একদিকে গাছ বাঁচাতে মুখ্যমন্ত্রীর মিছিল, অন্যদিকে গাছ কাটার জন্যই লড়ছে মমতার সরকার

3531
পরিবেশ রক্ষায় মুখ্যমন্ত্রীর মমতার মিছিল, অন্যদিকে গাছ কাটার জন্যই লড়ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার/The News বাংলা
পরিবেশ রক্ষায় মুখ্যমন্ত্রীর মমতার মিছিল, অন্যদিকে গাছ কাটার জন্যই লড়ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার/The News বাংলা

অদ্ভুত বৈপরীত্য। অবিশ্বাস্য হিপোক্রেসি। এমনটাই বলছেন মানবাধিকার কর্মীরা ও পরিবেশবিদরা। একদিকে গাছ বাঁচাতে মুখ্যমন্ত্রীর মিছিল; অন্যদিকে গাছ কাটার জন্যই লড়ছে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটল বৃহস্পতিবার এই ভারতের মাটিতে। কলকাতায় পরিবেশ রক্ষায় মুখ্যমন্ত্রীর মিছিল যখন চলছে তখনই দিল্লীতে সেই গাছ কাটার জন্যই সুপ্রিম কোর্টে লড়ছে মমতার মা মাটি মানুষের সরকার। এই অদ্ভুত বৈপরীত্য আমাদের রাজ্যেই সম্ভব; বলছেন মানবাধিকার কর্মীরা ও পরিবেশবিদরা।

যশোর রোড সম্প্রসারণ ও গাছ কাটা নিয়ে; মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর এর সঙ্গে মামলা চলছে রাজ্য সরকারের। যশোর রোড সম্প্রসারণ এর জন্য গাছ কাটতেই হবে; দাবি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের। এত পুরনো প্রায় ৫-৬ হাজার গাছ না কেটেও; রাস্তা সম্প্রসারণ সম্ভব; দাবি মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর এর। আর এই নিয়েই চলছে মামলা।

আরও পড়ুনঃ কে বলেছে খাবারের জাত নেই, জোম্যাটোর খাবার জাত দেখিয়েই বিজ্ঞাপণ করা হয়

৩৫ নম্বর জাতীয় সড়কে বারাসাত থেকে বনগাঁর মধ্যে; রাজ্য সরকার পাঁচটি রেল ওভারব্রিজ তৈরি করতে চায়। ওই কাজ করতে গেলে প্রায় ৫-৬ হাজার গাছ কাটার প্রয়োজন। কিন্তু যশোর রোডের ধারে থাকা ওই গাছগুলি; কাটার বিপক্ষে স্থানীয় বাসিন্দা থেকে শুরু করে একাধিক মানবাধিকার সংগঠন।

এপিডিআরের তরফে কলকাতা হাইকোর্টে; রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়। ২০১৮ সালের ৩১ আগস্ট, যশোর রোডে; রাজ্য সরকারকে গাছ কাটার অনুমতি দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। তৎকালীন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্য ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ; গাছ কাটা নিয়ে এই রায় দেন। এই রায়ের বিরুদ্ধেই; সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ হয় এপিডিআর।

আরও পড়ুনঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল কাণ্ডের পরে, রাজা রামমোহনের বাড়িতে চুরি

এরপর যশোর রোডে; ৩৫৬টি প্রাচীন গাছ কাটার বিরুদ্ধে স্থগিতাদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। অনির্দিষ্টকালের জন্য গাছ কাটা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়; দেশের শীর্ষ আদালত। গাছকাটার এই স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধেই; সুপ্রিমকোর্টে আবেদন জানিয়েছে মমতার সরকার।

বৃহস্পতিবার বিকালে কলকাতায় গাছ বাঁচাতে; মুখ্যমন্ত্রীর মিছিল যখন চলছে; ঠিক তখনই দিল্লীতে সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগোই ও বিচারপতি অনিরুদ্ধ বসুর ডিভিশন বেঞ্চে; গাছ কাটতে লড়ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার; এমনটাই অভিযোগ এপিডিআর সম্পাদক রঞ্জিত সূরের।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন