বিজেপি করার অপরাধে, কর্মীর সুতোর গোডাউনে আগুন লাগানোর অভিযোগ

939
বিজেপি করার অপরাধে দলীয় কর্মীর সুতোর গোডাউনে আগুন
বিজেপি করার অপরাধে দলীয় কর্মীর সুতোর গোডাউনে আগুন

২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হবার আগেই; রাজ্য জুড়ে শুরু হয়ে গেছে রাজনৈতিক হিং’সা। খু’ন জ’খম থেকে শুরু করে; মা’রধোর ও খু’নের চেষ্টার খবর প্রায় প্রতিদিনই সামনে আসছে। তৃণমূল ও বিজেপি দুই দলেরই এখন একটাই লক্ষ; বাংলার দখল নিজেদের হাতে রাখা। এবার রাজনৈতিক হিং’সার আ’গুন ছড়িয়ে পড়ল তুফানগঞ্জে। অভিযোগ, বিজেপি করার অপরাধে; এক বিজেপি কর্মীর সুতোর গোডাউনে আ’গুন ধরিয়ে দেয় দু’ষ্কৃতীরা। অভিযোগের তীর শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

মঙ্গলবার রাত দুটো নাগাদ; তুফানগঞ্জের চিলাখানা ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘোগারকুঠি কালীবাড়ি এলাকায়; বিজেপি কর্মী দীপক দাসের সুতোর গোডাউনে আ’গুন ধরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। মুহূর্তের মধ্যে দাউদাউ করে জ্বলে ওঠে গোডাউন। স্থানীয়রা চেষ্টা করেও আ’গুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেননি। খবর পেয়ে দমকলের একটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছে; আ’গুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আরও পড়ুনঃ ‘বাড়ির বউ আসছে বিদেশ থেকে আর আমরা বহিরাগত’, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা তোপ দিলীপ ঘোষের

কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে; দোকানের সমস্ত জিনিস। বিজেপি কর্মী দীপক দাসের অভিযোগ; “প্রায়৬ থেকে ৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিজেপি করি বলে; তৃণমূল আমার সুতোর গোডাউনে আ’গুন ধরিয়ে দিয়েছে”। এই ঘটনার প্র’তিবাদে; বুধবার সকাল থেকে চিলাখানা এলাকায় কোচবিহার থেকে অসমগামী ৩১ নাম্বার জাতীয় সড়ক আটকে; বিক্ষো’ভ শুরু করেছে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

আরও পড়ুনঃ “বিজেপি ক্ষমতায় এলে, পার্শ্বশিক্ষকদের বঞ্চনা নয়”, মুকুল রায়ের প্রতিশ্রুতিতে উঠল অনশন

এই ঘটনার বি’রুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ; অস্বীকার করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ জানান; “এলাকায় বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব রয়েছে। সেই অ’শান্তির জেরেই এই কাণ্ড ঘটেছে। এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই”। যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে; বিজেপি জানিয়েছে; “বিজেপি করার জন্যই; প্রতিহিংসাবশতই আগুন লাগিয়েছে তৃণমূল”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন