গান্ধী পরিবারের বাইরে কেউ দলের সভাপতি নয়, ফের এক ‘গান্ধী’কেই চাইছে কংগ্রেস

2267
গান্ধী পরিবারের বাইরে সভাপতি নয়, ফের এক গান্ধীকেই চাইছে কংগ্রেস
গান্ধী পরিবারের বাইরে সভাপতি নয়, ফের এক গান্ধীকেই চাইছে কংগ্রেস

গান্ধী পরিবারের বাইরে কেউ দলের সভাপতি নয়; ফের এক ‘গান্ধী’কেই চাইছে কংগ্রেস। ফের রাহুলকেই চাইল কংগ্রেস। কংগ্রেস সভাপতি পদ; এবারও যে নেহেরু গান্ধী পরিবারের বাইরে যাবে না; সোমবার সেটাই প্রমাণ করে দিলেন কংগ্রেস নেতারা। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ব্যর্থতার, সব নৈতিক দায় নিজের ঘাড়ে নিয়ে; পদত্যাগ করেছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তখন ঠিক হয়েছিল, যতদিন না আবার কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক হয়; আর কংগ্রেস সভাপতি ঠিক হয়; ততদিন কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব থাকবে সনিয়ার হাতেই। এবার কংগ্রেস সভাপতি পদে নির্বাচন হবার আগেই; ‘রাহুল গান্ধীকেই চাই’; বলে প্রস্তাব পাস করে দিল দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেস।

নেতৃত্বের সংকটে কংগ্রেস! গত লোকসভা ভোটে হারের ধাক্কায়; সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর ইস্তফা এবং তাঁর বিকল্প বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে; নেতাদের ব্যর্থতা দেশের শতাব্দী প্রাচীন এই দলের শীর্ষ স্তরে এক শূন্যতা সৃষ্টি করেছে। কিছুদিন ‘মস্তিষ্কহীন’ অবস্থায় চলার পরে; সনিয়া গান্ধীকে অন্তর্বর্তী সভানেত্রী করে সেই যাত্রায়; কোনওরকমে পরিস্থিতি ম্যানেজ করেছিলেন কংগ্রেসের ম্য়ানেজাররা। তার পরে গঙ্গা দিয়ে অনেক জল বয়ে গিয়েছে। নতুন স্থায়ী নেতা খোঁজার ক্ষেত্রে; বিশেষ হেলদোল দেখা যায়নি; কংগ্রেস হাইকমান্ডের মধ্যে।

দলের তরফে মুখে যাই বলা হোক; কংগ্রেস যে গান্ধী নির্ভরতা থেকে এখনই বেরতে পারবে না; তা আরও একবার স্পষ্ট করে দিল দলের দিল্লি প্রদেশ নেতৃত্ব। যার নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা নিয়েই, এত প্রশ্ন; সেই রাহুল গান্ধীকেই ফের কংগ্রেস সভাপতি করার দাবিতে; সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাব পাশ করাল তারা। রবিবার দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে, পাশ করানো প্রস্তাবে বলা হয়েছে; এই মুহূর্তে রাহুল গান্ধীকে ফের দলের শীর্ষ পদে ফেরাতে হবে। কংগ্রেস সূত্রের খবর, আগামী কয়েকদিনে; আরও একাধিক রাজ্যে এই ধরনের প্রস্তাব পাশ করানো হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ একের পর এক ‘বিতর্কিত’ রায়, বিচারপতি পুষ্পা গান্ডিওয়ালার চাকরি পাকা করল না সুপ্রিম কোর্ট

সূত্রের খবর, কংগ্রেস শাসিত রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীরা; এবং অধিকাংশ প্রদেশ সভাপতিরা; গান্ধী পরিবারের উপরে আস্থা প্রকাশ করেছেন। এই তালিকায় আছেন; পঞ্জাব, ছত্তিশগড় এবং রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী। দলের লোকসভার নেতা অধীর চৌধুরী; প্রাক্তন মন্ত্রী অশ্বিনী কুমার; সলমন খুরশিদ এবং কেকে তিওয়ারির মতো মুখ চান; কংগ্রেস সভাপতি পদ, নেহেরু গান্ধী পরিবারের বাইরে না যাক। যদিও কংগ্রেসের অন্দরেই রাহুলের নেতৃত্ব নিয়ে; একাংশ প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে।

২২ জানুয়ারি দলের কর্মসমিতির বৈঠকে; সেই প্রশ্ন বেশ জোরালভাবেই উঠেছিল। গুলাম নবি আজাদ, পি চিদম্বরম, আনন্দ শর্মাদের মতো সিনিয়র নেতারা চাইছেন; দ্রুত নির্বাচনের মাধ্যমে দলের সভাপতি নির্বাচন করা হোক। সেই বৈঠকে শেষমেশ ঠিক হয়; মে মাসেই নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হবে। এবং জুনের মধ্যেই নতুন সভাপতি পাবে দল। প্রশ্ন হচ্ছে, দল যদি নির্বাচনের মাধ্যমে, সভাপতি নির্বাচন করে; তাহলে রাহুলকে দায়িত্ব দেওয়ার জন্য এই ধরনের চাপ কেন সৃষ্টি করা হচ্ছে? “গান্ধী পরিবারের বাইরে কংগ্রেস সভাপতি পদ যাবে না”; চ্যালেঞ্জ দিয়েছে বিজেপি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন