতে চাইছে রাজ্য সরকার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন