করোনা কমেছে জানিয়ে ভোটের দাবি তুললেন মমতা, করোনা বিধিনিষেধে চলছে না লোকাল ট্রেন

2094
করোনা কমেছে জানিয়ে ভোটের দাবি তুললেন মমতা, করোনা বিধিনিষেধে চলছে না লোকাল ট্রেন
করোনা কমেছে জানিয়ে ভোটের দাবি তুললেন মমতা, করোনা বিধিনিষেধে চলছে না লোকাল ট্রেন

মানব গুহ, কলকাতাঃ অদ্ভুত না? এক বাংলা; দুই গল্প! বাংলায় করোনা কমেছে জানিয়ে, নিজের ভোটের দাবি; অর্থাৎ রাজ্যে উপনির্বাচনের দাবি তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অথচ করোনা বিধি-নিষেধ রাজ্যে বলবত আছে এখনও; আজও চলছে না লোকাল ট্রেন। ‘করোনা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে’; তাই বাংলায় দ্রুত উপনির্বাচনের দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। “রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি; এখন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে। নির্বাচন কমিশন চাইলেই; রাজ্যে উপনির্বাচন করতে পারে”। ইলেকশন কমিশনের উদ্দেশ্যে, দ্রুত রাজ্যের ৭টি আসনের উপনির্বাচন; সেরে ফেলার দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। তা হলে লোকাল ট্রেন; বন্ধ কেন!? প্রশ্ন বাংলার আমজনতার।

আমাদের উপনির্বাচনটা ক্লিয়ার করে দিন”; প্রধানমন্ত্রী মোদীকে এই ভাষাতেই নবান্ন থেকে কটাক্ষ করেছেন মমতা। তৃণমূল নেতাদের আশঙ্কা, রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট তৈরির উদ্দেশ্যে; করোনার অজুহাতে, এই উপনির্বাচনে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে নির্বাচন কমিশন। করোনাকে কারণ দেখিয়ে, ছমাসের মধ্যে; উপ-নির্বাচন নাও করানো হতে পারে। এদিন নবান্নে মমতার এই কথায়; সেই আশঙ্কার আভাস মিলল। অথচ করোনার আশঙ্কায়; বাংলায় আজও বন্ধ লোকাল ট্রেন। “লোকাল ট্রেনটা ক্লিয়ার করে দিন”; দাবি মানুষের।

আরও পড়ুনঃ করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে, বাংলায় দ্রুত উপনির্বাচনের দাবি মুখ্যমন্ত্রী মমতার

পেটে ভাত নেই, লোকাল ট্রেনের দাবিতে; বাংলায় প্রতিদিন বিক্ষোভ চলছে। এদিন ফের সোনারপুর, মল্লিকপুর, বেতবেড়িয়া, ঘুটিয়ারি শরিফ স্টেশনে; রেল অবরোধ করেন নিত্যযাত্রীরা। আটকে পরে; স্টাফ স্পেশাল ট্রেন। মল্লিকপুরে জিআরপি-কে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি করে; জিআরপির গাড়িও ভাঙচুর করা হয়। রাজ্যে প্রতিদিনই লোকাল ট্রেনের দাবিতে; বিক্ষোভ হচ্ছে। লোকাল ট্রেন চালু করা নিয়ে; কী ভাবনাচিন্তা করছে সরকার? রাজ্যকে চিঠি দিয়ে কিছুদিন আগেই জানতে চেয়েছিল; পূর্ব রেল ও দক্ষিণ-পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষ। এখনও কোন জবাব; দেয়নি নবান্ন।

আরও পড়ুনঃ পেটে ভাত নেই, লোকাল ট্রেনের দাবিতে প্রতিদিন বিক্ষোভ বাংলায়

একদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা রাজ্যে ভোট করাতে চান; করোনা কমে গেছে বলে। অন্যদিকে, রাজ্য প্রশাসনের নির্দেশে, রাজ্যে জারি করোনা বিধিনিষেধ; বন্ধ লোকাল ট্রেন! মুখ্যমন্ত্রীর কোন দাবিটা ঠিক? করোনা কমে গেছে, ভোট করানো হোক; করোনা আছে, তাই করোনা বিধিনিষেধ ও লোকাল ট্রেন বন্ধ! রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর; কোন কথাটা সত্যি? এক বাংলা এক করোনা পরিস্থিতি; দুরকম দৃষ্টিভঙ্গি কেন? প্রশ্ন বাংলার আমজনতার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন